ঢাকা ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

লিখিত সমর্থন নীতীশ-নাইডুর, মোদির শপথ ৮ জুন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০১:০০:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪ ১৯ বার পড়া হয়েছে

টানা তৃতীয়বারের মতো দিল্লির মসনদে বসতে যাচ্ছেন ভারতের সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার দল বিজেপি ১৮তম লোকসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় এককভাবে সরকার গঠন করতে পারছে না। তাই সরকার গঠনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের (এনডিএ) সমর্থন দরকার। এর মধ্যে জনতা দল ইউনাইটেড (জেডিইউ) নেতা নীতীশ কুমার এবং তেলেগু দেশম পার্টির (টিডিপি) চন্দ্রবাবু নাইডুর সমর্থন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা চললেও অবশেষে মোদিকে লিখিত সমর্থন দেন তারা। ফলে আগামী শনিবার (৮ জুন) শপথ গ্রহণ করতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি।

বুধবার (৫ জুন) বিকেলে নির্বাচনের ফলাফল পর্যালোচনা করতে নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে এনডিএ নেতৃবৃন্দ বৈঠক করেন বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

সূত্রের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট বুধবার (৫ জুন) রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে দেখা করবে এবং নতুন সরকার গঠনের দাবি করবে।

রাষ্ট্রপতি মুর্মুর সঙ্গে বৈঠকে এনডিএ জোটের সিনিয়র এবং শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন। এসময় মোদি, অমিত শাহ, জেপি নাড্ডাসহ টিডিপি প্রধান চন্দ্রবাবু নাইডু এবং জেডিইউর নীতীশ কুমারও থাকবেন।

লোকসভা নির্বাচনে অন্ধ্র প্রদেশে ১৬ আসনে জয় পেয়েছে চন্দ্রবাবু নাইডুর দল টিডিপি এবং বিহারে ১২ আসন জিতেছে নীতীশ কুমারের জেডিইউ। এই ২৮টি আসন নরেন্দ্র মোদির জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এই দুইটি দল যদি জোট ত্যাগ করে ইন্ডিয়া জোটে যোগ দিত সেক্ষেত্রে তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠনে ব্যর্থ হতো বিজেপি।

এই পরিস্থিতিতে এনডিএ জোটে তাদের গুরুত্ব সম্পর্কে ভালোভাবে অবগত নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি। তাই, মঙ্গলবার (৪ জুন) রাতে তার বিজয় ভাষণে তিনি টিডিপি এবং জেডিইউ কর্তাদের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

লিখিত সমর্থন নীতীশ-নাইডুর, মোদির শপথ ৮ জুন

আপডেট সময় : ০১:০০:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

টানা তৃতীয়বারের মতো দিল্লির মসনদে বসতে যাচ্ছেন ভারতের সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার দল বিজেপি ১৮তম লোকসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় এককভাবে সরকার গঠন করতে পারছে না। তাই সরকার গঠনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের (এনডিএ) সমর্থন দরকার। এর মধ্যে জনতা দল ইউনাইটেড (জেডিইউ) নেতা নীতীশ কুমার এবং তেলেগু দেশম পার্টির (টিডিপি) চন্দ্রবাবু নাইডুর সমর্থন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা চললেও অবশেষে মোদিকে লিখিত সমর্থন দেন তারা। ফলে আগামী শনিবার (৮ জুন) শপথ গ্রহণ করতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি।

বুধবার (৫ জুন) বিকেলে নির্বাচনের ফলাফল পর্যালোচনা করতে নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে এনডিএ নেতৃবৃন্দ বৈঠক করেন বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

সূত্রের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট বুধবার (৫ জুন) রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে দেখা করবে এবং নতুন সরকার গঠনের দাবি করবে।

রাষ্ট্রপতি মুর্মুর সঙ্গে বৈঠকে এনডিএ জোটের সিনিয়র এবং শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন। এসময় মোদি, অমিত শাহ, জেপি নাড্ডাসহ টিডিপি প্রধান চন্দ্রবাবু নাইডু এবং জেডিইউর নীতীশ কুমারও থাকবেন।

লোকসভা নির্বাচনে অন্ধ্র প্রদেশে ১৬ আসনে জয় পেয়েছে চন্দ্রবাবু নাইডুর দল টিডিপি এবং বিহারে ১২ আসন জিতেছে নীতীশ কুমারের জেডিইউ। এই ২৮টি আসন নরেন্দ্র মোদির জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এই দুইটি দল যদি জোট ত্যাগ করে ইন্ডিয়া জোটে যোগ দিত সেক্ষেত্রে তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠনে ব্যর্থ হতো বিজেপি।

এই পরিস্থিতিতে এনডিএ জোটে তাদের গুরুত্ব সম্পর্কে ভালোভাবে অবগত নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি। তাই, মঙ্গলবার (৪ জুন) রাতে তার বিজয় ভাষণে তিনি টিডিপি এবং জেডিইউ কর্তাদের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেছিলেন।