ঢাকা ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২০৪১ সালের মধ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ স্মার্ট বাহিনী হবে কোস্টগার্ড

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৯:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ জুন ২০২৩ ৪৭ বার পড়া হয়েছে

কোস্টগার্ড বাহিনীর নানা উন্নয়নের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গেল ১৪ বছরে কোস্ট গার্ডের বহরে যুক্ত হয়েছে ১৫৪টি আধুনিক নৌযান। ভবিষ্যতে এর দায়িত্ব আরও বাড়বে। সেদিকে লক্ষ্য রেখে বিশ্বমানের করে গড়ে তোলা হচ্ছে কোস্টগার্ডকে। ২০৪১ সালের মধ্যে কোস্টগার্ড হবে নিজস্ব জনবলে স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি স্মার্ট বাহিনী।

বুধবার (২১ জুন) সকালে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের জাহাজ কমিশনিং অনুষ্ঠানে সরকারপ্রধান এ কথা বলেন। গণভবন থেকে চট্টগ্রাম বিসিজি পতেঙ্গা বার্থের অনুষ্ঠানস্থলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর যারা ক্ষমতায় এসেছিল, তারা সমুদ্রসীমায় আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার কোনো উদ্যোগ নেয়নি। আমাদের উপকূল অঞ্চলে যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা দরকার, তার জন্য ১৯৯১ সালে আমরা বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় একটি বিল আনার জন্য সংসদে প্রস্তাব করেছিলাম। তখন সরকারে ছিলেন খালেদা জিয়া। আমাদের এই প্রস্তাবটা কণ্ঠভোটে নাকচ করে দেয়। তখন আমরা ডিভিশন ভোটের দাবি করি। ডিভিশন ভোটে আমরা জয়লাভ করি।Prime Ministerসরকারপ্রধান বলেন, বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা, দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, বাঙালি জাতির উন্নত জীবনধারা- এটাই ছিল বঙ্গবন্ধুর একমাত্র লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য নিয়ে তিনি সারাজীবন আন্দোলন-সংগ্রাম করেন। আমাদের রাজনৈতিক অধিকার, সামাজিক অধিকার, অর্থনৈতিক অধিকার, আমাদের সংস্কৃতির অধিকারের জন্য তার সংগ্রাম ছিল।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার অ্যাডমিরাল আশরাফুল হক চৌধুরী। এছাড়াও এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

২০৪১ সালের মধ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ স্মার্ট বাহিনী হবে কোস্টগার্ড

আপডেট সময় : ০৮:৩৯:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ জুন ২০২৩

কোস্টগার্ড বাহিনীর নানা উন্নয়নের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গেল ১৪ বছরে কোস্ট গার্ডের বহরে যুক্ত হয়েছে ১৫৪টি আধুনিক নৌযান। ভবিষ্যতে এর দায়িত্ব আরও বাড়বে। সেদিকে লক্ষ্য রেখে বিশ্বমানের করে গড়ে তোলা হচ্ছে কোস্টগার্ডকে। ২০৪১ সালের মধ্যে কোস্টগার্ড হবে নিজস্ব জনবলে স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি স্মার্ট বাহিনী।

বুধবার (২১ জুন) সকালে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের জাহাজ কমিশনিং অনুষ্ঠানে সরকারপ্রধান এ কথা বলেন। গণভবন থেকে চট্টগ্রাম বিসিজি পতেঙ্গা বার্থের অনুষ্ঠানস্থলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর যারা ক্ষমতায় এসেছিল, তারা সমুদ্রসীমায় আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার কোনো উদ্যোগ নেয়নি। আমাদের উপকূল অঞ্চলে যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা দরকার, তার জন্য ১৯৯১ সালে আমরা বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় একটি বিল আনার জন্য সংসদে প্রস্তাব করেছিলাম। তখন সরকারে ছিলেন খালেদা জিয়া। আমাদের এই প্রস্তাবটা কণ্ঠভোটে নাকচ করে দেয়। তখন আমরা ডিভিশন ভোটের দাবি করি। ডিভিশন ভোটে আমরা জয়লাভ করি।Prime Ministerসরকারপ্রধান বলেন, বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা, দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, বাঙালি জাতির উন্নত জীবনধারা- এটাই ছিল বঙ্গবন্ধুর একমাত্র লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য নিয়ে তিনি সারাজীবন আন্দোলন-সংগ্রাম করেন। আমাদের রাজনৈতিক অধিকার, সামাজিক অধিকার, অর্থনৈতিক অধিকার, আমাদের সংস্কৃতির অধিকারের জন্য তার সংগ্রাম ছিল।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার অ্যাডমিরাল আশরাফুল হক চৌধুরী। এছাড়াও এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।