ঢাকা ০৪:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মালয়েশিয়ায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড বাতিল

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৬:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ এপ্রিল ২০২৩ ৮৩ বার পড়া হয়েছে

মালয়েশিয়ায় গুরুতর অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড বাতিল করা হয়েছে। সোমবার মৃত্যুদণ্ড বাতিলের পক্ষে আইনি সংস্কারের অনুমোদন দিয়েছে দেশটির সংসদ।

পাস হওয়া সংশোধনীর অধীনে মৃত্যুদণ্ডের বিকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে চাবুক মারা এবং ৩০ থেকে ৪০ বছরের কারাদণ্ড। এছাড়া অপরাধীর স্বাভাবিক জীবনের সময়কালের জন্য কারাদণ্ডের জন্য যেসব পূর্ববর্তী বিধানগুলো রয়েছে সেগুলোকে প্রতিস্থাপন করা হয়।

মালয়েশিয়ার পার্লামেন্ট এদিন বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ড অপসারণ, মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত অপরাধের সংখ্যা কমাতে এবং প্রাকৃতিক-জীবন কারাদণ্ড বাতিল করতে ব্যাপক আইনি সংস্কার পাস করেছে।

মালয়েশিয়ায় ২০১৮ সাল থেকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ওপর স্থগিতাদেশ রয়েছে। তখন দেশটি প্রথম মৃত্যুদণ্ড সম্পূর্ণভাবে বাতিল করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, সরকার অবশ্য কিছু দলের রাজনৈতিক চাপের সম্মুখীন হয়েছিল। এক বছর পর সরকার বলেছিল যে, মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকবে তবে আদালতগুলোকে তাদের বিবেচনার ভিত্তিতে অন্যান্য শাস্তি দিয়ে প্রতিস্থাপন করার অনুমতি দেবে।

মালয়েশিয়ার আইনে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হিসেবে ৩০ বছর সাজা ভোগ করতে হয়। এটি আগের মতোই বলবৎ থাকবে।

বিলটির উপর সংসদীয় বিতর্ক শেষে উপ-আইনমন্ত্রী রামকারপাল সিং বলেছেন, মৃত্যুদণ্ড একটি অপরিবর্তনীয় শাস্তি যা অপরাধের জন্য কার্যকর প্রতিবন্ধক ছিল না।মৃত্যুদন্ড যে ফলাফল আনতে চেয়েছিল তা আনতে পারেনি।

পাসকৃত সংশোধনীগুলো হত্যা এবং মাদক পাচারসহ বর্তমানে মৃত্যুদন্ডযোগ্য ৩৪টি অপরাধের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

মালয়েশিয়ার এই পদক্ষেপ এমন সময় এসেছে যখন কিছু দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মৃত্যুদণ্ডের ব্যবহার বাড়িয়েছে।

গত বছর সিঙ্গাপুর মাদক অপরাধের জন্য ১১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে। সরকারি তথ্যে দেখা গেছে, মিয়ানমার কয়েক দশকের মধ্যে চার গণতন্ত্রপন্থীর বিরুদ্ধে প্রথম মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে।

সূত্র: রয়টার্স ও আল জাজিরা

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মালয়েশিয়ায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড বাতিল

আপডেট সময় : ০৯:৫৬:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ এপ্রিল ২০২৩

মালয়েশিয়ায় গুরুতর অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড বাতিল করা হয়েছে। সোমবার মৃত্যুদণ্ড বাতিলের পক্ষে আইনি সংস্কারের অনুমোদন দিয়েছে দেশটির সংসদ।

পাস হওয়া সংশোধনীর অধীনে মৃত্যুদণ্ডের বিকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে চাবুক মারা এবং ৩০ থেকে ৪০ বছরের কারাদণ্ড। এছাড়া অপরাধীর স্বাভাবিক জীবনের সময়কালের জন্য কারাদণ্ডের জন্য যেসব পূর্ববর্তী বিধানগুলো রয়েছে সেগুলোকে প্রতিস্থাপন করা হয়।

মালয়েশিয়ার পার্লামেন্ট এদিন বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ড অপসারণ, মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত অপরাধের সংখ্যা কমাতে এবং প্রাকৃতিক-জীবন কারাদণ্ড বাতিল করতে ব্যাপক আইনি সংস্কার পাস করেছে।

মালয়েশিয়ায় ২০১৮ সাল থেকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার ওপর স্থগিতাদেশ রয়েছে। তখন দেশটি প্রথম মৃত্যুদণ্ড সম্পূর্ণভাবে বাতিল করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, সরকার অবশ্য কিছু দলের রাজনৈতিক চাপের সম্মুখীন হয়েছিল। এক বছর পর সরকার বলেছিল যে, মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকবে তবে আদালতগুলোকে তাদের বিবেচনার ভিত্তিতে অন্যান্য শাস্তি দিয়ে প্রতিস্থাপন করার অনুমতি দেবে।

মালয়েশিয়ার আইনে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হিসেবে ৩০ বছর সাজা ভোগ করতে হয়। এটি আগের মতোই বলবৎ থাকবে।

বিলটির উপর সংসদীয় বিতর্ক শেষে উপ-আইনমন্ত্রী রামকারপাল সিং বলেছেন, মৃত্যুদণ্ড একটি অপরিবর্তনীয় শাস্তি যা অপরাধের জন্য কার্যকর প্রতিবন্ধক ছিল না।মৃত্যুদন্ড যে ফলাফল আনতে চেয়েছিল তা আনতে পারেনি।

পাসকৃত সংশোধনীগুলো হত্যা এবং মাদক পাচারসহ বর্তমানে মৃত্যুদন্ডযোগ্য ৩৪টি অপরাধের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

মালয়েশিয়ার এই পদক্ষেপ এমন সময় এসেছে যখন কিছু দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মৃত্যুদণ্ডের ব্যবহার বাড়িয়েছে।

গত বছর সিঙ্গাপুর মাদক অপরাধের জন্য ১১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে। সরকারি তথ্যে দেখা গেছে, মিয়ানমার কয়েক দশকের মধ্যে চার গণতন্ত্রপন্থীর বিরুদ্ধে প্রথম মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে।

সূত্র: রয়টার্স ও আল জাজিরা