ঢাকা ১২:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সেচ পাম্প চালু রাখার নির্দেশনা

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৭:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ১১৬ বার পড়া হয়েছে

আসন্ন সেচ মৌসুমে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সেচ পাম্প চালু রাখার নির্দেশনাসহ বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিগত এক যুগে বিদ্যুৎ খাতে সাফল্য অর্জিত হয়েছে। তবে চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন থাকা সত্ত্বেও বৈশ্বিক জ্বালানি সংকটের কারণে বাংলাদেশকে নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। আসন্ন সেচ মৌসুমে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে কয়েকটি নির্দেশনা প্রদান করা হচ্ছে। সেগুলো হলো-

১. রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সেচ পাম্প চালু রাখা।

২. দুর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে হকিং বা অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে বিরত থাকা।

৩. নিম্নহারে বিদ্যুৎ বিল সুবিধা প্রাপ্তির লক্ষ্যে দোকান, শপিং মল, পেট্রোল পাম্প ও সিএনজি স্টেশনে অতিরিক্ত বাতি ব্যবহারে বিরত থাকা।

৪. বেআইনিভাবে ইজিবাইক ও মোটরচালিত রিকশার ব্যাটারি চার্জ থেকে বিরত থাকা।

৫. সাশ্রয়ী ব্যবহার নিশ্চিতের লক্ষ্যে ওয়েট অ্যান্ড ড্রাই পদ্ধতিতে সেচ কাজ সম্পাদন করা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সেচ পাম্প চালু রাখার নির্দেশনা

আপডেট সময় : ০৪:৩৭:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

আসন্ন সেচ মৌসুমে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সেচ পাম্প চালু রাখার নির্দেশনাসহ বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিগত এক যুগে বিদ্যুৎ খাতে সাফল্য অর্জিত হয়েছে। তবে চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন থাকা সত্ত্বেও বৈশ্বিক জ্বালানি সংকটের কারণে বাংলাদেশকে নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। আসন্ন সেচ মৌসুমে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে কয়েকটি নির্দেশনা প্রদান করা হচ্ছে। সেগুলো হলো-

১. রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সেচ পাম্প চালু রাখা।

২. দুর্ঘটনা এড়ানোর লক্ষ্যে হকিং বা অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে বিরত থাকা।

৩. নিম্নহারে বিদ্যুৎ বিল সুবিধা প্রাপ্তির লক্ষ্যে দোকান, শপিং মল, পেট্রোল পাম্প ও সিএনজি স্টেশনে অতিরিক্ত বাতি ব্যবহারে বিরত থাকা।

৪. বেআইনিভাবে ইজিবাইক ও মোটরচালিত রিকশার ব্যাটারি চার্জ থেকে বিরত থাকা।

৫. সাশ্রয়ী ব্যবহার নিশ্চিতের লক্ষ্যে ওয়েট অ্যান্ড ড্রাই পদ্ধতিতে সেচ কাজ সম্পাদন করা।