ঢাকা ০৩:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পোশাক শিল্পের সক্ষমতা বাড়াতে কাজ করবে বিজিএমইএ-জিআইজেড

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৪:০২:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মার্চ ২০২৩ ৭৮ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) এবং জার্মান ডেভলপমেন্ট কোঅপারেশন এজেন্সি, জিআইজেড বাংলাদেশের পোশাকখাতে মানবাধিকার এবং পরিবেশগত ডিউ ডিলিজেন্স শক্তিশালী করার লক্ষ্যে একসঙ্গে কাজ করবে। সহযোগিতার অংশ হিসেবে, বিজিএমইএ জিআইজেডের সহায়তায় সদস্য কারখানাগুলোর সাসটেইনেবিলিটি পারফরমেন্স সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ ও প্রকাশের জন্য একটি ইএসজি (পরিবেশ, সামাজিক ও গভর্ন্যান্স) ডিজিটাল ডেটা রিপোর্টিং প্লাটফর্ম তৈরি করবে।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) ঢাকার উত্তরায় বিজিএমইএ কমপ্লেক্সে বিজিএমইএ ও জিআইজেডের মধ্যে একটি সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বিজিএমইএ পক্ষে সভাপতি ফারুক হাসান এবং জিআইজেডের পক্ষে প্রকল্প ব্যবস্থাপক ড. মাইকেল ক্লোড সহযোগিতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

সহযোগিতা চুক্তি অনুসারে, বিজিএমইএ এবং জিআইজেড বিজিএমইএ এর সদস্য কারখানাগুলোর সাসটেইনেবিলিটি পারফরমেন্স সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ ও প্রকাশের জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম তৈরি, প্লাটফর্মকে কার্যকর করা এবং বাস্তবায়নের জন্য একসঙ্গে কাজ করবে। প্লাটফর্মটির রক্ষণাবেক্ষণ এবং সাসটেইনেবিলিটি পারফরমেন্স সংক্রান্ত ডেটা প্রকাশের বিষয়ে বিজিএমইএ এর সক্ষমতা তৈরি করাও সহযোগিতা চুক্তির লক্ষ্য।

বিজিএমইএ তার সদস্যভূক্ত কারখানাগুলো যাতে করে মানবাধিকার এবং পরিবেশগত ডিউ ডিলিজেন্স এর জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে পারে, সে লক্ষ্যে কারখানাগুলোকে সহায়তা করার জন্য সদস্যদের জন্য একটি ডিউ ডিলিজেন্স ইউনিট প্রতিষ্ঠা করবে।

এই ইউনিট পোশাক কারখানাগুলোকে তাদের উৎপাদন কর্মকান্ডের সঙ্গে পরিবেশগত এবং মানবাধিকারসংক্রান্ত ডিউ ডিলিজেন্স একীভূত করতে এবং ঝুঁকি কমানোর পদক্ষেপসমূহ বাস্তবায়নের বিষয়ে ক্রেতাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে ফ্যাক্টরি ম্যানেজমেন্ট এবং পোশাক কারখানাগুলোর সাসটেইনেবিলিটি কর্মকর্তা, সোশ্যাল কমপ্লায়েন্স কর্মকর্তা, এইচআর কর্মকর্তাসহ মিড-লেভেল ম্যানেজমেন্টকে সহযোগিতা করবে।

বিজিএমইএ-তে ডিউ ডিলিজেন্স ইউনিটের উদ্দেশ্য হলো ডিউ ডিলিজেন্স ও সাসটেইনেবিলিটি সম্পর্কিত আসন্ন আইনি পরিবর্তনগুলোর বিষয়ে বিজিএমইএ সদস্যদের জন্য ওয়ান-স্টপ সেবা প্রদান করা।

জিআইজেডকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি এই প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা সাসটেইনেবিলিটি এর দিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে যাবো এবং শ্রেষ্ঠত্বের প্রতীক হিসেবে সারা বিশ্বের কাছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগকে উপস্থাপন করতে সক্ষম হবো।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএর পরিচালক ব্যারিস্টার ভিদিয়া অমৃত খান, বিজিএমইএ স্ট্যান্ডিং কমিটি অন সাসটেইনেবিলিটির চেয়ারম্যান শেখ এম মুস্তাফিজ এবং জিআইজেডের টেকনিকাল অ্যাডভাইজর ড. কার্লা ডহমওয়ার্থ, মৌসুমী মার্গারেট চিরান এবং জুনিয়র অ্যাডভাইজর মাহমুদুল ইসলাম খান প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

