ঢাকা ০৪:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ময়মনসিংহে যানজট নিরসনে নিরলসভাবে কাজ করছে ট্রাফিক পুলিশ

ময়মনসিংহ প্রতিবেদক:
  • আপডেট সময় : ১২:০৮:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪ ৫৫ বার পড়া হয়েছে

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞার সার্বিক দিক-নির্দেশনায় আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে ঘরমুখো ও শহরের মার্কেট গুলোতে ঈদের শপিং করতে আশা সাধারণ মানুষের ভোগান্তি কমাতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টসহ প্রঊান প্রধান সড়কে যানযট নিরসনে দিনরাত শ্রম দিচ্ছেন জেলা ট্রাফিক ভিভাগ। ইতিমধ্যেই ঈদে যাত্রী সাধারনের সুবিধার্থে অটো চালক, রিক্সাচালক ও সিএনজি মালিক শ্রমিকদের সাথে সচেতনতামোলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন জেলা ট্রাফিক ভবিভাগের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টি আই প্রশাসন সৈয়দ মাহবুবুর রহমান।

সেই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার (২এপ্রিল) ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টি আই প্রশাসন সৈয়দ মাহবুবুর রহমান
ঈদে যাত্রী সাধারনের সুবিধার্থে সিএনজি মালিক শ্রমিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন এবল তাদের সাথে মতবিনিময় করে যানযট নিরসনে তাদেরকে সচেতন করতে সচেতনতামোলক ও গঠনমূলক বক্তব্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেন।

এসময় ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টি আই প্রশাসন সৈয়দ মাহবুবুর রহমান সিএনজি মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন
, “যানজট নিরসনে ট্রাফিকের প্রত্যেক সদস্য নিরলসভাবে কাজ করছে। এবারের ঈদযাত্রায়ও সাধারণ মানুষের গন্তব্যে পৌঁছা‌নো নির্বিঘ্ন করতে ট্রাফিক পুলিশ সচেষ্ট রয়েছে জানিয়ে টি আই সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, “সাধারণ মানুষ যাতে ঈদে তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে, সেজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া ইফতার, তারাবিহ ও সাহ্‌রির সময়ে এমনভাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজানো হয়েছে, যাতে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা বিঘ্নিত না হয়।

যানজট প্রসঙ্গে টি আই বলেন, এর আগে রোজায় ইফতারের আগে যানজট নিরসনে স্বয়ং জেলা পুকিশ সুপার নিজে রাস্তায় ইফতার করেছেন। যানজট নিরসনে ট্রাফিকের প্রত্যেক সদস্য নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। পাশাপাশি রমজান উপলক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে পুলিশ সদস্যরা সতর্ক রয়েছেন।”

এসময় এ সময় টি আই আবু নাছের মুহাম্মদ জহির, শ্রমিক লীগ এর আহ্বায়ক মোঃ রকিবুল ইসলাম শাহীন উপস্থিত ছিলেন।

সৈয়দ মাহবুবুর রহমান আরও বলেন, “সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা ও সেবা সুনিশ্চিত করতে সারা জেলায় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদ, চাঁদাবাজি এবং মাদকের বিষয়ে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অব্যাহত আছে এবং আগামীতেও থাকবে।”

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ময়মনসিংহে যানজট নিরসনে নিরলসভাবে কাজ করছে ট্রাফিক পুলিশ

আপডেট সময় : ১২:০৮:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞার সার্বিক দিক-নির্দেশনায় আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে ঘরমুখো ও শহরের মার্কেট গুলোতে ঈদের শপিং করতে আশা সাধারণ মানুষের ভোগান্তি কমাতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টসহ প্রঊান প্রধান সড়কে যানযট নিরসনে দিনরাত শ্রম দিচ্ছেন জেলা ট্রাফিক ভিভাগ। ইতিমধ্যেই ঈদে যাত্রী সাধারনের সুবিধার্থে অটো চালক, রিক্সাচালক ও সিএনজি মালিক শ্রমিকদের সাথে সচেতনতামোলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন জেলা ট্রাফিক ভবিভাগের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টি আই প্রশাসন সৈয়দ মাহবুবুর রহমান।

সেই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার (২এপ্রিল) ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টি আই প্রশাসন সৈয়দ মাহবুবুর রহমান
ঈদে যাত্রী সাধারনের সুবিধার্থে সিএনজি মালিক শ্রমিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন এবল তাদের সাথে মতবিনিময় করে যানযট নিরসনে তাদেরকে সচেতন করতে সচেতনতামোলক ও গঠনমূলক বক্তব্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেন।

এসময় ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টি আই প্রশাসন সৈয়দ মাহবুবুর রহমান সিএনজি মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন
, “যানজট নিরসনে ট্রাফিকের প্রত্যেক সদস্য নিরলসভাবে কাজ করছে। এবারের ঈদযাত্রায়ও সাধারণ মানুষের গন্তব্যে পৌঁছা‌নো নির্বিঘ্ন করতে ট্রাফিক পুলিশ সচেষ্ট রয়েছে জানিয়ে টি আই সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, “সাধারণ মানুষ যাতে ঈদে তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে, সেজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া ইফতার, তারাবিহ ও সাহ্‌রির সময়ে এমনভাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজানো হয়েছে, যাতে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা বিঘ্নিত না হয়।

যানজট প্রসঙ্গে টি আই বলেন, এর আগে রোজায় ইফতারের আগে যানজট নিরসনে স্বয়ং জেলা পুকিশ সুপার নিজে রাস্তায় ইফতার করেছেন। যানজট নিরসনে ট্রাফিকের প্রত্যেক সদস্য নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। পাশাপাশি রমজান উপলক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে পুলিশ সদস্যরা সতর্ক রয়েছেন।”

এসময় এ সময় টি আই আবু নাছের মুহাম্মদ জহির, শ্রমিক লীগ এর আহ্বায়ক মোঃ রকিবুল ইসলাম শাহীন উপস্থিত ছিলেন।

সৈয়দ মাহবুবুর রহমান আরও বলেন, “সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা ও সেবা সুনিশ্চিত করতে সারা জেলায় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদ, চাঁদাবাজি এবং মাদকের বিষয়ে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অব্যাহত আছে এবং আগামীতেও থাকবে।”