ঢাকা ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মস্কোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়াগনার গ্রুপ: ব্রিটেন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৯:৫১:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ জুন ২০২৩ ৫৯ বার পড়া হয়েছে

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়াগনার গ্রুপ। ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ তথ্য দিয়েছে। এ বিষয়ে যুক্তরাজ্য বলেছে, তারা একটি গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে এ বিষয়টি জেনেছে।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, কিছু ওয়াগনার সেনা ভোরেনেজ এলাকা দিয়ে উত্তর দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এটা নিশ্চিতভাবেই মস্কোতে যাওয়ার রাস্তা।

ভোরেনেজ এলাকা রাজধানী মস্কো এবং রোস্তভ-অন-ডনের মাঝখানে অবস্থিত। এ রাশিয়ান শহরটি এখন ওয়াগনারের ভাড়াটে যোদ্ধারা দখল করেছে বলে জানা গেছে। এছাড়া তারা রোস্তভ-অন-ডনের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলো দখল করেছে।

যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা বিভাগ বলছে, ওই বিদ্রোহ এখন রুশদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ। এ বিদ্রোহ মূলত একটি “সরাসরি সামরিক সংঘর্ষ”। ওয়াগনার গ্রুপ দু’টি স্থান দিয়ে ইউক্রেন থেকে রাশিয়ায় প্রবেশ করেছে।

ওই সময় কিছু রাশিয়ান সৈন্য কোনো সামরিক পদক্ষেপ নেয়নি। তারা ওয়াগনারকে মেনে নিয়েছে।

এখন রাশিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীর ন্যাশনাল গার্ডের আনুগত্যের ওপর এ সঙ্কট নিরসনের বিষয়টি নির্ভর করছে।

সূত্র : বিবিসি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মস্কোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়াগনার গ্রুপ: ব্রিটেন

আপডেট সময় : ০৯:৫১:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ জুন ২০২৩

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়াগনার গ্রুপ। ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ তথ্য দিয়েছে। এ বিষয়ে যুক্তরাজ্য বলেছে, তারা একটি গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে এ বিষয়টি জেনেছে।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, কিছু ওয়াগনার সেনা ভোরেনেজ এলাকা দিয়ে উত্তর দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এটা নিশ্চিতভাবেই মস্কোতে যাওয়ার রাস্তা।

ভোরেনেজ এলাকা রাজধানী মস্কো এবং রোস্তভ-অন-ডনের মাঝখানে অবস্থিত। এ রাশিয়ান শহরটি এখন ওয়াগনারের ভাড়াটে যোদ্ধারা দখল করেছে বলে জানা গেছে। এছাড়া তারা রোস্তভ-অন-ডনের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলো দখল করেছে।

যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা বিভাগ বলছে, ওই বিদ্রোহ এখন রুশদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ। এ বিদ্রোহ মূলত একটি “সরাসরি সামরিক সংঘর্ষ”। ওয়াগনার গ্রুপ দু’টি স্থান দিয়ে ইউক্রেন থেকে রাশিয়ায় প্রবেশ করেছে।

ওই সময় কিছু রাশিয়ান সৈন্য কোনো সামরিক পদক্ষেপ নেয়নি। তারা ওয়াগনারকে মেনে নিয়েছে।

এখন রাশিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীর ন্যাশনাল গার্ডের আনুগত্যের ওপর এ সঙ্কট নিরসনের বিষয়টি নির্ভর করছে।

সূত্র : বিবিসি