ঢাকা ০৭:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ ফখরুলের

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:২১:৩৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ৭৯ বার পড়া হয়েছে

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মোসাব্বিরকে জেলগেইট থেকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একই সঙ্গে এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ তিনি।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিএনপির দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত ও সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মোসাব্বির দীর্ঘদিন কারাবন্দি থেকে আদালতের মাধ্যমে জামিন পাওয়ার পর ২ ফেব্রুয়ারি কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কারা ফটক থেকে সাদা পোশাকধারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী একটি মাইক্রোবাসে করে তুলে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও উদ্বেগ জানিয়েছেন ফখরুল বলেন, দীর্ঘদিন কারান্তরীণ থেকে আদালতের জামিন নিয়ে কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আবারও তাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন। অবৈধ, ফ্যাসিবাদী সরকার তাদের পতনের আন্দোলনকে দমনের জন্য এসব তরুণ ও সাহসী নেতাকর্মীকে তুলে নিয়ে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করছে।

তিনি বলেন, বিরোধী শক্তিকে নির্মূল করার জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে নির্মমভাবে অপব্যবহার করছে বর্তমান নিশিরাতের সরকার। বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা এখন বর্তমান শাসকগোষ্ঠীর তীব্র রোষানলে পড়ে নানাবিধ জুলুমের মধ্যে দিনাতিপাত করছে। আওয়ামী লীগ সরকার সিংহাসনচ্যুত হওয়ার আশঙ্কায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে গণতন্ত্রে বিশ্বাসী বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনসহ বিরোধী শক্তির ওপর নানা কায়দায় হয়রানী ও জুলুম চালাতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এরই ধারাবাহিকতায় জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বির কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আবারও তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে গেছে। তবে দমন-পীড়ন ও জুলুম চালিয়ে দেশের বৃহত্তম ও জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করা যাবে না, নেতাকর্মীদের আন্দোলন সংগ্রাম থেকে দূরে রাখা যাবে না।

ফখরুল বলেন, আজিজুর রহমান মুসাব্বিরের পরিবারের সদস্যরাও গভীর উৎকণ্ঠায় রয়েছে। অবিলম্বে আজিজুর রহমানকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ ফখরুলের

আপডেট সময় : ১০:২১:৩৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মোসাব্বিরকে জেলগেইট থেকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একই সঙ্গে এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ তিনি।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিএনপির দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত ও সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মোসাব্বির দীর্ঘদিন কারাবন্দি থেকে আদালতের মাধ্যমে জামিন পাওয়ার পর ২ ফেব্রুয়ারি কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কারা ফটক থেকে সাদা পোশাকধারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী একটি মাইক্রোবাসে করে তুলে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও উদ্বেগ জানিয়েছেন ফখরুল বলেন, দীর্ঘদিন কারান্তরীণ থেকে আদালতের জামিন নিয়ে কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আবারও তাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন। অবৈধ, ফ্যাসিবাদী সরকার তাদের পতনের আন্দোলনকে দমনের জন্য এসব তরুণ ও সাহসী নেতাকর্মীকে তুলে নিয়ে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করছে।

তিনি বলেন, বিরোধী শক্তিকে নির্মূল করার জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে নির্মমভাবে অপব্যবহার করছে বর্তমান নিশিরাতের সরকার। বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা এখন বর্তমান শাসকগোষ্ঠীর তীব্র রোষানলে পড়ে নানাবিধ জুলুমের মধ্যে দিনাতিপাত করছে। আওয়ামী লীগ সরকার সিংহাসনচ্যুত হওয়ার আশঙ্কায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে গণতন্ত্রে বিশ্বাসী বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনসহ বিরোধী শক্তির ওপর নানা কায়দায় হয়রানী ও জুলুম চালাতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এরই ধারাবাহিকতায় জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বির কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আবারও তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে গেছে। তবে দমন-পীড়ন ও জুলুম চালিয়ে দেশের বৃহত্তম ও জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করা যাবে না, নেতাকর্মীদের আন্দোলন সংগ্রাম থেকে দূরে রাখা যাবে না।

ফখরুল বলেন, আজিজুর রহমান মুসাব্বিরের পরিবারের সদস্যরাও গভীর উৎকণ্ঠায় রয়েছে। অবিলম্বে আজিজুর রহমানকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।