ঢাকা ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

‘২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত হবে বাংলাদেশ’

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৫:২০:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪ ২১ বার পড়া হয়েছে

২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ তামাকমুক্ত হবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন। তিনি বলেন, সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। শুধুমাত্র তামাক আইন নয়, সব ক্ষেত্রেই সচেতনতা প্রয়োজন। সবাই প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতিজ্ঞা করব যে, ২০৪০ সালের মাঝে দেশকে তামাকমুক্ত করব।

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উপলক্ষে শুক্রবার (৩১ মে) স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেল আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, তামাকমুক্ত দেশ গড়তে আইন প্রয়োগে আরো কঠোর হবে সরকার। অনুষ্ঠানে, বাংলাদেশে তামাকজাত পণ্যের নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখায় ৯ ক্যাটাগরিতে ১০ প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়।

তিনি বলেন, আসন্ন বাজেটে তামাকজাত পণ্যের দাম ৫০ থেকে ৯০ শতাংশে আনার প্রস্তাব করা হয়েছে। সিনেমায় তামাকের দৃশ্য দেখানো বন্ধ করতে হবে। নেশা হয় এমন ফ্লেভার ও রং তামাকে ব্যবহার নিষিদ্ধ করতে হবে।

এছাড়া ২০৪০ সালে তামাকমুক্ত দেশ গড়ার অঙ্গিকার বাস্তবায়নে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

শুক্রবার (৩১ মে) বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘প্রোটেক্টিং চিলড্রেন ফ্রম টোব্যাকো ইন্ডাস্ট্রি ইন্টারফেয়ারেন্স’। বাংলাদেশে দিবসটি উদযাপিত হতে যাচ্ছে ‘তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ প্রতিহত করি, শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করি’ শিরোনামে।

সেমিনারে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সরকারি কর্মকর্তাসহ স্বেচ্ছাসেবক সংস্থা উপস্থিত ছিলেন। তামাক নিয়ে কাজ করে বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার পেয়েছেন সাংবাদিক, ইউএনওসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

‘২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত হবে বাংলাদেশ’

আপডেট সময় : ০৫:২০:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪

২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ তামাকমুক্ত হবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন। তিনি বলেন, সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। শুধুমাত্র তামাক আইন নয়, সব ক্ষেত্রেই সচেতনতা প্রয়োজন। সবাই প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতিজ্ঞা করব যে, ২০৪০ সালের মাঝে দেশকে তামাকমুক্ত করব।

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উপলক্ষে শুক্রবার (৩১ মে) স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেল আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, তামাকমুক্ত দেশ গড়তে আইন প্রয়োগে আরো কঠোর হবে সরকার। অনুষ্ঠানে, বাংলাদেশে তামাকজাত পণ্যের নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখায় ৯ ক্যাটাগরিতে ১০ প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়।

তিনি বলেন, আসন্ন বাজেটে তামাকজাত পণ্যের দাম ৫০ থেকে ৯০ শতাংশে আনার প্রস্তাব করা হয়েছে। সিনেমায় তামাকের দৃশ্য দেখানো বন্ধ করতে হবে। নেশা হয় এমন ফ্লেভার ও রং তামাকে ব্যবহার নিষিদ্ধ করতে হবে।

এছাড়া ২০৪০ সালে তামাকমুক্ত দেশ গড়ার অঙ্গিকার বাস্তবায়নে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

শুক্রবার (৩১ মে) বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘প্রোটেক্টিং চিলড্রেন ফ্রম টোব্যাকো ইন্ডাস্ট্রি ইন্টারফেয়ারেন্স’। বাংলাদেশে দিবসটি উদযাপিত হতে যাচ্ছে ‘তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ প্রতিহত করি, শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করি’ শিরোনামে।

সেমিনারে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সরকারি কর্মকর্তাসহ স্বেচ্ছাসেবক সংস্থা উপস্থিত ছিলেন। তামাক নিয়ে কাজ করে বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার পেয়েছেন সাংবাদিক, ইউএনওসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তারা।