পোশাক শিল্পের সক্ষমতা বাড়াতে কাজ করবে বিজিএমইএ-জিআইজেড

আপডেট সময় : ০৪:০২:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মার্চ ২০২৩

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) এবং জার্মান ডেভলপমেন্ট কোঅপারেশন এজেন্সি, জিআইজেড বাংলাদেশের পোশাকখাতে মানবাধিকার এবং পরিবেশগত ডিউ ডিলিজেন্স শক্তিশালী করার লক্ষ্যে একসঙ্গে কাজ করবে। সহযোগিতার অংশ হিসেবে, বিজিএমইএ জিআইজেডের সহায়তায় সদস্য কারখানাগুলোর সাসটেইনেবিলিটি পারফরমেন্স সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ ও প্রকাশের জন্য একটি ইএসজি (পরিবেশ, সামাজিক ও গভর্ন্যান্স) ডিজিটাল ডেটা রিপোর্টিং প্লাটফর্ম তৈরি করবে।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) ঢাকার উত্তরায় বিজিএমইএ কমপ্লেক্সে বিজিএমইএ ও জিআইজেডের মধ্যে একটি সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বিজিএমইএ পক্ষে সভাপতি ফারুক হাসান এবং জিআইজেডের পক্ষে প্রকল্প ব্যবস্থাপক ড. মাইকেল ক্লোড সহযোগিতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

সহযোগিতা চুক্তি অনুসারে, বিজিএমইএ এবং জিআইজেড বিজিএমইএ এর সদস্য কারখানাগুলোর সাসটেইনেবিলিটি পারফরমেন্স সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ ও প্রকাশের জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম তৈরি, প্লাটফর্মকে কার্যকর করা এবং বাস্তবায়নের জন্য একসঙ্গে কাজ করবে। প্লাটফর্মটির রক্ষণাবেক্ষণ এবং সাসটেইনেবিলিটি পারফরমেন্স সংক্রান্ত ডেটা প্রকাশের বিষয়ে বিজিএমইএ এর সক্ষমতা তৈরি করাও সহযোগিতা চুক্তির লক্ষ্য।

বিজিএমইএ তার সদস্যভূক্ত কারখানাগুলো যাতে করে মানবাধিকার এবং পরিবেশগত ডিউ ডিলিজেন্স এর জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে পারে, সে লক্ষ্যে কারখানাগুলোকে সহায়তা করার জন্য সদস্যদের জন্য একটি ডিউ ডিলিজেন্স ইউনিট প্রতিষ্ঠা করবে।

এই ইউনিট পোশাক কারখানাগুলোকে তাদের উৎপাদন কর্মকান্ডের সঙ্গে পরিবেশগত এবং মানবাধিকারসংক্রান্ত ডিউ ডিলিজেন্স একীভূত করতে এবং ঝুঁকি কমানোর পদক্ষেপসমূহ বাস্তবায়নের বিষয়ে ক্রেতাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে ফ্যাক্টরি ম্যানেজমেন্ট এবং পোশাক কারখানাগুলোর সাসটেইনেবিলিটি কর্মকর্তা, সোশ্যাল কমপ্লায়েন্স কর্মকর্তা, এইচআর কর্মকর্তাসহ মিড-লেভেল ম্যানেজমেন্টকে সহযোগিতা করবে।

বিজিএমইএ-তে ডিউ ডিলিজেন্স ইউনিটের উদ্দেশ্য হলো ডিউ ডিলিজেন্স ও সাসটেইনেবিলিটি সম্পর্কিত আসন্ন আইনি পরিবর্তনগুলোর বিষয়ে বিজিএমইএ সদস্যদের জন্য ওয়ান-স্টপ সেবা প্রদান করা।

জিআইজেডকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি এই প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা সাসটেইনেবিলিটি এর দিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে যাবো এবং শ্রেষ্ঠত্বের প্রতীক হিসেবে সারা বিশ্বের কাছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগকে উপস্থাপন করতে সক্ষম হবো।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএর পরিচালক ব্যারিস্টার ভিদিয়া অমৃত খান, বিজিএমইএ স্ট্যান্ডিং কমিটি অন সাসটেইনেবিলিটির চেয়ারম্যান শেখ এম মুস্তাফিজ এবং জিআইজেডের টেকনিকাল অ্যাডভাইজর ড. কার্লা ডহমওয়ার্থ, মৌসুমী মার্গারেট চিরান এবং জুনিয়র অ্যাডভাইজর মাহমুদুল ইসলাম খান প্রমুখ।