ঢাকা ০৪:০৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বন্দর ব্যবহারে ইরান-ভারত চুক্তি, যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারি

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:৩৩:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪ ১০ বার পড়া হয়েছে

ভারতের আশা, এই চুক্তির ফলে ইরান ও আফগানিস্তানের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাবে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে ২০২৪-২৫ অর্থবছরে চাবাহার বন্দরে বিনিয়োগের জন্য ১০০ কোটি রুপির অনুমোদন দিয়েছে।

এদিকে চাবাহার বন্দর নিয়ে ইরান-ভারত চুক্তির বিষয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল বলেন, ভারত তার নিজস্ব বৈদেশিক নীতিমালা বাস্তবায়ন ও লক্ষ্য অর্জনে চাবাহার বন্দরের বিষয়ে ইরানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়ে কী করবে সেটা তাদের বিষয়। তবে আমি শুধু বলব, যেহেতু এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কিত এবং ইরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা বহাল আছে এবং আমরা সেগুলোর প্রয়োগ অব্যাহত রাখব। তাই বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া উচিত।

মার্কিন মুখপাত্র আরও বলেন, ইরানের সঙ্গে কেউ ব্যবসায়িক চুক্তি করলে তাদের সম্ভাব্য ঝুঁকি সম্পর্কেও সচেতন হতে হবে— তারা নিজেদের নিষেধাজ্ঞার সম্ভাব্য ঝুঁকির মুখে ফেলছে। এসব বিষয়ে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানান বেদান্ত প্যাটেল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বন্দর ব্যবহারে ইরান-ভারত চুক্তি, যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারি

আপডেট সময় : ১০:৩৩:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

ভারতের আশা, এই চুক্তির ফলে ইরান ও আফগানিস্তানের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাবে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে ২০২৪-২৫ অর্থবছরে চাবাহার বন্দরে বিনিয়োগের জন্য ১০০ কোটি রুপির অনুমোদন দিয়েছে।

এদিকে চাবাহার বন্দর নিয়ে ইরান-ভারত চুক্তির বিষয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল বলেন, ভারত তার নিজস্ব বৈদেশিক নীতিমালা বাস্তবায়ন ও লক্ষ্য অর্জনে চাবাহার বন্দরের বিষয়ে ইরানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়ে কী করবে সেটা তাদের বিষয়। তবে আমি শুধু বলব, যেহেতু এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কিত এবং ইরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা বহাল আছে এবং আমরা সেগুলোর প্রয়োগ অব্যাহত রাখব। তাই বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া উচিত।

মার্কিন মুখপাত্র আরও বলেন, ইরানের সঙ্গে কেউ ব্যবসায়িক চুক্তি করলে তাদের সম্ভাব্য ঝুঁকি সম্পর্কেও সচেতন হতে হবে— তারা নিজেদের নিষেধাজ্ঞার সম্ভাব্য ঝুঁকির মুখে ফেলছে। এসব বিষয়ে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানান বেদান্ত প্যাটেল।