ঢাকা ১২:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

পাকিস্তানকে সুপার ওভারে হারিয়ে অঘটন যুক্তরাষ্ট্রের

ক্রীড়া ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১১:৪৪:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪ ১৫ বার পড়া হয়েছে

যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর শুরু হয়েছে ২ জুন। আর আজ স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মিশন শুরু করেছে পাকিস্তান। এদিকে এবারই প্রথম বাইশ গজের মাঠে মোনাক প্যাটেলদের সঙ্গে মুখোমুখি হয়েছে বাবররা। এমন ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রানের লড়াকু পুজি পায় ম্যান ইন গ্রিনরা।

সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে জয়ের আশা জাগিয়েও শেষে ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ থামে যুক্তরাষ্ট্র। তাতে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ের ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। যেখানে সুপার ওভারে পকিস্তানকে ১৯ রানের লক্ষ্য দেয় যুক্তরাষ্ট্র। সেই রান তাড়া করতে নেমে ১৩ রানে থামে বাবররা। তাতে অঘটন ঘটিয়ে ৫ রানের জয় পায় মোনাক প্যাটেলের দল। আর এর মধ্যে দিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে প্রথম আর্ন্তজার্তিক ও বিশ্বকাপের মঞ্চে দেখায় জয় পায় তারা।

পাকিস্তানের দেওয়া ১৬০ রানের লক্ষ্য যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ইনিংস শুরু করতে আসেন স্টিভেন টেইলর ও মোনাক প্যাটেল। এই দুই ওপেনারে উড়ন্ত সূচনা পায় স্বাগতিকরা। ৩৬ রান যোগ করেন এই দুই ওপেনার। তবে ১৬ বলে ১২ রান করে ফিরে যান টেইলর। এরপর ক্রিজে আসা অ্যান্ড্রিস গাউসকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন অধিনায়ক মোনাক।

দ্বিতীয় উইকেটে ৬৮ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। সাবলীল ব্যাটিংয়ে নিজের অর্ধশতক তুলে নেন মোনাক। তাদের ব্যাটে জয়ে ভিত পায় যুক্তরাষ্ট্র। তবে দ্রুত জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পরে স্বাগতিকরা। গাউস ২৬ বলে ৩৫ ও মোনাক ৩৮ বলে ৫০ রান করে আউট হন।

তাদের বিদায়ের পর রানের চাকা সচল রাখেন অ্যারন জোন্স ও নিতিশ কুমার। শেষ ওভারে যুক্তরাষ্ট্রের জয়ের জন্য দাড়ায় ১৫ রান। রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের শেষ বলে যুক্তরাষ্টের জিততে প্রয়োজন ৫ রানের। সেই বলে চার মারলে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। যেখানে সুপার ওভারে পকিস্তানকে ১৯ রানের লক্ষ্য দেয় যুক্তরাষ্ট্র। সেই রান তাড়া করতে নেমে ১৩ রানে থামে বাবররা। তাতে ৫ রানের জয় পায় মোনাক প্যাটেলের দল। আর এর মধ্যে দিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে প্রথম আর্ন্তজার্তিক ও বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথম দেখায় জয়ের দেখা পায়।

এর আগে ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে ম্যান ইন গ্রিনরা। যুক্তরাষ্ট্রের বোলারদের তোপের মুখে দলীয় ২৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। মোহাম্মদ রিজওয়ান ৮ বলে ৯, উসমান খান বলে ৩ ও ফকর জামান ৭ বলে ১১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান।

সেখান থেকে শাদাব খানকে সঙ্গে নিয়ে চাপ সামাল দেন অধিনায়ক বাবর। ৭২ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। এরপর দ্রুতই জোড়া উইকেট হারিয়ে আবারও চাপে পরে পাকিস্তান। শাদাব ২৫ বলে ৪০ ও রানের খাতা খোলার আগেই আউট হন আজম খান।

দলীয় ১২৫ রানে ৪৩ বলে ৪৪ রান করে ফিরে যান বাবর আজমও। শেষ দিকে ইফতিখার আহমেদের ১৪ বলে ১৮ ও শাহিন আফ্রিদির ১৬ বলে ২৩ রানে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন সৌরভ নেত্রাভালকার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

