ঢাকা ১২:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোটামুটি দর্শক ‘পাঠানে’র, তবু কেন সন্তুষ্ট হল কর্তৃপক্ষ

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৭:১৫:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩ ৬৩ বার পড়া হয়েছে

ভারতীয় তথা বলিউডের সিনেমা আমদানি করা হলে দেশের সিনেমা হলগুলো কাটিয়ে উঠবে ভগ্নদশা। এই স্বপ্নে বিভোর সিনেমা হল মালিকেরা তাদের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিয়েছেন ‘পাঠান’ সিনেমা। গতকাল শুক্রবার ৪১ সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে এই ছবি। এর মধ্যে পেরিয়ে গেছে এক দিন। এখন দেখার বিষয় প্রথম দিনে বলিউডের সুপারহিট এই হিন্দি সিনেমাটি বাংলায় ঠিক কতটা সাড়া ফেলল!

শহুরে আধুনিক দর্শকের কাছে সিনেপ্লেক্স সিনেমা দেখার পছন্দের জায়গা। এ ধরনের ফিটফাট জায়গায় শাহরুখ খানের ছবি দেখার জন্য যে মানুষের ভিড় হবে, সেটা সহজে আন্দাজ করা যাচ্ছিল। স্টার সিনেপ্লেক্সের জ্যেষ্ঠ বিপণন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানালেন, প্রতিটি শো হাউজফুল হয়েছে।

তার কথায়, ‘আমাদের সাতটি শাখায় প্রতিদিন মোট ৩৪টি করে শো চলছে। সবগুলো শোয়েই আশানুরূপ দর্শক পাচ্ছি আমরা। হাউজফুল যাচ্ছে।’

মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ আরও বলেন, ‘ছবিটি পাঁচ মাস পরে মুক্তি পেয়েছে। এরইমধ্যে বিভিন্ন মাধ্যমে অনেকেই দেখে ফেলেছেন। তারপর শাহরুখ খানকে প্রথমবারের মতো বড় পর্দায় দেখার একটি আগ্রহ সবার রয়ে গেছে। ওই জায়গা থেকেই দর্শক আসছেন বলে মনে হয়। ফলে অগ্রীম টিকিট বুকিংয়ে অনলাইনের ওপর বেশ চাপ যাচ্ছে। আশা করছি এই সমাগম আরও বাড়বে।’

তবে রাজধানীর আরেক সিনেপ্লেক্স ব্লকবাস্টার সিনেমাসে কোনো শো হাউজফুল যাচ্ছে না বলে জানালেন ম্যানেজার মাহবুবুর রহমান। তিনি বলেন, “আমরা প্রতিদিন নয়টি করে শো চালাচ্ছি ‘পাঠানে’র। তবে কোনো শো-ই হাউজফুল যাচ্ছে না। শুরুর দিকে দর্শক তেমন আসছেন না। দিনের শেষ দিকের শোগুলো মোটামুটি ভালো যাচ্ছে। হাউজফুল না হলেও তখন ৮০ শতাংশ দর্শক পাচ্ছি। তবে এ ব্যবসায় আমরা সন্তুষ্ট।”

সিনেমার এমন দর্শক সাড়ায় বেশ খুশি মাহবুবুর রহমান। কয়েকমাস পুরোনো ছবি দেখতে দর্শক যে সিনেপ্লেক্সে আসছেন, এটাতেই সান্ত্বনা খুঁজছেন তিনি।

ঢাকার অদূরে কেরানিগঞ্জে অবস্থিত লায়নস সিনেমাসেও শাহরুখ খানের অ্যাকশন দেখতে প্রত্যাশা অনুযায়ী দর্শকের দেখা মেলেনি। সেখানকার সহকারী ব্যবস্থাপক (অপারেশন) হাসিব-উর-রহমান বলেন, “আমদের এখানে গতকাল সাতটি শো চলেছে পাঠানের। দর্শক যা এসেছিল তার অধিকাংশ ‘পাঠান’ দেখতেই এসেছিল। তবে সেই সংখ্যাটা আমাদের আশানুরূপ না। তবে আমরা সন্তুষ্ট। কেননা, অনেকে বিভিন্ন মাধ্যমে দেখার পরও ছবিটি দেখতে আসছেন দর্শক। আজকের অবস্থা দেখে আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।”

