ঢাকা ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাকিব খানের মামলায় জামিন পেলেন প্রযোজক রহমত উল্লাহ

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:১৪:৩৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৩ ৬৭ বার পড়া হয়েছে

চাঁদা দাবি ও হত্যার হুমকির অভিযোগে চিত্রনায়ক শাকিব খানের করা মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন প্রযোজক রহমত উল্লাহ।
ঢাকার মহানগর হাকিম আরাফাতুল রাকিবের আদালতে বুধবার আত্মসমর্পণ করে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিনের আবেদন করেন রহমত। আদালত শুনানি শেষে তাকে জামিন দেয়। শুনানিতে শাকিব খান নিজে অনুপস্থিত ছিলেন।

মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় তা বদলির আদেশ দেয় আদালত।

গত ২৩ মার্চ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আরফাতুল রাকিবের আদালতে চাঁদা দাবি ও হত্যার হুমকির অভিযোগে প্রযোজক রহমত উল্লাহর নামে মামলা করেন শাকিব খান। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আসামি রহমত উল্লাহকে ২৬ এপ্রিল আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেছিল।

২৭ মার্চ টেলিভিশনে মিথ্যা ও মানহানিকর বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে প্রযোজক রহমত উল্লাহর নামে আরও একটি মামলা করেন শাকিব খান।

এর আগে ১৫ মার্চ বিকেলে চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী সমিতি ও ক্যামেরাম্যান সমিতি বরাবর শাকিবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন নির্মিতব্য ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ সিনেমার প্রযোজক রহমত উল্লাহ।

তার লিখিত অভিযোগে বলা হয়, এই প্রযোজক ২০১৭ সালে তার সিনেমার শুটিংয়ের সময় শাকিব খানের মাধ্যমে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।

শুটিংয়ের সময় শাকিবের বিরুদ্ধে এক সহপ্রযোজককে ধর্ষণের অভিযোগও তোলেন তিনি।

প্রযোজক রহমত উল্লাহর সঙ্গে ১৬ মার্চ বৈঠক করেন শাকিব খান। এ বৈঠকের উদ্যোগ নেন শাকিবের সাবেক স্ত্রী নায়িকা অপু বিশ্বাস, তবে ওই বৈঠকে শেষ পর্যন্ত কোনো সমাধান আসেনি।

অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী বাঙালি প্রযোজক রহমত উল্লাহর অভিযোগে বলা হয়, একবার শাকিব খান তাদের এক নারী সহপ্রযোজককে কৌশলে ধর্ষণ করেন। ওই নারীকে শাকিব অত্যন্ত পৈশাচিকভাবে নির্যাতন করেন। গুরুতর জখমসহ রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছিল।

এতে বলা হয়, নির্যাতনের শিকার ওই নারী তখন এই ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়ান পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। তিনি নিজেও একজন বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত নারী। পরবর্তী সময়ে ২০১৮ সালে আবার অস্ট্রেলিয়ায় এলে শাকিব ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন, তবে সেই নারী প্রকাশ্যে মুখ খুলতে রাজি না হওয়ায় শাকিব সে সময় ছাড়া পেয়ে যান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

শাকিব খানের মামলায় জামিন পেলেন প্রযোজক রহমত উল্লাহ

আপডেট সময় : ১০:১৪:৩৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৩

চাঁদা দাবি ও হত্যার হুমকির অভিযোগে চিত্রনায়ক শাকিব খানের করা মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন প্রযোজক রহমত উল্লাহ।
ঢাকার মহানগর হাকিম আরাফাতুল রাকিবের আদালতে বুধবার আত্মসমর্পণ করে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিনের আবেদন করেন রহমত। আদালত শুনানি শেষে তাকে জামিন দেয়। শুনানিতে শাকিব খান নিজে অনুপস্থিত ছিলেন।

মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় তা বদলির আদেশ দেয় আদালত।

গত ২৩ মার্চ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আরফাতুল রাকিবের আদালতে চাঁদা দাবি ও হত্যার হুমকির অভিযোগে প্রযোজক রহমত উল্লাহর নামে মামলা করেন শাকিব খান। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আসামি রহমত উল্লাহকে ২৬ এপ্রিল আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেছিল।

২৭ মার্চ টেলিভিশনে মিথ্যা ও মানহানিকর বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে প্রযোজক রহমত উল্লাহর নামে আরও একটি মামলা করেন শাকিব খান।

এর আগে ১৫ মার্চ বিকেলে চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী সমিতি ও ক্যামেরাম্যান সমিতি বরাবর শাকিবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন নির্মিতব্য ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ সিনেমার প্রযোজক রহমত উল্লাহ।

তার লিখিত অভিযোগে বলা হয়, এই প্রযোজক ২০১৭ সালে তার সিনেমার শুটিংয়ের সময় শাকিব খানের মাধ্যমে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।

শুটিংয়ের সময় শাকিবের বিরুদ্ধে এক সহপ্রযোজককে ধর্ষণের অভিযোগও তোলেন তিনি।

প্রযোজক রহমত উল্লাহর সঙ্গে ১৬ মার্চ বৈঠক করেন শাকিব খান। এ বৈঠকের উদ্যোগ নেন শাকিবের সাবেক স্ত্রী নায়িকা অপু বিশ্বাস, তবে ওই বৈঠকে শেষ পর্যন্ত কোনো সমাধান আসেনি।

অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী বাঙালি প্রযোজক রহমত উল্লাহর অভিযোগে বলা হয়, একবার শাকিব খান তাদের এক নারী সহপ্রযোজককে কৌশলে ধর্ষণ করেন। ওই নারীকে শাকিব অত্যন্ত পৈশাচিকভাবে নির্যাতন করেন। গুরুতর জখমসহ রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছিল।

এতে বলা হয়, নির্যাতনের শিকার ওই নারী তখন এই ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়ান পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। তিনি নিজেও একজন বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত নারী। পরবর্তী সময়ে ২০১৮ সালে আবার অস্ট্রেলিয়ায় এলে শাকিব ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন, তবে সেই নারী প্রকাশ্যে মুখ খুলতে রাজি না হওয়ায় শাকিব সে সময় ছাড়া পেয়ে যান।