ঢাকা ১২:০১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুই ঘন্টা পরে অবরুদ্ধ থেকে মুক্ত হলেন রাবি ভিসি, উত্তপ্ত এখনো

সোহরাব হোসেন সৌরভ, রাজশাহী ||
  • আপডেট সময় : ১০:৪৮:৩১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩ ৯৫ বার পড়া হয়েছে

রাবি ভিসিকে দুই ঘন্টা ধরে সিনেট ভবনের সামনে অবরুদ্ধ থাকার পরে বাসায় ফিরেছেন। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা তাকে অবরুদ্ধ রেখে বিক্ষোভ করেন। পরে দুপুর দুইটার দিকে শিক্ষক এবং ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গিয়ে ভিসিকে সেখান থেকে নিয়ে বাসভবনে পৌঁছে দেন।
এরপর শিক্ষার্থীদের একটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বাসার সামনে অবস্থান নেন। আরেকটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয় মেইন গেটের সামনে গিয়ে অবস্থান নেন। মেইন গেটের সামনে দুপুর আড়াইটার দিকে আবারো বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।
শেষে বিকেল সোয়া তিনটার দিকেও মেইন গেটের সামনে রাস্তায় আগুন দিয়ে অবস্থান করছিলেন আন্দোলনকারীরা।
সিনেট ভবনের সামনে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে বেরিয়ে নিজ বাসভবনে প্রবেশ করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভিসি প্রফেসর ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার।

রোববার দুপুর পৌনে ২টায় নিজ বাসভবনে প্রবেশ করেন তিনি। ভিসি বাসভবনে প্রবেশের পর থেকে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়েছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা বাসভবনের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান করছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সিনেট ভবনের সামনে রাবি ভিসি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলার সময় এক হেলমেট পরিহিত শিক্ষার্থীকে বহিরাগত ভেবে মারতে উদ্যত হয় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। এসময় সেই হেলমেট পরিহিত যুবককে নিয়ে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী চত্বরের দিকে নিয়ে যা।পরে সেই হেলমেট পরিহিত শিক্ষার্থী নিজেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দেয় এবয়ং তার পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে।


এসময় ভিসির সামনের অংশে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা সরে গেলে ফাঁকা হয়ে যায় । সে সুযোগকে কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থীদের টের পাওয়ার আগেই ভিসি বাসভবনে ঢুকে পড়েন। ভিসি বাসভবনের প্রবেশের খবর পাওয়ার পর থেকে ওই ভবনের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয়।
এর আগে রোববার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে এ বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এরপর মিছিল সারা ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী বিভিন্ন স্লোগানে উত্তপ্ত করে তোলেন ক্যাম্পাস।
পরে বিক্ষোভ মিছিলটি নিয়ে শিক্ষার্থীরা উপাচার্য বাসভবনে বসে এসে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকে। এরপরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবাস বাংলাদেশ মাঠে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনায় বসেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু ফলপ্রসূ সমাধান না পেয়ে পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ঘিরে রাখেন শিক্ষার্থীরা। সেখানেই আটকা পড়ে রাবি ভিসি ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

দুই ঘন্টা পরে অবরুদ্ধ থেকে মুক্ত হলেন রাবি ভিসি, উত্তপ্ত এখনো

আপডেট সময় : ১০:৪৮:৩১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩

রাবি ভিসিকে দুই ঘন্টা ধরে সিনেট ভবনের সামনে অবরুদ্ধ থাকার পরে বাসায় ফিরেছেন। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা তাকে অবরুদ্ধ রেখে বিক্ষোভ করেন। পরে দুপুর দুইটার দিকে শিক্ষক এবং ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গিয়ে ভিসিকে সেখান থেকে নিয়ে বাসভবনে পৌঁছে দেন।
এরপর শিক্ষার্থীদের একটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বাসার সামনে অবস্থান নেন। আরেকটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয় মেইন গেটের সামনে গিয়ে অবস্থান নেন। মেইন গেটের সামনে দুপুর আড়াইটার দিকে আবারো বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।
শেষে বিকেল সোয়া তিনটার দিকেও মেইন গেটের সামনে রাস্তায় আগুন দিয়ে অবস্থান করছিলেন আন্দোলনকারীরা।
সিনেট ভবনের সামনে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে বেরিয়ে নিজ বাসভবনে প্রবেশ করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভিসি প্রফেসর ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার।

রোববার দুপুর পৌনে ২টায় নিজ বাসভবনে প্রবেশ করেন তিনি। ভিসি বাসভবনে প্রবেশের পর থেকে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়েছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা বাসভবনের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান করছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সিনেট ভবনের সামনে রাবি ভিসি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলার সময় এক হেলমেট পরিহিত শিক্ষার্থীকে বহিরাগত ভেবে মারতে উদ্যত হয় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। এসময় সেই হেলমেট পরিহিত যুবককে নিয়ে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী চত্বরের দিকে নিয়ে যা।পরে সেই হেলমেট পরিহিত শিক্ষার্থী নিজেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দেয় এবয়ং তার পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে।


এসময় ভিসির সামনের অংশে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা সরে গেলে ফাঁকা হয়ে যায় । সে সুযোগকে কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থীদের টের পাওয়ার আগেই ভিসি বাসভবনে ঢুকে পড়েন। ভিসি বাসভবনের প্রবেশের খবর পাওয়ার পর থেকে ওই ভবনের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয়।
এর আগে রোববার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে এ বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এরপর মিছিল সারা ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী বিভিন্ন স্লোগানে উত্তপ্ত করে তোলেন ক্যাম্পাস।
পরে বিক্ষোভ মিছিলটি নিয়ে শিক্ষার্থীরা উপাচার্য বাসভবনে বসে এসে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকে। এরপরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবাস বাংলাদেশ মাঠে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনায় বসেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু ফলপ্রসূ সমাধান না পেয়ে পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ঘিরে রাখেন শিক্ষার্থীরা। সেখানেই আটকা পড়ে রাবি ভিসি ।