এবার চলুন সিঙ্গেল স্ক্রিনের দিকে নজর দেওয়া যাক। রাজধানী থেকেই শুরুটা হোক। শ্যমলীতে হাউজফুল যাচ্ছে না ছবি। তারপরও সন্তুষ্ট হল কর্তৃপক্ষ। হাউজম্যান আহসান উল্লাহ বলেন, ‘মোটামুটি দর্শক হচ্ছে। গতকাল ৪০-৪৫ শতাংশ দর্শক উপস্থিতি ছিল। আজও সেরকম মনে হচ্ছে। তবে যতটা আশা করেছিলাম ততটা হচ্ছে না।’

আবেদনময়ী দীপিকা পাড়ুকোনের খোলামেলা গান দেখতে দর্শকের হুমড়ি খেয়ে না পড়ার কারণ জানতে চাইলে তিন ওই একই যুক্তি দেখালেন আহসান উল্ল্যাহ। তিনি বলেন, ‘এমনিতেই অনেক আগে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। বিভিন্ন মাধ্যমে দেখা হয়ে গেছে দর্শকের। আরও একটা সমস্যা হচ্ছে, দেশে ছবিটির মুক্তি নিয়ে কয়েকবার তারিখ বদলেছে। এতে দর্শক এসে ঘুরে গেছে। এসব কারণে ছবিটি দর্শক টানতে পারছে না। তবে আমরা সন্তুষ্ট। কারণ, দেশের নতুন সিনেমার তুলনায় বেশি দর্শক পাচ্ছি। আশা করি এ রকমই থাকবে।’

এবার একটু ঢাকার বাইরে ঘুরে আসি চলুন। চট্টগ্রামের সুগন্ধা সিনেমা হলেও সালমানের ক্যামিও দেখতে দর্শকের ভিড় ছিল গড়পড়তা। বিভিন্ন মাধ্যমে ছবিটি দর্শক দেখে ফেলেছেন বলে তাদের উপস্থিতি কম বলে জানালেন হলটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফ হাসান।

তিনি বলেন, “চলছে মোটামুটি। কারণ তো জানেনই। অনেকেই ছবিটি দেখে ফেলেছেন। তবে বলিউডের ছবি আসার দ্বার উন্মুক্ত হয়েছে বলে আমরা সন্তুষ্ট। কেননা, আমাদের দেশি সিনেমার অবস্থা খুবই খারাপ। সেগুলো দর্শক টানতে পারছে না। কিন্তু সিনেমা হল বাঁচাতে হলে তো ছবি লাগবে। দেশি ছবি ব্যর্থ হলে বিদেশি ছবি দিয়ে চাহিদা পূরণ করতে হবে। ওই জায়গা থেকে ‘পাঠান’ আমদানি আমাদের জন্য শুভবার্তা। ৫০ শতাংশ করে দর্শক এলেও আমরা সন্তুষ্ট।”

খুলনার শঙ্খ সিনেমা হলেও দর্শক নেই ‘পাঠানে’র। ম্যানেজার রেজাউল করিম বলেন, ‘যেমনটা ভেবেছিলাম তেমন না। খুব কম মানুষ দেখতে আসছেন। এভারেজ বলা যায়। তারপরও আমরা সন্তুষ্ট।’

মাল্টিপ্লেক্স বা সিঙ্গেল স্ক্রিনে গড়পড়তা চললেও সংশ্লিষ্টরা সন্তুষ্ট কারণ, তারা ধারণা করছেন ভারতের সাথে একইদিনে হিন্দি সিনেমা মুক্তি পেলে দর্শক হুমড়ি খেয়ে পড়বেন। এই ছবিকে তারা ‘পরীক্ষামূলক’ হিসেবে দেখছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মোটামুটি দর্শক ‘পাঠানে’র, তবু কেন সন্তুষ্ট হল কর্তৃপক্ষ

