ঢাকা ০১:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাঘায় নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৯:১৪:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৫ মার্চ ২০২৩ ৫৪ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহীর বাঘায় মোসাঃ তরিনা বেগম (৪০) নামে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ ।

রোববার (৫ মার্চ) সকাল ১০টার দিকে নিজ বাড়ি শয়ন কক্ষের বারান্দা থেকে এই মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি সংসার জীবনে ৩ কন্যা সন্তানের জননী। মোসা. তরিনা বেগম বাঘা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের পাকুড়িয়া কারিগরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা রাজদুল ইসলামের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, তরিনা বেগমের স্বামী রাজদুল ইসলাম মাদকে আসক্ত ছিলেন। স্ত্রীসহ পরিবারের লোকজন নানাভাবে বুঝিয়ে মাদক থেকে সরিয়ে আনা সম্ভব হয়নি তাকে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায় ঝড়গা-বিবাদ হতো। এলাকার এক দোকানে ৪ হাজার টাকা বাঁকি করেন। দোকানদার বাঁকি টাকার জন্য চাপ দেন রাজদুল ইসলামকে। পরে বাড়িতে ফিরে এসে স্ত্রীর কাছে টাকা চান। স্ত্রীর এ টাকা দিতে না পারায় অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করেন। এই গালি-গালাজ সহ্য করতে না পেরে ঘরের বারান্দার রুয়া(ডাবের) সাথে রশিতে ঝুলে আত্মহত্যা করে। তবে এই মৃত্যু ঘটনাটি রহস্যজনক বলে পুলিশের ধারণা। ঘটনার তারপর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছে।

বাঘা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের পাকুড়িয়া কারিগরপাড়া গ্রামের কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে দেখি বারান্দায় লাশ ঝুলছে। পরে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করেন।

বাঘা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল করিম বলেন, ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এ মৃত্যুটি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। এ ঘটনায় ৩০৬ ধারায় একটি মামলা করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

বাঘায় নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৯:১৪:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৫ মার্চ ২০২৩

রাজশাহীর বাঘায় মোসাঃ তরিনা বেগম (৪০) নামে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ ।

রোববার (৫ মার্চ) সকাল ১০টার দিকে নিজ বাড়ি শয়ন কক্ষের বারান্দা থেকে এই মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি সংসার জীবনে ৩ কন্যা সন্তানের জননী। মোসা. তরিনা বেগম বাঘা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের পাকুড়িয়া কারিগরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা রাজদুল ইসলামের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, তরিনা বেগমের স্বামী রাজদুল ইসলাম মাদকে আসক্ত ছিলেন। স্ত্রীসহ পরিবারের লোকজন নানাভাবে বুঝিয়ে মাদক থেকে সরিয়ে আনা সম্ভব হয়নি তাকে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায় ঝড়গা-বিবাদ হতো। এলাকার এক দোকানে ৪ হাজার টাকা বাঁকি করেন। দোকানদার বাঁকি টাকার জন্য চাপ দেন রাজদুল ইসলামকে। পরে বাড়িতে ফিরে এসে স্ত্রীর কাছে টাকা চান। স্ত্রীর এ টাকা দিতে না পারায় অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করেন। এই গালি-গালাজ সহ্য করতে না পেরে ঘরের বারান্দার রুয়া(ডাবের) সাথে রশিতে ঝুলে আত্মহত্যা করে। তবে এই মৃত্যু ঘটনাটি রহস্যজনক বলে পুলিশের ধারণা। ঘটনার তারপর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছে।

বাঘা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের পাকুড়িয়া কারিগরপাড়া গ্রামের কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে দেখি বারান্দায় লাশ ঝুলছে। পরে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করেন।

বাঘা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল করিম বলেন, ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এ মৃত্যুটি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। এ ঘটনায় ৩০৬ ধারায় একটি মামলা করা হয়েছে।