ঢাকা ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে: জাহিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৩:৩৪:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩ ৮৬ বার পড়া হয়েছে

এই সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলমান থাকবে। এবারের আন্দোলন সরকার পতনের আন্দোলন। এবারের আন্দোলন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন। এবারের আন্দোলন দেশবাসীকে এই স্বৈরাচার রাতের অন্ধকারের সরকারের কবল থেকে রক্ষার আন্দোলন। শনিবার বিকেল ৪টায় রাজশাহী ঐতিহাসিক ভূবন মোহন পার্কে রাজশাহী মহানগর বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে আওয়ামী সরকারের সর্বগ্রাসী দুর্নীতির প্রতিবাদে বিএনপি চেয়ারপার্সন আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি এবং ঘোষিত ১০ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে রাজশাহী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা:এ জেড এম জাহিদ হোসেন এই কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, এই সরকার বার লক্ষ কোটি টাকা দূর্নীতির মাধ্যমে লোপাট করে বিদেশে পাচার করেছে। দুবাইতে বেগম পাড়া তৈরী করেছে। কলকারখানা ধ্বংস করেছে। আজকে এই সমাবেশ ভোটচোরদের বিতারিত করার সমাবেশ। দেশের মানুষ আজ নিত্যপন্যের উর্ধ্বগতির ফলে দিশে হারা হয়ে পড়েছে। আজ তারা অর্থের অভাবে চাল, ডাল ও তেলসহ অন্যান্য ভোগ্যপন্য ক্রয় করতে পারছেনা। কিন্তু এই সরকার ১০টাকা কেজি দরে চাল দেবে বলে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। ঘরে ঘরে চাকরী দেবে বলে আশা দিয়েছিলো। অথচ কাউকে এই সরকার চাকরী দিতে পারেনি। বিদ্যুতের উন্নয়ন বলে এই সরকার মিথ্যাচার করছে। প্রতিদিন একাধিকবার লোডশেডিং হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন. রুপপুর পারমানিক প্ল্যান তৈরী করতে হাজার হাজার কোটি লোপাট করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি বলেন, এই অবৈধ সরকার সর্বক্ষেত্রে ভোট চুরি করছে। সম্প্রতি ঢাকার সুপ্রিম কোর্ট বার এর নির্বাচনে ভোট চুরি করে সরকারী দলের প্যানলেকে বিজয়ী করেছে। এই সরকার যখন ক্ষমতায় আসে দেশে তখন দূর্ভিক্ষ নামে। মানুষের স্বাধীনতা হরণ করেন। মতপ্রকাশের মাধ্যমগুলো ধ্বংস করে দেয়। বর্তমানে অনেক গণমাধ্যম বন্ধ করে দিয়েছে। এই স্বৈরাচার সরকারকে আর ক্ষমতায় থাকতে দেয়া হবেনা। রাজশাহীর মত সকল জেলা, মহানগর, বিভাগ ও থানায় আন্দোলন শুরু হয়ে গেছে। এই আন্দোলনের জোয়ারে এই ফ্যাসিস্ট সরকারকে ভাসিয়ে দিয়ে দেশে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠা করে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হবে বলে উল্লেখ করেন। সেইসাথে সকল আন্দোলনে সবাইকে রাজপথে থাকার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন প্রধান অতিথি।

রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এরশাদ আলী এশার সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, রাসিক সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুল, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও রাসিক সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রান ও পুর্নবাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শফিকুল হক মিলন ও বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সহ-সম্পাদক প্রকৌশলী শাহ্ খালেদ হাসান চৌধুরী।

রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মামুন-অর-রশিদ এর সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র সদস্য দেবাশিষ রায় মধু, জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ^নাথ সরকার, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক নজরুল হুদা, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন, ওয়ালিউল হক রানা, আসলাম সরকার, জয়নাল আবেদিন শিবলী, শফিকুল ইসলাম শাফিক ও বজলুল হক মন্টু, জেলা বিএনপি’র সদস্য রায়হানুল আলম রায়হান, গোলাম মোস্তফা মামুন ও শেখ মকবুল হোসেন।

এছাড়াও বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম মিলু, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাসুদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, মতিহার থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি আনসার আলী, মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও রাজশাহী মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগর যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক আব্দুল কাদের বকুল, মহানগর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শরিফুল ইসলাম, সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রবি, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুুদুর রহমান সজন ও সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল সরকার ডিকো।

আরো উপস্থিত ছিলেন সেচ্ছাসেবক দল রাজশাহী মহানগর সাবেক সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, বর্তমান আহ্বায়ক মীর তারেক খালেদ ও সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান জনি, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বাক মাসুুদুর রহমান লিটন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আরফিন কনক, কৃষকদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক আল-আমিন সরকার টিটু, জেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক শফিকুল আলম সমাপ্ত, সদস্য সচিব আকুল হোসেন মিঠু, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক আরিফুল শেখ বনি, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা রোমেনা হোসেন, মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসমাউল হুসনা, জরিনা , রোজিনা, ডেইজ, লাবনী, গুলসান আরা মমতা, ছাত্রদল রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুর্তজা ফামিন ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জাকি, রাবি ছাত্রদলের আহ্বায়ক সুলতান আহমেদ রাহি ও মহানগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার মাকসুদুর রহমান সৌরভসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে: জাহিদ

