ঢাকা ০৩:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফের এক হচ্ছে সৌদি-ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:৩৫:০২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩ ৮৬ বার পড়া হয়েছে

পুনরায় সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করতে সম্মত হয়েছে সৌদি আরব ও ইরান। চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে দুই দেশের কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশ দুটি।

শুক্রবার (১০ মার্চ) রাতে আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনের তথ্যমতে, ধর্ম, ভূ-রাজনৈতিক ও যুক্তরাষ্ট্র ইস্যু নিয়ে সৌদি আরব ও ইরানের মধ্যে উত্তেজনা কম ছিল না। শুধু তাই নয়, ২০১৬ সালের শুরুতে ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কও ছিন্ন করে সৌদি আরব। অবশেষে, সেই সম্পর্ক জোড়া লাগাতে একমত হয়েছে দেশ দুটি। আগামী দুই মাসের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনরায় স্থাপনের পাশাপাশি দুই দেশেই পরস্পর দূতাবাস চালু করতে একমত হয়েছে।

এ ছাড়া ইরান ও সৌদি আরব একে অপরের সার্বভৌমত্ব ও অভ্যন্তরীণ বিষয়ে শ্রদ্ধা প্রদর্শনে সম্মত হয়েছে। একইসঙ্গে দেশ দুটি ২০০১ সালের একটি নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি সক্রিয় করতেও সম্মত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে শিয়া সম্প্রদায়ের এক ধর্মীয় নেতার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় ইরানে সৌদি দূতাবাসে হামলা চালায় বিক্ষোভকারীরা। ইরান শিয়াপ্রধান দেশ হওয়ার সেখানকার অনেকেই ওই মৃত্যুদণ্ড মেনে নিতে পারেনি। ওই ঘটনার পর ইরান ও সৌদির কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন হয়।

এ ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে চলা ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের লড়াই নিয়েও সৌদি আরব ও ইরান বিপরীত অবস্থান রয়েছে। হুতিরা মূলত শিয়া মতবাদে বিশ্বাসী। তাদের দমাতে লড়ছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন আরব জোট। আর হুতি বিদ্রোহীদের অস্ত্র ও প্রশিক্ষণ দিয়ে সহযোগিতা করছে ইরান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ফের এক হচ্ছে সৌদি-ইরান

আপডেট সময় : ১০:৩৫:০২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩

পুনরায় সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করতে সম্মত হয়েছে সৌদি আরব ও ইরান। চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে দুই দেশের কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশ দুটি।

শুক্রবার (১০ মার্চ) রাতে আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনের তথ্যমতে, ধর্ম, ভূ-রাজনৈতিক ও যুক্তরাষ্ট্র ইস্যু নিয়ে সৌদি আরব ও ইরানের মধ্যে উত্তেজনা কম ছিল না। শুধু তাই নয়, ২০১৬ সালের শুরুতে ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কও ছিন্ন করে সৌদি আরব। অবশেষে, সেই সম্পর্ক জোড়া লাগাতে একমত হয়েছে দেশ দুটি। আগামী দুই মাসের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনরায় স্থাপনের পাশাপাশি দুই দেশেই পরস্পর দূতাবাস চালু করতে একমত হয়েছে।

এ ছাড়া ইরান ও সৌদি আরব একে অপরের সার্বভৌমত্ব ও অভ্যন্তরীণ বিষয়ে শ্রদ্ধা প্রদর্শনে সম্মত হয়েছে। একইসঙ্গে দেশ দুটি ২০০১ সালের একটি নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি সক্রিয় করতেও সম্মত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে শিয়া সম্প্রদায়ের এক ধর্মীয় নেতার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় ইরানে সৌদি দূতাবাসে হামলা চালায় বিক্ষোভকারীরা। ইরান শিয়াপ্রধান দেশ হওয়ার সেখানকার অনেকেই ওই মৃত্যুদণ্ড মেনে নিতে পারেনি। ওই ঘটনার পর ইরান ও সৌদির কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন হয়।

এ ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে চলা ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের লড়াই নিয়েও সৌদি আরব ও ইরান বিপরীত অবস্থান রয়েছে। হুতিরা মূলত শিয়া মতবাদে বিশ্বাসী। তাদের দমাতে লড়ছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন আরব জোট। আর হুতি বিদ্রোহীদের অস্ত্র ও প্রশিক্ষণ দিয়ে সহযোগিতা করছে ইরান।