ঢাকা ১১:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নবগঠিত কমিটির যাত্রা শুরু চালের বস্তায় দামসহ থাকতে হবে সব তথ্য, পরিপত্র জারি টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম ১০ হাজারে শীর্ষে বাবর অমর একুশে ময়মনসিংহে শহীদ বেদীতে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন ১৯৩ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা অনুমোদন ইইউ’র স্মার্ট হতে ইংরেজিতে কথা বলতে হবে তা ঠিক নয়: প্রধানমন্ত্রী ভাষা শহীদদের স্মরণে দেশের প্রথম শহীদ মিনারে আরসিআরইউ’র শ্রদ্ধা স্মার্ট ত্রিশাল উপজেলা গড়তে জনগণের সেবক হতে চান’যুবনেতা জুয়েল সরকার পুঠিয়ায় শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত চুরির অপবাদ সইতে না পেরে পুঠিয়ায় নৈশ্য প্রহোরীর আত্মহত্যা

পঞ্চগড়ের ঘটনায় সরকার জড়িত: মির্জা ফখরুল

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৯:০৫:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩ ৬২ বার পড়া হয়েছে

পঞ্চগড়ের ঘটনায় প্রকৃত দোষীদের আড়াল করার জন্য বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর দোষ চাপানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সেই সঙ্গে তিনি বলেছেন, আমি খুব দৃঢ়তার সঙ্গে বলছি- এই ঘটনার সঙ্গে সরকার সরাসরিভাবে জড়িত। তাদের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ মদদে এই ঘটনা ঘটেছে। এর দায়-দায়িত্ব সম্পূর্ণভাবে সরকারকে নিতে হবে।

সোমবার (১৩ মার্চ) ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির বর্ধিত সভায় এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, গণতন্ত্রের জন্য, অধিকার আদায়ের জন্য মানুষ যে আন্দোলন শুরু করেছে এবং সোচ্চার হয়ে উঠেছে, আন্দোলনে যখন সোচ্চার হয়ে উঠেছে, যখন বিস্ফোরণের দিকে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে, তখনই সরকার পরিকল্পিতভাবে সাম্প্রদায়িক ঘটনা ঘটিয়ে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চায়। একই সঙ্গে তারা বিএনপির ভাবমূর্তিকে ক্ষুণ্ণ করতে চায়।বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, তারা সবসময় ঘটনা ঘটাবে এবং বিএনপির ওপর দোষ চাপাবে। অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি- সরকার পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা পরিচালনা করেছেন।

পঞ্চগড়ে প্রকৃতপক্ষে একটি ত্রাসের রাজত্ব তৈরি হয়েছে উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, নেতাকর্মী-সমর্থকরা কেউ বাসায় থাকতে পারছে না, তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছে পুলিশের অভিযানের ভয়ে। সরকার তাদের জলসা করার জন্য অনুমতি দিয়েছে, কিন্তু তাদের দায়িত্ব ছিল ফুল প্রটেকশন দেওয়া, সেটা তারা দেয়নি। সেই জায়গায় কেন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হলো না? যেই ঘটনা ঘটল সেটার জন্য সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে সরকার, অথচ সেটা না করে শুধু বিএনপিকে দোষারোপ করা হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের যে রাজনীতি, এখানে পরস্পরের প্রতি যে অনাস্থা-বিশ্বাসযোগ্যতার অভাব তাতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারি হচ্ছে একমাত্র সমাধান। যার মধ্যদিয়ে আমরা রাজনৈতিক সংকট কাটিয়ে উঠতে পারি।

সভায় জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান ও ঠাকুরগাঁও-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমান জাহিদসহ জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

পঞ্চগড়ের ঘটনায় সরকার জড়িত: মির্জা ফখরুল

আপডেট সময় : ০৯:০৫:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

পঞ্চগড়ের ঘটনায় প্রকৃত দোষীদের আড়াল করার জন্য বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর দোষ চাপানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সেই সঙ্গে তিনি বলেছেন, আমি খুব দৃঢ়তার সঙ্গে বলছি- এই ঘটনার সঙ্গে সরকার সরাসরিভাবে জড়িত। তাদের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ মদদে এই ঘটনা ঘটেছে। এর দায়-দায়িত্ব সম্পূর্ণভাবে সরকারকে নিতে হবে।

সোমবার (১৩ মার্চ) ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির বর্ধিত সভায় এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, গণতন্ত্রের জন্য, অধিকার আদায়ের জন্য মানুষ যে আন্দোলন শুরু করেছে এবং সোচ্চার হয়ে উঠেছে, আন্দোলনে যখন সোচ্চার হয়ে উঠেছে, যখন বিস্ফোরণের দিকে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে, তখনই সরকার পরিকল্পিতভাবে সাম্প্রদায়িক ঘটনা ঘটিয়ে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চায়। একই সঙ্গে তারা বিএনপির ভাবমূর্তিকে ক্ষুণ্ণ করতে চায়।বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, তারা সবসময় ঘটনা ঘটাবে এবং বিএনপির ওপর দোষ চাপাবে। অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি- সরকার পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা পরিচালনা করেছেন।

পঞ্চগড়ে প্রকৃতপক্ষে একটি ত্রাসের রাজত্ব তৈরি হয়েছে উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, নেতাকর্মী-সমর্থকরা কেউ বাসায় থাকতে পারছে না, তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছে পুলিশের অভিযানের ভয়ে। সরকার তাদের জলসা করার জন্য অনুমতি দিয়েছে, কিন্তু তাদের দায়িত্ব ছিল ফুল প্রটেকশন দেওয়া, সেটা তারা দেয়নি। সেই জায়গায় কেন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হলো না? যেই ঘটনা ঘটল সেটার জন্য সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে সরকার, অথচ সেটা না করে শুধু বিএনপিকে দোষারোপ করা হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের যে রাজনীতি, এখানে পরস্পরের প্রতি যে অনাস্থা-বিশ্বাসযোগ্যতার অভাব তাতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারি হচ্ছে একমাত্র সমাধান। যার মধ্যদিয়ে আমরা রাজনৈতিক সংকট কাটিয়ে উঠতে পারি।

সভায় জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান ও ঠাকুরগাঁও-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমান জাহিদসহ জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।