আপডেট সময় : ০৩:৩৪:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩

এই সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলমান থাকবে। এবারের আন্দোলন সরকার পতনের আন্দোলন। এবারের আন্দোলন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন। এবারের আন্দোলন দেশবাসীকে এই স্বৈরাচার রাতের অন্ধকারের সরকারের কবল থেকে রক্ষার আন্দোলন। শনিবার বিকেল ৪টায় রাজশাহী ঐতিহাসিক ভূবন মোহন পার্কে রাজশাহী মহানগর বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে আওয়ামী সরকারের সর্বগ্রাসী দুর্নীতির প্রতিবাদে বিএনপি চেয়ারপার্সন আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি এবং ঘোষিত ১০ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে রাজশাহী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা:এ জেড এম জাহিদ হোসেন এই কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, এই সরকার বার লক্ষ কোটি টাকা দূর্নীতির মাধ্যমে লোপাট করে বিদেশে পাচার করেছে। দুবাইতে বেগম পাড়া তৈরী করেছে। কলকারখানা ধ্বংস করেছে। আজকে এই সমাবেশ ভোটচোরদের বিতারিত করার সমাবেশ। দেশের মানুষ আজ নিত্যপন্যের উর্ধ্বগতির ফলে দিশে হারা হয়ে পড়েছে। আজ তারা অর্থের অভাবে চাল, ডাল ও তেলসহ অন্যান্য ভোগ্যপন্য ক্রয় করতে পারছেনা। কিন্তু এই সরকার ১০টাকা কেজি দরে চাল দেবে বলে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। ঘরে ঘরে চাকরী দেবে বলে আশা দিয়েছিলো। অথচ কাউকে এই সরকার চাকরী দিতে পারেনি। বিদ্যুতের উন্নয়ন বলে এই সরকার মিথ্যাচার করছে। প্রতিদিন একাধিকবার লোডশেডিং হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন. রুপপুর পারমানিক প্ল্যান তৈরী করতে হাজার হাজার কোটি লোপাট করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি বলেন, এই অবৈধ সরকার সর্বক্ষেত্রে ভোট চুরি করছে। সম্প্রতি ঢাকার সুপ্রিম কোর্ট বার এর নির্বাচনে ভোট চুরি করে সরকারী দলের প্যানলেকে বিজয়ী করেছে। এই সরকার যখন ক্ষমতায় আসে দেশে তখন দূর্ভিক্ষ নামে। মানুষের স্বাধীনতা হরণ করেন। মতপ্রকাশের মাধ্যমগুলো ধ্বংস করে দেয়। বর্তমানে অনেক গণমাধ্যম বন্ধ করে দিয়েছে। এই স্বৈরাচার সরকারকে আর ক্ষমতায় থাকতে দেয়া হবেনা। রাজশাহীর মত সকল জেলা, মহানগর, বিভাগ ও থানায় আন্দোলন শুরু হয়ে গেছে। এই আন্দোলনের জোয়ারে এই ফ্যাসিস্ট সরকারকে ভাসিয়ে দিয়ে দেশে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠা করে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হবে বলে উল্লেখ করেন। সেইসাথে সকল আন্দোলনে সবাইকে রাজপথে থাকার আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন প্রধান অতিথি।

রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এরশাদ আলী এশার সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, রাসিক সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুল, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও রাসিক সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রান ও পুর্নবাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শফিকুল হক মিলন ও বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সহ-সম্পাদক প্রকৌশলী শাহ্ খালেদ হাসান চৌধুরী।

রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মামুন-অর-রশিদ এর সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র সদস্য দেবাশিষ রায় মধু, জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ^নাথ সরকার, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক নজরুল হুদা, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন, ওয়ালিউল হক রানা, আসলাম সরকার, জয়নাল আবেদিন শিবলী, শফিকুল ইসলাম শাফিক ও বজলুল হক মন্টু, জেলা বিএনপি’র সদস্য রায়হানুল আলম রায়হান, গোলাম মোস্তফা মামুন ও শেখ মকবুল হোসেন।

এছাড়াও বোয়ালিয়া থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম মিলু, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপি’র সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাসুদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, মতিহার থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি আনসার আলী, মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও রাজশাহী মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগর যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক আব্দুল কাদের বকুল, মহানগর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শরিফুল ইসলাম, সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রবি, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুুদুর রহমান সজন ও সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল সরকার ডিকো।

আরো উপস্থিত ছিলেন সেচ্ছাসেবক দল রাজশাহী মহানগর সাবেক সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, বর্তমান আহ্বায়ক মীর তারেক খালেদ ও সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান জনি, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বাক মাসুুদুর রহমান লিটন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আরফিন কনক, কৃষকদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক আল-আমিন সরকার টিটু, জেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক শফিকুল আলম সমাপ্ত, সদস্য সচিব আকুল হোসেন মিঠু, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক আরিফুল শেখ বনি, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা রোমেনা হোসেন, মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসমাউল হুসনা, জরিনা , রোজিনা, ডেইজ, লাবনী, গুলসান আরা মমতা, ছাত্রদল রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুর্তজা ফামিন ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জাকি, রাবি ছাত্রদলের আহ্বায়ক সুলতান আহমেদ রাহি ও মহানগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার মাকসুদুর রহমান সৌরভসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।