পাকিস্তানকে সুপার ওভারে হারিয়ে অঘটন যুক্তরাষ্ট্রের

আপডেট সময় : ১১:৪৪:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর শুরু হয়েছে ২ জুন। আর আজ স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মিশন শুরু করেছে পাকিস্তান। এদিকে এবারই প্রথম বাইশ গজের মাঠে মোনাক প্যাটেলদের সঙ্গে মুখোমুখি হয়েছে বাবররা। এমন ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রানের লড়াকু পুজি পায় ম্যান ইন গ্রিনরা।

সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে জয়ের আশা জাগিয়েও শেষে ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ থামে যুক্তরাষ্ট্র। তাতে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ের ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। যেখানে সুপার ওভারে পকিস্তানকে ১৯ রানের লক্ষ্য দেয় যুক্তরাষ্ট্র। সেই রান তাড়া করতে নেমে ১৩ রানে থামে বাবররা। তাতে অঘটন ঘটিয়ে ৫ রানের জয় পায় মোনাক প্যাটেলের দল। আর এর মধ্যে দিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে প্রথম আর্ন্তজার্তিক ও বিশ্বকাপের মঞ্চে দেখায় জয় পায় তারা।

পাকিস্তানের দেওয়া ১৬০ রানের লক্ষ্য যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ইনিংস শুরু করতে আসেন স্টিভেন টেইলর ও মোনাক প্যাটেল। এই দুই ওপেনারে উড়ন্ত সূচনা পায় স্বাগতিকরা। ৩৬ রান যোগ করেন এই দুই ওপেনার। তবে ১৬ বলে ১২ রান করে ফিরে যান টেইলর। এরপর ক্রিজে আসা অ্যান্ড্রিস গাউসকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন অধিনায়ক মোনাক।

দ্বিতীয় উইকেটে ৬৮ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। সাবলীল ব্যাটিংয়ে নিজের অর্ধশতক তুলে নেন মোনাক। তাদের ব্যাটে জয়ে ভিত পায় যুক্তরাষ্ট্র। তবে দ্রুত জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পরে স্বাগতিকরা। গাউস ২৬ বলে ৩৫ ও মোনাক ৩৮ বলে ৫০ রান করে আউট হন।

তাদের বিদায়ের পর রানের চাকা সচল রাখেন অ্যারন জোন্স ও নিতিশ কুমার। শেষ ওভারে যুক্তরাষ্ট্রের জয়ের জন্য দাড়ায় ১৫ রান। রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের শেষ বলে যুক্তরাষ্টের জিততে প্রয়োজন ৫ রানের। সেই বলে চার মারলে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। যেখানে সুপার ওভারে পকিস্তানকে ১৯ রানের লক্ষ্য দেয় যুক্তরাষ্ট্র। সেই রান তাড়া করতে নেমে ১৩ রানে থামে বাবররা। তাতে ৫ রানের জয় পায় মোনাক প্যাটেলের দল। আর এর মধ্যে দিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে প্রথম আর্ন্তজার্তিক ও বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথম দেখায় জয়ের দেখা পায়।

এর আগে ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে ম্যান ইন গ্রিনরা। যুক্তরাষ্ট্রের বোলারদের তোপের মুখে দলীয় ২৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। মোহাম্মদ রিজওয়ান ৮ বলে ৯, উসমান খান বলে ৩ ও ফকর জামান ৭ বলে ১১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান।

সেখান থেকে শাদাব খানকে সঙ্গে নিয়ে চাপ সামাল দেন অধিনায়ক বাবর। ৭২ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। এরপর দ্রুতই জোড়া উইকেট হারিয়ে আবারও চাপে পরে পাকিস্তান। শাদাব ২৫ বলে ৪০ ও রানের খাতা খোলার আগেই আউট হন আজম খান।

দলীয় ১২৫ রানে ৪৩ বলে ৪৪ রান করে ফিরে যান বাবর আজমও। শেষ দিকে ইফতিখার আহমেদের ১৪ বলে ১৮ ও শাহিন আফ্রিদির ১৬ বলে ২৩ রানে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন সৌরভ নেত্রাভালকার।