ঢাকা ০১:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নৌকায় ভোট দেওয়ায় হাওরে আর দুর্দিন নেই: প্রধানমন্ত্রী

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১২:০২:০৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ৯১ বার পড়া হয়েছে

বারবার নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে সরকার গঠনের সুযোগ করে দেওয়ায় হাওরে দুর্দিন কেটে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পিছিয়ে পড়া হাওরে এখন উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে বলে জানান তিনি। এজন্য হাওরের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট চাইলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী জানান, এখন থেকে হাওরের সব সেতু উড়াল হবে। হাওরের সড়কগুলোতে যেন সারা বছর যাতায়াত করা যায় সেই ব্যবস্থা সরকার করছে। এছাড়া হাওরের ফসল রক্ষায় বাঁধ নির্মাণ, নদী ট্রেজিংসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা তার সরকার নেবে।

শেখ হাসিনা জানান, এক সময় কিশোরগঞ্জ ছিল অবহেলিত অঞ্চল। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর কিশোরগঞ্জে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে, যার কারণে এখন আর কিশোরগঞ্জ অবহেলিত নয়, উন্নত একটি জেলা।

আওয়ামী লীগ সভাপতি কিশোরগঞ্জের মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আপনারা গত তিনটি নির্বাচনে এই জেলার প্রতিটি সিট নৌকা মার্কাকে উপহার দিয়েছেন। আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন বলেই আজ কিশোরগঞ্জের এত উন্নয়ন হচ্ছে। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি।

PP2

এ সময় তিনি কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটন-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য ও রাষ্ট্রপতিপুত্র রেজোয়ান আহাম্মদ তৌফিককে আবারও ভোট দিয়ে বিজয়ী করতে উপস্থিত জনতার কাছ থেকে হাত তুলে ওয়াদা নেন।

প্রধানমন্ত্রী কিশোরগঞ্জের মানুষের প্রশংসা করে বলেন, এই কিশোরগঞ্জ তিনজন রাষ্ট্রপতির জেলা। মুক্তিযুদ্ধের সময় অস্থায়ী সরকারের প্রধান ছিলেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম। রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ও আবদুল হামিদ এই জেলার কৃতি সন্তান। আসলে কিশোরগঞ্জ সবসময় রাষ্ট্রের প্রধান হয়ে বাংলাদেশ পরিচালনা করে আসছে।

প্রায় ২৫ বছর পর কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে সফরে আসেন প্রধানমন্ত্রী। সকাল ১০টা ৫৫ মিনিটে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকা থেকে মিঠামইনে পৌঁছান সরকারপ্রধান। সেখানে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হামিদ সেনানিবাসের উদ্বোধন করেন তিনি। পরে দুপুরে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন শেখ হাসিনা। সেখানে তাকে হাওরের নানা পদের মাছ দিয়ে আপ্যায়ন করেন রাষ্ট্রপতি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

নৌকায় ভোট দেওয়ায় হাওরে আর দুর্দিন নেই: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১২:০২:০৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

বারবার নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে সরকার গঠনের সুযোগ করে দেওয়ায় হাওরে দুর্দিন কেটে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পিছিয়ে পড়া হাওরে এখন উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে বলে জানান তিনি। এজন্য হাওরের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট চাইলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী জানান, এখন থেকে হাওরের সব সেতু উড়াল হবে। হাওরের সড়কগুলোতে যেন সারা বছর যাতায়াত করা যায় সেই ব্যবস্থা সরকার করছে। এছাড়া হাওরের ফসল রক্ষায় বাঁধ নির্মাণ, নদী ট্রেজিংসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা তার সরকার নেবে।

শেখ হাসিনা জানান, এক সময় কিশোরগঞ্জ ছিল অবহেলিত অঞ্চল। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর কিশোরগঞ্জে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে, যার কারণে এখন আর কিশোরগঞ্জ অবহেলিত নয়, উন্নত একটি জেলা।

আওয়ামী লীগ সভাপতি কিশোরগঞ্জের মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আপনারা গত তিনটি নির্বাচনে এই জেলার প্রতিটি সিট নৌকা মার্কাকে উপহার দিয়েছেন। আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন বলেই আজ কিশোরগঞ্জের এত উন্নয়ন হচ্ছে। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি।

PP2

এ সময় তিনি কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটন-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য ও রাষ্ট্রপতিপুত্র রেজোয়ান আহাম্মদ তৌফিককে আবারও ভোট দিয়ে বিজয়ী করতে উপস্থিত জনতার কাছ থেকে হাত তুলে ওয়াদা নেন।

প্রধানমন্ত্রী কিশোরগঞ্জের মানুষের প্রশংসা করে বলেন, এই কিশোরগঞ্জ তিনজন রাষ্ট্রপতির জেলা। মুক্তিযুদ্ধের সময় অস্থায়ী সরকারের প্রধান ছিলেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম। রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ও আবদুল হামিদ এই জেলার কৃতি সন্তান। আসলে কিশোরগঞ্জ সবসময় রাষ্ট্রের প্রধান হয়ে বাংলাদেশ পরিচালনা করে আসছে।

প্রায় ২৫ বছর পর কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে সফরে আসেন প্রধানমন্ত্রী। সকাল ১০টা ৫৫ মিনিটে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকা থেকে মিঠামইনে পৌঁছান সরকারপ্রধান। সেখানে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হামিদ সেনানিবাসের উদ্বোধন করেন তিনি। পরে দুপুরে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন শেখ হাসিনা। সেখানে তাকে হাওরের নানা পদের মাছ দিয়ে আপ্যায়ন করেন রাষ্ট্রপতি।