ঢাকা ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সর্বনিম্ন মজুরি ২৩ হাজার টাকা দাবি গার্মেন্ট শ্রমিকদের

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৯:০০:৫৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুলাই ২০২৩ ৭৮ বার পড়া হয়েছে

গার্মেন্ট শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ২৩ হাজার টাকা নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন। শুক্রবার (১৪ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানান।

ফেডারেশনের সভাপতি নাজমা আক্তারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঊর্মি আক্তার, প্রচার সম্পাদক ইয়াহিয়া খান, এমজি ওয়ার্কাস ফোরামের চেয়ারম্যান লিলি বেগম প্রমুখ।

এ সময় সভাপতি নাজমা আক্তার বলেন, পোশাকশিল্প দেশের সর্ববৃহৎ রপ্তানি শিল্প। কিন্তু তাতে শ্রমিকরা অত্যন্ত স্বল্পমূল্যে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। বাংলাদেশ শ্রমআইন ২০০৬-এর সঠিক বাস্তবায়ন না থাকায় শ্রমিকদের অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। বর্তমানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েই চলেছে ফলে শ্রমিকদের জীবনযাত্রা চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। তাই আমাদের দাবি শ্রমিকদের মৌলিক চাহিদা পূরণ ও জীবনমানের উন্নয়নের জন্য অবিলম্বে ২৩ হাজার টাকা মজুরি নির্ধারণ করা হোক।

সাধারণ সম্পাদক খাদিজা আক্তার বলেন, বর্তমানে প্রতিনিয়ত যেভাবে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেক্ষেত্রে আট হাজার টাকা মজুরি দিয়ে জীবনযাপন করা অসম্ভব। শ্রমিকদের জীবনমানের কথা বিবেচনা করে ২৩ হাজার টাকা মজুরি নির্ধারণ করা হোক।

বিগত সরকার ঘোষিত পোশাকশিল্পে শ্রমিকদের জন্য ২০১৩ সালের নভেম্বরে নিম্নতম মজুরি পাঁচ হাজার ৩০০ টাকা ও ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে নিম্নতম মজুরি আট হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়। যদিও শ্রমিক ও ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ২০১৩ সালে ১৬ হাজার টাকা ও ২০১৮ সালে ২০ হাজার টাকা দাবি করা হয়েছিল। তাতে শ্রমিকরা দাবি করেছিল, এই মজুরিতে জীবনযাত্রার খরচ মেটানো কষ্টকর।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সর্বনিম্ন মজুরি ২৩ হাজার টাকা দাবি গার্মেন্ট শ্রমিকদের

আপডেট সময় : ০৯:০০:৫৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুলাই ২০২৩

গার্মেন্ট শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ২৩ হাজার টাকা নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন। শুক্রবার (১৪ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানান।

ফেডারেশনের সভাপতি নাজমা আক্তারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঊর্মি আক্তার, প্রচার সম্পাদক ইয়াহিয়া খান, এমজি ওয়ার্কাস ফোরামের চেয়ারম্যান লিলি বেগম প্রমুখ।

এ সময় সভাপতি নাজমা আক্তার বলেন, পোশাকশিল্প দেশের সর্ববৃহৎ রপ্তানি শিল্প। কিন্তু তাতে শ্রমিকরা অত্যন্ত স্বল্পমূল্যে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। বাংলাদেশ শ্রমআইন ২০০৬-এর সঠিক বাস্তবায়ন না থাকায় শ্রমিকদের অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। বর্তমানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েই চলেছে ফলে শ্রমিকদের জীবনযাত্রা চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। তাই আমাদের দাবি শ্রমিকদের মৌলিক চাহিদা পূরণ ও জীবনমানের উন্নয়নের জন্য অবিলম্বে ২৩ হাজার টাকা মজুরি নির্ধারণ করা হোক।

সাধারণ সম্পাদক খাদিজা আক্তার বলেন, বর্তমানে প্রতিনিয়ত যেভাবে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেক্ষেত্রে আট হাজার টাকা মজুরি দিয়ে জীবনযাপন করা অসম্ভব। শ্রমিকদের জীবনমানের কথা বিবেচনা করে ২৩ হাজার টাকা মজুরি নির্ধারণ করা হোক।

বিগত সরকার ঘোষিত পোশাকশিল্পে শ্রমিকদের জন্য ২০১৩ সালের নভেম্বরে নিম্নতম মজুরি পাঁচ হাজার ৩০০ টাকা ও ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে নিম্নতম মজুরি আট হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়। যদিও শ্রমিক ও ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ২০১৩ সালে ১৬ হাজার টাকা ও ২০১৮ সালে ২০ হাজার টাকা দাবি করা হয়েছিল। তাতে শ্রমিকরা দাবি করেছিল, এই মজুরিতে জীবনযাত্রার খরচ মেটানো কষ্টকর।