ঢাকা ০৩:১৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাউফলে আ.লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ২০

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:২৮:২৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ মার্চ ২০২৩ ৬৭ বার পড়া হয়েছে

পটুয়াখালীর বাউফলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন পালনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাঠিচার্জ ও বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে বাউফল উপজেলা পরিষদের সামনে স্থানীয় সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোতালেব হাওলাদার গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ ঘটে।

এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলা পরিষদের পূর্ব দিক থেকে আ স ম ফিরোজের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ আনন্দ শোভাযাত্রা নিয়ে উপজেলার দিকে আসছিল। একই সময় পশ্চিম দিক থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাউফল উপজেলা চেয়ারম্যান মোতালেব হাওলাদারের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ আনন্দ শোভাযাত্রা নিয়ে এগিয়ে আসতে থাকে। এসময় দুপক্ষে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মতলব হাওলাদারসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ করা হয়। পরবর্তীতে পুলিশ বাধ্য হয়ে ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। দুপক্ষের ইটপাটকেলে পুলিশের চার-পাঁচ সদস্য আহত হন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বাউফলে আ.লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ২০

আপডেট সময় : ১০:২৮:২৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ মার্চ ২০২৩

পটুয়াখালীর বাউফলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন পালনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাঠিচার্জ ও বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে বাউফল উপজেলা পরিষদের সামনে স্থানীয় সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোতালেব হাওলাদার গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ ঘটে।

এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলা পরিষদের পূর্ব দিক থেকে আ স ম ফিরোজের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ আনন্দ শোভাযাত্রা নিয়ে উপজেলার দিকে আসছিল। একই সময় পশ্চিম দিক থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাউফল উপজেলা চেয়ারম্যান মোতালেব হাওলাদারের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ আনন্দ শোভাযাত্রা নিয়ে এগিয়ে আসতে থাকে। এসময় দুপক্ষে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মতলব হাওলাদারসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ করা হয়। পরবর্তীতে পুলিশ বাধ্য হয়ে ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। দুপক্ষের ইটপাটকেলে পুলিশের চার-পাঁচ সদস্য আহত হন।