ঢাকা ০৮:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ছাত্রদলের নতুন সভাপতি রাকিব, সাধারণ সম্পাদক নাসির জ্বালানি তেলের স্বয়ংক্রিয় দাম নির্ধারণে প্রজ্ঞাপন জারি খাবার সংগ্রহে লাইনে দাঁড়ানো ফিলিস্তিনিদের গুলি, নিহত ১১২ রাজশাহীতে ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের অভিযান না থাকায় ক্রমেই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম ঘুড়ি প্রতীকের বিজয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা চান কাউন্সিলর প্রার্থী আসলাম ‘অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানোর নির্দেশ দিলেও মানা হচ্ছে না’ নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রীকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি ২৩নং ওয়ার্ডকে পরিকল্পিত আধুনিক এলাকা গড়তে চান – রানা বেইলি রোডে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে নিহত ৪৪ চাঁপাইনবাবগঞ্জে জমি জবরদখল ও গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

‘মহা প্রতিশোধ’ নেয়া শুরু করেছে রাশিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:১৩:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ৫৯ বার পড়া হয়েছে

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমিরি জেলেনস্কি বলেছেন, রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইউক্রেন যে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে তার বিরুদ্ধে ‘মহা প্রতিশোধ’ নিতে শুরু করেছে রুশ সেনারা।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে রুশ সৈন্যরা এগিয়ে যাচ্ছে রাশিয়ার এমন দাবির পরপরই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির পক্ষ থেকে এমন মন্তব্য এল।

কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই জেলেনস্কি সতর্ক করে আসছিলেন যে, ইউক্রেনের দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে বড় ধরনের হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া।

সোমবার যদিও বড় ধরনের হামলা লক্ষ্য করা যায়নি, তবে রুশ-নিয়ন্ত্রিত ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দোনেৎস্ক রাজ্যের প্রশাসক (অ্যাডমিনিস্ট্রেটর) ডেনিস পুশিলিন বলেছেন, রুশ সেনারা ভালেদার এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এটি একটি কয়লা খনির শহর। তবে যুদ্ধ শুরুর পর থেকে এটিকে ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল ইউক্রেন।

পুশিলিনের উপদেষ্টা ইয়ান গাগিন বলেছেন, রাশিয়ার ভাড়াটে বাহিনী ওয়াগনার বাখমুতগামী একটি সরবরাহ লাইনের আংশিক নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। গত কয়েক মাস ধরে গুরুত্বপূর্ণ এই বাখমুত শহরের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করছে রাশিয়া।

এর একদিন আগে ওয়াগনার গ্রুপের প্রধান দাবি করেন, তাদের যোদ্ধারা ব্লাহোদাতন গ্রামের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। বাখমুতের ঠিক উত্তরে অবস্থিত গ্রামটি।

তবে ইউক্রেনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, তারা ব্লাহোদাতন ও ভালেদারে রুশ হামলা প্রতিহত করেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, তারা স্বতন্ত্রভাবে উভয়পক্ষের দাবি ভেরিভাই করতে (সত্যতা নিশ্চিত) পারেনি। তবে পরিস্থিতি ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, রাশিয়ান বাহিনী ধীরে হলেও অগ্রসর হচ্ছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রতিদিনিই রাশিয়া কোনো না কোনোভাবে নিয়মিত যুদ্ধের ময়দানে সেনা সংখ্যা বাড়াচ্ছে আর নয়তো ওয়েগনারের ভাড়াটে যোদ্ধাদের নামাচ্ছে।’ জেলেনস্কি কয়েক সপ্তাহ ধরেই সতর্ক করে আসছিলেন যে, রাশিয়া ইউক্রেনের দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে বিগত দুই মাস ধরে সেনা সমাবেশ বাড়িয়েছে এবং খুব শিগগিরই রাশিয়া তীব্র আক্রমণ শুরু করবে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার তিনি জানালেন, ‘মহা প্রতিশোধ’ নিতে শুরু করেছে রাশিয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

‘মহা প্রতিশোধ’ নেয়া শুরু করেছে রাশিয়া

আপডেট সময় : ১০:১৩:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমিরি জেলেনস্কি বলেছেন, রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইউক্রেন যে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে তার বিরুদ্ধে ‘মহা প্রতিশোধ’ নিতে শুরু করেছে রুশ সেনারা।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে রুশ সৈন্যরা এগিয়ে যাচ্ছে রাশিয়ার এমন দাবির পরপরই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির পক্ষ থেকে এমন মন্তব্য এল।

কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই জেলেনস্কি সতর্ক করে আসছিলেন যে, ইউক্রেনের দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে বড় ধরনের হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে রাশিয়া।

সোমবার যদিও বড় ধরনের হামলা লক্ষ্য করা যায়নি, তবে রুশ-নিয়ন্ত্রিত ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দোনেৎস্ক রাজ্যের প্রশাসক (অ্যাডমিনিস্ট্রেটর) ডেনিস পুশিলিন বলেছেন, রুশ সেনারা ভালেদার এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এটি একটি কয়লা খনির শহর। তবে যুদ্ধ শুরুর পর থেকে এটিকে ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল ইউক্রেন।

পুশিলিনের উপদেষ্টা ইয়ান গাগিন বলেছেন, রাশিয়ার ভাড়াটে বাহিনী ওয়াগনার বাখমুতগামী একটি সরবরাহ লাইনের আংশিক নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। গত কয়েক মাস ধরে গুরুত্বপূর্ণ এই বাখমুত শহরের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করছে রাশিয়া।

এর একদিন আগে ওয়াগনার গ্রুপের প্রধান দাবি করেন, তাদের যোদ্ধারা ব্লাহোদাতন গ্রামের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। বাখমুতের ঠিক উত্তরে অবস্থিত গ্রামটি।

তবে ইউক্রেনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, তারা ব্লাহোদাতন ও ভালেদারে রুশ হামলা প্রতিহত করেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, তারা স্বতন্ত্রভাবে উভয়পক্ষের দাবি ভেরিভাই করতে (সত্যতা নিশ্চিত) পারেনি। তবে পরিস্থিতি ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, রাশিয়ান বাহিনী ধীরে হলেও অগ্রসর হচ্ছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রতিদিনিই রাশিয়া কোনো না কোনোভাবে নিয়মিত যুদ্ধের ময়দানে সেনা সংখ্যা বাড়াচ্ছে আর নয়তো ওয়েগনারের ভাড়াটে যোদ্ধাদের নামাচ্ছে।’ জেলেনস্কি কয়েক সপ্তাহ ধরেই সতর্ক করে আসছিলেন যে, রাশিয়া ইউক্রেনের দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলে বিগত দুই মাস ধরে সেনা সমাবেশ বাড়িয়েছে এবং খুব শিগগিরই রাশিয়া তীব্র আক্রমণ শুরু করবে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার তিনি জানালেন, ‘মহা প্রতিশোধ’ নিতে শুরু করেছে রাশিয়া।