ঢাকা ০৪:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মহানবীকে (সা.) কটূক্তির মামলায় সেই রাকেশের ৭ বছরের জেল

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৭:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ জানুয়ারী ২০২৩ ৯২ বার পড়া হয়েছে

ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও মহানবী হজরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে করা মামলায় একজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। পাশাপাশি এক লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। তার নাম রাকেশ রায়।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় সিলেটর সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবুল কাশেম এই রায় ঘোষণা করেন।

এই মামলায় জামিনে থাকা রাকেশ রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

রাকেশ রায় বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মানবাধিকারকর্মী।

আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর মোস্তফা দিলওয়ার আল আজহার বলেন, ‘যুক্তিতর্ক শেষে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত রাকেশ রায়কে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে।’

রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করার কথা জানিয়েছেন রাকেশের আইনজীবী ইশতিয়াক আহমদ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আইনজীবী হিসেবে আমি আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে বলতে পারি না। তবে ন্যায়বিচারের আশায় আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।’

২০১৭ সালের জুনের শুরুতে রাকেশের বিরুদ্ধে জকিগঞ্জ থানায় মামলা করেন ফুযায়েল আহমদ নামের এক ব্যক্তি। এজাহারে তার বিরুদ্ধে ফেসবুকে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে ইসলাম ধর্ম, মহানবী (সা.) ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ আনা হয়। ফুযায়েল ও রাকেশ একই উপজেলার বাসিন্দা।

ওই বছরের ৭ জুন সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা থেকে রাকেশকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মহানবীকে (সা.) কটূক্তির মামলায় সেই রাকেশের ৭ বছরের জেল

আপডেট সময় : ০৩:৪৭:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ জানুয়ারী ২০২৩

ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও মহানবী হজরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে করা মামলায় একজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। পাশাপাশি এক লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। তার নাম রাকেশ রায়।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় সিলেটর সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবুল কাশেম এই রায় ঘোষণা করেন।

এই মামলায় জামিনে থাকা রাকেশ রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

রাকেশ রায় বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মানবাধিকারকর্মী।

আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর মোস্তফা দিলওয়ার আল আজহার বলেন, ‘যুক্তিতর্ক শেষে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত রাকেশ রায়কে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে।’

রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করার কথা জানিয়েছেন রাকেশের আইনজীবী ইশতিয়াক আহমদ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আইনজীবী হিসেবে আমি আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে বলতে পারি না। তবে ন্যায়বিচারের আশায় আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।’

২০১৭ সালের জুনের শুরুতে রাকেশের বিরুদ্ধে জকিগঞ্জ থানায় মামলা করেন ফুযায়েল আহমদ নামের এক ব্যক্তি। এজাহারে তার বিরুদ্ধে ফেসবুকে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে ইসলাম ধর্ম, মহানবী (সা.) ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ আনা হয়। ফুযায়েল ও রাকেশ একই উপজেলার বাসিন্দা।

ওই বছরের ৭ জুন সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা থেকে রাকেশকে গ্রেপ্তার করা হয়।