ঢাকা ০৪:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাকিবের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে বাংলাদেশের স্বস্তির জয়

ক্রীড়া ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০১:৫০:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মার্চ ২০২৩ ৯৫ বার পড়া হয়েছে

অবশেষে জয়ের দেখা পেল তামিম ইকবালের দল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডেতে ৫০ রানের জয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়িয়েছে টাইগাররা।

২৪৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালো শুরু করেছিলেন দুই ইংলিশ ওপেনার জেসন রয় এবং ফিল সল্ট। তাদের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে বিনা উইকেটে দলীয় হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছিল ইংল্যান্ড। এরপরই ছন্দপতন।

৫৫ রানের মধ্যে ইংলিশদের তিন উইকেট তুলে নিয়ে ভালোভাবেই ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। সাকিব ২টি এবং এবাদত এক উইকেট তুলে নেন ১ রানের ব্যবধানে। এরপর স্যাম কারান এবং জেমস ভিন্সের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় ইংল্যান্ড। তবে কারানকে ২৩ রানে ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন মিরাজ।

কারানের পর বাটলারের সঙ্গেও জমে যাচ্ছিল জেমস ভিন্সের জুটি। তবে সেটা করতে দিলেন না সাকিব। এই স্পিনারের আর্ম ডেলিভারিতে ডিফেন্স করতে গিয়ে উইকেট কিপারের হাতে ধরা পড়েন ভিন্স। সাজঘরে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৪৪ বলে ৩৮ রান।

পরের ওভারেই বোলিংয়ে এসে মঈন আলীকে ফিরিয়ে দেন এবাদত হোসেন। লেগ স্টাম্পের ওপর করা দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে এই অলরাউন্ডারকে সরাসরি বোল্ড করেন এই টাইগার পেসার। ২ রানের বেশি করতে পারেননি মঈন।

১৩০ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারানোর পর ক্রিস ওকসকে সঙ্গে নিয়ে দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করছিলেন জস বাটলার। তবে ২৬ রানে কাটা পড়েছেন ইংলিশ অধিনায়ক। তাইজুলের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লে রিভিউ নেন বাটলার, তবে তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি তার।

এরপর ওকস এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যাটিং করেছেন। তবে সেটা কেবলই ব্যবধান কমিয়েছে। লেজের সারির ব্যাটাররা খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। আদিল রশিদ-রেহান আহমেদরা দ্রুতি সাজঘরে ফিরেছেন। এই দুইজনের কেউই দুই অঙ ছুঁতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ৪৩ ওভার ১ বলে ১৯৬ রান তুলে অলআউট ইংল্যান্ড।

আক্রমণে ফিরে প্রথম বলেই ইংল্যান্ডের ইনিংসের সমাপ্তি টেনে দেন মুস্তাফিজ। নিলেন ক্রিস ওকসের চমৎকার একটি ফিরতি ক্যাচ।

মিড-অন দিয়ে ওড়াতে চেয়েছিলেন ব্যাটসম্যান। একটু আগেভাগেই শট খেলে ফেলায় সেদিক যায়নি। প্রথম চেষ্টায় ধরতে পারেননি, দ্বিতীয় চেষ্টায় ডানহাতে জমান মুস্তাফিজ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সাকিবের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে বাংলাদেশের স্বস্তির জয়

আপডেট সময় : ০১:৫০:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মার্চ ২০২৩

অবশেষে জয়ের দেখা পেল তামিম ইকবালের দল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডেতে ৫০ রানের জয়ে হোয়াইটওয়াশ এড়িয়েছে টাইগাররা।

২৪৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালো শুরু করেছিলেন দুই ইংলিশ ওপেনার জেসন রয় এবং ফিল সল্ট। তাদের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে বিনা উইকেটে দলীয় হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছিল ইংল্যান্ড। এরপরই ছন্দপতন।

৫৫ রানের মধ্যে ইংলিশদের তিন উইকেট তুলে নিয়ে ভালোভাবেই ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। সাকিব ২টি এবং এবাদত এক উইকেট তুলে নেন ১ রানের ব্যবধানে। এরপর স্যাম কারান এবং জেমস ভিন্সের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় ইংল্যান্ড। তবে কারানকে ২৩ রানে ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন মিরাজ।

কারানের পর বাটলারের সঙ্গেও জমে যাচ্ছিল জেমস ভিন্সের জুটি। তবে সেটা করতে দিলেন না সাকিব। এই স্পিনারের আর্ম ডেলিভারিতে ডিফেন্স করতে গিয়ে উইকেট কিপারের হাতে ধরা পড়েন ভিন্স। সাজঘরে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৪৪ বলে ৩৮ রান।

পরের ওভারেই বোলিংয়ে এসে মঈন আলীকে ফিরিয়ে দেন এবাদত হোসেন। লেগ স্টাম্পের ওপর করা দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে এই অলরাউন্ডারকে সরাসরি বোল্ড করেন এই টাইগার পেসার। ২ রানের বেশি করতে পারেননি মঈন।

১৩০ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারানোর পর ক্রিস ওকসকে সঙ্গে নিয়ে দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করছিলেন জস বাটলার। তবে ২৬ রানে কাটা পড়েছেন ইংলিশ অধিনায়ক। তাইজুলের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লে রিভিউ নেন বাটলার, তবে তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি তার।

এরপর ওকস এক প্রান্ত আগলে রেখে ব্যাটিং করেছেন। তবে সেটা কেবলই ব্যবধান কমিয়েছে। লেজের সারির ব্যাটাররা খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। আদিল রশিদ-রেহান আহমেদরা দ্রুতি সাজঘরে ফিরেছেন। এই দুইজনের কেউই দুই অঙ ছুঁতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ৪৩ ওভার ১ বলে ১৯৬ রান তুলে অলআউট ইংল্যান্ড।

আক্রমণে ফিরে প্রথম বলেই ইংল্যান্ডের ইনিংসের সমাপ্তি টেনে দেন মুস্তাফিজ। নিলেন ক্রিস ওকসের চমৎকার একটি ফিরতি ক্যাচ।

মিড-অন দিয়ে ওড়াতে চেয়েছিলেন ব্যাটসম্যান। একটু আগেভাগেই শট খেলে ফেলায় সেদিক যায়নি। প্রথম চেষ্টায় ধরতে পারেননি, দ্বিতীয় চেষ্টায় ডানহাতে জমান মুস্তাফিজ।