ঢাকা ০১:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাহে রমজানের প্রস্তুতি

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩ ৭৮ বার পড়া হয়েছে

সিয়াম সাধনার মাস রমজান। মহিমান্বিত এ মাসকে বরণ করতে যথাযথ প্রস্তুতি গ্রহণ করা সবার ইমানি দায়িত্ব।

এ পবিত্র মাসে ইবাদত-বন্দেগি তথা সাহরি, ইফতার, তারাবি, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, ইতিকাফ, তাহাজ্জুদ, জিকির-আজকার, তাসবিহ-তাহলিল, দোয়া-ইস্তিগফার, ফিতরা, দান-সদকা ইত্যাদি আদায় করা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য আবশ্যকীয়।

রমজানের আগমনে পুলকিত হতেন স্বয়ং রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। তিনি সাহাবায়ে কিরামকে মুবারকবাদ দিয়ে সুসংবাদ প্রদান করে বলেছেন- ‘তোমাদের সামনে রমজানের পবিত্র মাস আগমন করেছে, যে মাসে আল্লাহ তায়ালা তোমাদের উপর রোজা ফরজ করেছেন।’ (সহীহ মুসলিম)

বিশ্বনবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাহে রমজানের মহাকল্যাণ হাসিলের জন্য অনেক আগে থেকেই মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন; তিনি শাবান, এমনকি রজব মাস থেকে মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন; আর এভাবে পূর্ব থেকে সংকল্প ও মানসিক প্রস্তুতি নেয়া থাকলেই কোনো কাজ সুন্দর, সুষ্ঠু ও পরিপাটি ভাবে পালন করা সম্ভব হয়।

রমজানের প্রস্তুতি হিসাবে যে কাজগুলো করা যেতে পারে:

# মাহে রমজানের সময়কাল জানুন এবং দিন গুনুন।

# বড় ধরনের কোনো সফর থাকলে তা রমজানের আগেই করে ফেলা যায় কিনা, সে চেষ্টা করা। যেন রোজা রেখে কষ্ট করতে না হয়।

# ঈদের কেনা-কাটা রমজানের আগেই করার চেষ্টা করা। তাহলে মাহে রমজানে সময়ের অপচয় রোধ করা সম্ভব হবে।

# পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের জন্য একটি সময় নির্ধারণ করা। কোরআন তিলাওয়াত না জানলে শিখার পরিকল্পনা গ্রহণ করা।

# বেশি বেশি ইসলামি বই-পত্র অধ্যয়নের পরিকল্পনা গ্রহণ।

# সময় সুযোগ থাকলে রমজানের শেষ ১০ দিন ইতিকাফ করার নিয়ত করা যেতে পারে।

# কোনো বদ অভ্যাস থাকলে তা ত্যাগ করার বিশেষ পরিকল্পনা নিতে হবে।

# অধিক পরিমাণে দান-সদকা করার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করা। প্রয়োজনে দান-সদকার জন্য অর্থ সঞ্চয় করে রাখা যেতে পারে।

# গুরুত্বপূর্ণ দোয়া ও তাসবিহসমূহ রমজানের পূর্বেই শিখে নেয়ার চেষ্টা করা

# অফিস-আদালত ও কাজ-কর্মের সময় পুনঃনির্ধারণ করুন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মাহে রমজানের প্রস্তুতি

আপডেট সময় : ০৮:৩৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩

সিয়াম সাধনার মাস রমজান। মহিমান্বিত এ মাসকে বরণ করতে যথাযথ প্রস্তুতি গ্রহণ করা সবার ইমানি দায়িত্ব।

এ পবিত্র মাসে ইবাদত-বন্দেগি তথা সাহরি, ইফতার, তারাবি, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, ইতিকাফ, তাহাজ্জুদ, জিকির-আজকার, তাসবিহ-তাহলিল, দোয়া-ইস্তিগফার, ফিতরা, দান-সদকা ইত্যাদি আদায় করা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য আবশ্যকীয়।

রমজানের আগমনে পুলকিত হতেন স্বয়ং রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। তিনি সাহাবায়ে কিরামকে মুবারকবাদ দিয়ে সুসংবাদ প্রদান করে বলেছেন- ‘তোমাদের সামনে রমজানের পবিত্র মাস আগমন করেছে, যে মাসে আল্লাহ তায়ালা তোমাদের উপর রোজা ফরজ করেছেন।’ (সহীহ মুসলিম)

বিশ্বনবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাহে রমজানের মহাকল্যাণ হাসিলের জন্য অনেক আগে থেকেই মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন; তিনি শাবান, এমনকি রজব মাস থেকে মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন; আর এভাবে পূর্ব থেকে সংকল্প ও মানসিক প্রস্তুতি নেয়া থাকলেই কোনো কাজ সুন্দর, সুষ্ঠু ও পরিপাটি ভাবে পালন করা সম্ভব হয়।

রমজানের প্রস্তুতি হিসাবে যে কাজগুলো করা যেতে পারে:

# মাহে রমজানের সময়কাল জানুন এবং দিন গুনুন।

# বড় ধরনের কোনো সফর থাকলে তা রমজানের আগেই করে ফেলা যায় কিনা, সে চেষ্টা করা। যেন রোজা রেখে কষ্ট করতে না হয়।

# ঈদের কেনা-কাটা রমজানের আগেই করার চেষ্টা করা। তাহলে মাহে রমজানে সময়ের অপচয় রোধ করা সম্ভব হবে।

# পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের জন্য একটি সময় নির্ধারণ করা। কোরআন তিলাওয়াত না জানলে শিখার পরিকল্পনা গ্রহণ করা।

# বেশি বেশি ইসলামি বই-পত্র অধ্যয়নের পরিকল্পনা গ্রহণ।

# সময় সুযোগ থাকলে রমজানের শেষ ১০ দিন ইতিকাফ করার নিয়ত করা যেতে পারে।

# কোনো বদ অভ্যাস থাকলে তা ত্যাগ করার বিশেষ পরিকল্পনা নিতে হবে।

# অধিক পরিমাণে দান-সদকা করার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করা। প্রয়োজনে দান-সদকার জন্য অর্থ সঞ্চয় করে রাখা যেতে পারে।

# গুরুত্বপূর্ণ দোয়া ও তাসবিহসমূহ রমজানের পূর্বেই শিখে নেয়ার চেষ্টা করা

# অফিস-আদালত ও কাজ-কর্মের সময় পুনঃনির্ধারণ করুন।