ঢাকা ১১:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিরাজগঞ্জে কেটে ফেলা হলো ভূমিহীনদের ৩ হাজার কলাগাছ

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৭:১৮:৪৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২২ ১০৭ বার পড়া হয়েছে

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে সরকারের লিজ দেওয়া পুকুরের চার পাশে ভূমিহীনদের লাগানো তিন হাজার কলাগাছ কেটে ফেলেছেন লিজ গ্রহীতারা। এ ঘটনার তদন্তপূর্বক বিচার দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত ভূমিহীনরা। খবর ঢাকা পোস্টের।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) ভোরে উপজেলার সোনাখাড়া ইউনিয়নের শীতলাবিল পুকুরে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

স্থানীয়রা জানান, সম্প্রতি ভূমিহীনরা পুকুরের চার পাড়ে প্রায় ৭ হাজার কলাগাছ লাগান। ইতোমধ্যে গাছে কলা এসেছে। অল্প দিনের মধ্যে কলা কাটা হবে। এরই মধ্যে পুকুরের লিজ গ্রহণকারী বাবু লাল কলাগাছগুলো কেটে ফেলার ষড়যন্ত্র করেন। সরকারি ৩২ বিঘা শীতলাবিল পুকুরটি স্থানীয় বাবু লাল, জিতু লাল ও দীপক লাল ইজারা নিয়ে মাছ চাষ করে আসছিলেন।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) ভোরে লিজ গ্রহণকারীরা লোকজন নিয়ে প্রায় তিন হাজারের মতো কলাগাছ কেটে ফেলেন। এ সময় ভূমিহীনরা বাধা দিলেও কোনো কাজ হয়নি। পরে ভূমিহীনরা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে রায়গঞ্জ থানা থেকে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়।

ভূমিহীন রজব আলী বলেন, শীতলা বিলের চার পাশে ১৫ জন ভূমিহীন সদস্য মিলে প্রায় ৭ হাজার কলাগাছ রোপণ করি। ইতোমধ্যে গাছে কলা এসেছে। ভোরে বাবু লাল তার লোকজন দিয়ে গাছ কেটে ফেলেন। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই।

পুকুরের লিজ গ্রহণকারী বাবু লাল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ভূমিহীনরা অবৈধভাবে গাছ লাগিয়েছে। যেহেতু আমরা লিজ নিয়ে পুকুরে মাছ চাষ করছি তাই আমরা পুকুরের চারপাশ পরিষ্কার
করেছি।

সোনাখাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা কামাল রিপন বলেন, সরকারি লিজ নেওয়া পুকুরের চার পাশে ভূমিহীনদের লাগানো কলাগাছ কাটা ঠিক হয়নি। এই কলাগাছ কাটায় দেশের অনেক ক্ষতি হয়েছে। এর সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক বিচার হওয়া দরকার।

রায়গঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসিফ মোহাম্মাদ সিদ্দিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ কাজ কোনো মানুষের হতে পারে না। শত্রুতা মানুষের সঙ্গে থাকতে পারে। কিন্তু এভাবে গাছ কেটে দেওয়া অমানুষের কাজ। এ ক্ষতি শুধু ভূমিহীনদের নয়, এলাকারও। ভূমিহীনরা অভিযোগ দিলে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সিরাজগঞ্জে কেটে ফেলা হলো ভূমিহীনদের ৩ হাজার কলাগাছ

আপডেট সময় : ০৭:১৮:৪৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২২

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে সরকারের লিজ দেওয়া পুকুরের চার পাশে ভূমিহীনদের লাগানো তিন হাজার কলাগাছ কেটে ফেলেছেন লিজ গ্রহীতারা। এ ঘটনার তদন্তপূর্বক বিচার দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত ভূমিহীনরা। খবর ঢাকা পোস্টের।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) ভোরে উপজেলার সোনাখাড়া ইউনিয়নের শীতলাবিল পুকুরে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

স্থানীয়রা জানান, সম্প্রতি ভূমিহীনরা পুকুরের চার পাড়ে প্রায় ৭ হাজার কলাগাছ লাগান। ইতোমধ্যে গাছে কলা এসেছে। অল্প দিনের মধ্যে কলা কাটা হবে। এরই মধ্যে পুকুরের লিজ গ্রহণকারী বাবু লাল কলাগাছগুলো কেটে ফেলার ষড়যন্ত্র করেন। সরকারি ৩২ বিঘা শীতলাবিল পুকুরটি স্থানীয় বাবু লাল, জিতু লাল ও দীপক লাল ইজারা নিয়ে মাছ চাষ করে আসছিলেন।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) ভোরে লিজ গ্রহণকারীরা লোকজন নিয়ে প্রায় তিন হাজারের মতো কলাগাছ কেটে ফেলেন। এ সময় ভূমিহীনরা বাধা দিলেও কোনো কাজ হয়নি। পরে ভূমিহীনরা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে রায়গঞ্জ থানা থেকে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়।

ভূমিহীন রজব আলী বলেন, শীতলা বিলের চার পাশে ১৫ জন ভূমিহীন সদস্য মিলে প্রায় ৭ হাজার কলাগাছ রোপণ করি। ইতোমধ্যে গাছে কলা এসেছে। ভোরে বাবু লাল তার লোকজন দিয়ে গাছ কেটে ফেলেন। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই।

পুকুরের লিজ গ্রহণকারী বাবু লাল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ভূমিহীনরা অবৈধভাবে গাছ লাগিয়েছে। যেহেতু আমরা লিজ নিয়ে পুকুরে মাছ চাষ করছি তাই আমরা পুকুরের চারপাশ পরিষ্কার
করেছি।

সোনাখাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা কামাল রিপন বলেন, সরকারি লিজ নেওয়া পুকুরের চার পাশে ভূমিহীনদের লাগানো কলাগাছ কাটা ঠিক হয়নি। এই কলাগাছ কাটায় দেশের অনেক ক্ষতি হয়েছে। এর সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক বিচার হওয়া দরকার।

রায়গঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসিফ মোহাম্মাদ সিদ্দিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ কাজ কোনো মানুষের হতে পারে না। শত্রুতা মানুষের সঙ্গে থাকতে পারে। কিন্তু এভাবে গাছ কেটে দেওয়া অমানুষের কাজ। এ ক্ষতি শুধু ভূমিহীনদের নয়, এলাকারও। ভূমিহীনরা অভিযোগ দিলে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।