আপডেট সময় : ০৭:১৫:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩

ভারতীয় তথা বলিউডের সিনেমা আমদানি করা হলে দেশের সিনেমা হলগুলো কাটিয়ে উঠবে ভগ্নদশা। এই স্বপ্নে বিভোর সিনেমা হল মালিকেরা তাদের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিয়েছেন ‘পাঠান’ সিনেমা। গতকাল শুক্রবার ৪১ সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে এই ছবি। এর মধ্যে পেরিয়ে গেছে এক দিন। এখন দেখার বিষয় প্রথম দিনে বলিউডের সুপারহিট এই হিন্দি সিনেমাটি বাংলায় ঠিক কতটা সাড়া ফেলল!

শহুরে আধুনিক দর্শকের কাছে সিনেপ্লেক্স সিনেমা দেখার পছন্দের জায়গা। এ ধরনের ফিটফাট জায়গায় শাহরুখ খানের ছবি দেখার জন্য যে মানুষের ভিড় হবে, সেটা সহজে আন্দাজ করা যাচ্ছিল। স্টার সিনেপ্লেক্সের জ্যেষ্ঠ বিপণন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানালেন, প্রতিটি শো হাউজফুল হয়েছে।

তার কথায়, ‘আমাদের সাতটি শাখায় প্রতিদিন মোট ৩৪টি করে শো চলছে। সবগুলো শোয়েই আশানুরূপ দর্শক পাচ্ছি আমরা। হাউজফুল যাচ্ছে।’

মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ আরও বলেন, ‘ছবিটি পাঁচ মাস পরে মুক্তি পেয়েছে। এরইমধ্যে বিভিন্ন মাধ্যমে অনেকেই দেখে ফেলেছেন। তারপর শাহরুখ খানকে প্রথমবারের মতো বড় পর্দায় দেখার একটি আগ্রহ সবার রয়ে গেছে। ওই জায়গা থেকেই দর্শক আসছেন বলে মনে হয়। ফলে অগ্রীম টিকিট বুকিংয়ে অনলাইনের ওপর বেশ চাপ যাচ্ছে। আশা করছি এই সমাগম আরও বাড়বে।’

তবে রাজধানীর আরেক সিনেপ্লেক্স ব্লকবাস্টার সিনেমাসে কোনো শো হাউজফুল যাচ্ছে না বলে জানালেন ম্যানেজার মাহবুবুর রহমান। তিনি বলেন, “আমরা প্রতিদিন নয়টি করে শো চালাচ্ছি ‘পাঠানে’র। তবে কোনো শো-ই হাউজফুল যাচ্ছে না। শুরুর দিকে দর্শক তেমন আসছেন না। দিনের শেষ দিকের শোগুলো মোটামুটি ভালো যাচ্ছে। হাউজফুল না হলেও তখন ৮০ শতাংশ দর্শক পাচ্ছি। তবে এ ব্যবসায় আমরা সন্তুষ্ট।”

সিনেমার এমন দর্শক সাড়ায় বেশ খুশি মাহবুবুর রহমান। কয়েকমাস পুরোনো ছবি দেখতে দর্শক যে সিনেপ্লেক্সে আসছেন, এটাতেই সান্ত্বনা খুঁজছেন তিনি।

ঢাকার অদূরে কেরানিগঞ্জে অবস্থিত লায়নস সিনেমাসেও শাহরুখ খানের অ্যাকশন দেখতে প্রত্যাশা অনুযায়ী দর্শকের দেখা মেলেনি। সেখানকার সহকারী ব্যবস্থাপক (অপারেশন) হাসিব-উর-রহমান বলেন, “আমদের এখানে গতকাল সাতটি শো চলেছে পাঠানের। দর্শক যা এসেছিল তার অধিকাংশ ‘পাঠান’ দেখতেই এসেছিল। তবে সেই সংখ্যাটা আমাদের আশানুরূপ না। তবে আমরা সন্তুষ্ট। কেননা, অনেকে বিভিন্ন মাধ্যমে দেখার পরও ছবিটি দেখতে আসছেন দর্শক। আজকের অবস্থা দেখে আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।”

