ঢাকা ০৪:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

‘নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে’

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৪:৪৮:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ জানুয়ারী ২০২৩ ৮৫ বার পড়া হয়েছে

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, যারা গণতন্ত্রকে হত্যা করে একদলীয় ব্যবস্থা কায়েম করেছে, তারাই এখন গণতন্ত্রের চ্যাম্পিয়ন দাবি করে। তখন কষ্ট হয়। গণতন্ত্রতো ক্ষমতায় যাবার বাহন না। গণতন্ত্রের বাহন হলো নির্বাচন। নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে। আপনারা (সরকার) সেই নির্বাচন ধ্বংস করে বলবেন, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবেন এটা বলতে পারেন না।

সোমবার (২ জানুয়ারি) দুপুরে প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ মুসলিম লীগের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সম্মেলনে শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরীকে সভাপতি ও নজরুল ইসলামকে মহাসচিব ঘোষণা করা হয়।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করলে আন্দোলনে জয়ী হওয়া যায় না। ক্ষমতায় যাওয়া যায় না। তারা (আওয়ামী লীগ) জানে এটা। জানার পরেও তারা একই ভুল করছে। ক্ষমতা কি মানুষকে এতই অন্ধ করে।

তিনি বলেন, ‘আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধে ছিলাম, আক্ষেপটা বোধহয় তাদেরই বেশি। কি ভেবে, কি চিন্তা করে, কি আশা নিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়েছিলাম। আর কি পেয়েছি। কত রঙ, কত রকমের কথা শুনেছিলাম আমরা, বাংলাদেশ সোনার বাংলা হবে। বাংলাদেশকে কত কি করা হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ করা হবে। এখন স্মার্ট বাংলাদেশ করা হবে শুনেছি। সে দেশে দুর্ভিক্ষ দেখেছি, অনাচার দেখেছি, অব্যবস্থাপনা দেখেছি। শেষ পর্যন্ত সেদেশে গণতন্ত্রহীনতা দেখেছি, একদলীয় শাসন ব্যবস্থা দেখেছি। এগুলোর কোনোটা সোনার মতো মূল্যবান না।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মুসলিম লীগের সভাপতি শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী। এসময় বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির (জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) ইবরাহীম, গণফোরামের সভাপতি মোস্তফা মহসিন মন্টু, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, এলডিপির একাংশের মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, জাতীয় দলের চেয়ারম্যান এহসানুল হুদা, এনডিপির চেয়ারম্যান কারি আবু তাহের, জাগপার জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি রাশেদ প্রধান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহিউদ্দিন একরাম, ইসলামি ঐক্য জোটের মহাসচিব মাওলানা আব্দুল করিম, মুসলিম লীগের মহাসচিব মো. নজরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যক্ষ শাহ আলম, মুক্তার আহমেদ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

‘নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে’

আপডেট সময় : ০৪:৪৮:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ জানুয়ারী ২০২৩

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, যারা গণতন্ত্রকে হত্যা করে একদলীয় ব্যবস্থা কায়েম করেছে, তারাই এখন গণতন্ত্রের চ্যাম্পিয়ন দাবি করে। তখন কষ্ট হয়। গণতন্ত্রতো ক্ষমতায় যাবার বাহন না। গণতন্ত্রের বাহন হলো নির্বাচন। নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে। আপনারা (সরকার) সেই নির্বাচন ধ্বংস করে বলবেন, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবেন এটা বলতে পারেন না।

সোমবার (২ জানুয়ারি) দুপুরে প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ মুসলিম লীগের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সম্মেলনে শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরীকে সভাপতি ও নজরুল ইসলামকে মহাসচিব ঘোষণা করা হয়।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করলে আন্দোলনে জয়ী হওয়া যায় না। ক্ষমতায় যাওয়া যায় না। তারা (আওয়ামী লীগ) জানে এটা। জানার পরেও তারা একই ভুল করছে। ক্ষমতা কি মানুষকে এতই অন্ধ করে।

তিনি বলেন, ‘আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধে ছিলাম, আক্ষেপটা বোধহয় তাদেরই বেশি। কি ভেবে, কি চিন্তা করে, কি আশা নিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়েছিলাম। আর কি পেয়েছি। কত রঙ, কত রকমের কথা শুনেছিলাম আমরা, বাংলাদেশ সোনার বাংলা হবে। বাংলাদেশকে কত কি করা হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ করা হবে। এখন স্মার্ট বাংলাদেশ করা হবে শুনেছি। সে দেশে দুর্ভিক্ষ দেখেছি, অনাচার দেখেছি, অব্যবস্থাপনা দেখেছি। শেষ পর্যন্ত সেদেশে গণতন্ত্রহীনতা দেখেছি, একদলীয় শাসন ব্যবস্থা দেখেছি। এগুলোর কোনোটা সোনার মতো মূল্যবান না।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মুসলিম লীগের সভাপতি শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী। এসময় বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির (জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) ইবরাহীম, গণফোরামের সভাপতি মোস্তফা মহসিন মন্টু, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, এলডিপির একাংশের মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, জাতীয় দলের চেয়ারম্যান এহসানুল হুদা, এনডিপির চেয়ারম্যান কারি আবু তাহের, জাগপার জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি রাশেদ প্রধান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহিউদ্দিন একরাম, ইসলামি ঐক্য জোটের মহাসচিব মাওলানা আব্দুল করিম, মুসলিম লীগের মহাসচিব মো. নজরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যক্ষ শাহ আলম, মুক্তার আহমেদ প্রমুখ।