এবার চলুন সিঙ্গেল স্ক্রিনের দিকে নজর দেওয়া যাক। রাজধানী থেকেই শুরুটা হোক। শ্যমলীতে হাউজফুল যাচ্ছে না ছবি। তারপরও সন্তুষ্ট হল কর্তৃপক্ষ। হাউজম্যান আহসান উল্লাহ বলেন, ‘মোটামুটি দর্শক হচ্ছে। গতকাল ৪০-৪৫ শতাংশ দর্শক উপস্থিতি ছিল। আজও সেরকম মনে হচ্ছে। তবে যতটা আশা করেছিলাম ততটা হচ্ছে না।’

আবেদনময়ী দীপিকা পাড়ুকোনের খোলামেলা গান দেখতে দর্শকের হুমড়ি খেয়ে না পড়ার কারণ জানতে চাইলে তিন ওই একই যুক্তি দেখালেন আহসান উল্ল্যাহ। তিনি বলেন, ‘এমনিতেই অনেক আগে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। বিভিন্ন মাধ্যমে দেখা হয়ে গেছে দর্শকের। আরও একটা সমস্যা হচ্ছে, দেশে ছবিটির মুক্তি নিয়ে কয়েকবার তারিখ বদলেছে। এতে দর্শক এসে ঘুরে গেছে। এসব কারণে ছবিটি দর্শক টানতে পারছে না। তবে আমরা সন্তুষ্ট। কারণ, দেশের নতুন সিনেমার তুলনায় বেশি দর্শক পাচ্ছি। আশা করি এ রকমই থাকবে।’

এবার একটু ঢাকার বাইরে ঘুরে আসি চলুন। চট্টগ্রামের সুগন্ধা সিনেমা হলেও সালমানের ক্যামিও দেখতে দর্শকের ভিড় ছিল গড়পড়তা। বিভিন্ন মাধ্যমে ছবিটি দর্শক দেখে ফেলেছেন বলে তাদের উপস্থিতি কম বলে জানালেন হলটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফ হাসান।

তিনি বলেন, “চলছে মোটামুটি। কারণ তো জানেনই। অনেকেই ছবিটি দেখে ফেলেছেন। তবে বলিউডের ছবি আসার দ্বার উন্মুক্ত হয়েছে বলে আমরা সন্তুষ্ট। কেননা, আমাদের দেশি সিনেমার অবস্থা খুবই খারাপ। সেগুলো দর্শক টানতে পারছে না। কিন্তু সিনেমা হল বাঁচাতে হলে তো ছবি লাগবে। দেশি ছবি ব্যর্থ হলে বিদেশি ছবি দিয়ে চাহিদা পূরণ করতে হবে। ওই জায়গা থেকে ‘পাঠান’ আমদানি আমাদের জন্য শুভবার্তা। ৫০ শতাংশ করে দর্শক এলেও আমরা সন্তুষ্ট।”

খুলনার শঙ্খ সিনেমা হলেও দর্শক নেই ‘পাঠানে’র। ম্যানেজার রেজাউল করিম বলেন, ‘যেমনটা ভেবেছিলাম তেমন না। খুব কম মানুষ দেখতে আসছেন। এভারেজ বলা যায়। তারপরও আমরা সন্তুষ্ট।’

মাল্টিপ্লেক্স বা সিঙ্গেল স্ক্রিনে গড়পড়তা চললেও সংশ্লিষ্টরা সন্তুষ্ট কারণ, তারা ধারণা করছেন ভারতের সাথে একইদিনে হিন্দি সিনেমা মুক্তি পেলে দর্শক হুমড়ি খেয়ে পড়বেন। এই ছবিকে তারা ‘পরীক্ষামূলক’ হিসেবে দেখছেন।