ঢাকা ০২:৫৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নরসিংদীতে ব্যাংকের ভেতরে মিলল ২ আনসারের মরদেহ

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:৩০:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ ৭২ বার পড়া হয়েছে

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার অগ্রণী ব্যাংক থেকে দুই আনসার সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে উপজেলার আদিয়াবাদ ইউনিয়নে রাধাগঞ্জ বাজারে অগ্রণী ব্যাংক রাধাগঞ্জ শাখায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- অগ্রণী ব্যাংক রাধাগঞ্জ শাখায় কর্মরত আনসার সদস্য রঞ্জু মিয়া ওরফে রঞ্জন (৩৫) এবং তৌহিদুল আলম (২৪)। রঞ্জুর গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলে এবং তৌহিদুলের গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙা উপজেলায়।

মরদেহ দেখে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে মরদেহ উদ্ধার করে। ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রায়পুরা সার্কেল সত্যজিৎ কুমার ঘোষ।

নরসিংদী আঞ্চলিক শাখার মহাব্যবস্থাপক (জিএম) হাসিবুল হোসেন শান্ত সাংবাদিকদের বলেন, ব্যাংকের সবকিছু ঠিকঠাক রয়েছে। ব্যাংকে কোনো ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। রঞ্জু এক বছরের অধিক সময় ধরে ব্যাংকটিতে কর্মরত ছিল এবং তৌহিদ প্রায় ৬ মাস ধরে ব্যাংকটিতে কর্মরত। এ বিষয়টি নিয়ে জেলার পুলিশ, ডিবি, সিআইডি কাজ করছে। খুব দ্রুত সঠিক ঘটনাটি বেরিয়ে আসবে।

বিষয়টি নিয়ে আদিয়াবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মো. সেলিম মিয়া জানান, ব্যাংকটির আনসার সদস্য দুজন একসঙ্গেই ব্যাংকের গোডাউনের থাকতেন। ধারণা করা হচ্ছে তাদের খাবারে কোনো সমস্যা ছিলো। বৈদ্যুতিক শক, ডেট ওভার কিংবা খাবারে বিষক্রিয়ায় এ ঘটনা ঘটতে পারে। প্রশাসনের লোকজন এসেছেন ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

নরসিংদীতে ব্যাংকের ভেতরে মিলল ২ আনসারের মরদেহ

আপডেট সময় : ১০:৩০:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার অগ্রণী ব্যাংক থেকে দুই আনসার সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে উপজেলার আদিয়াবাদ ইউনিয়নে রাধাগঞ্জ বাজারে অগ্রণী ব্যাংক রাধাগঞ্জ শাখায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- অগ্রণী ব্যাংক রাধাগঞ্জ শাখায় কর্মরত আনসার সদস্য রঞ্জু মিয়া ওরফে রঞ্জন (৩৫) এবং তৌহিদুল আলম (২৪)। রঞ্জুর গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলে এবং তৌহিদুলের গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙা উপজেলায়।

মরদেহ দেখে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে মরদেহ উদ্ধার করে। ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রায়পুরা সার্কেল সত্যজিৎ কুমার ঘোষ।

নরসিংদী আঞ্চলিক শাখার মহাব্যবস্থাপক (জিএম) হাসিবুল হোসেন শান্ত সাংবাদিকদের বলেন, ব্যাংকের সবকিছু ঠিকঠাক রয়েছে। ব্যাংকে কোনো ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। রঞ্জু এক বছরের অধিক সময় ধরে ব্যাংকটিতে কর্মরত ছিল এবং তৌহিদ প্রায় ৬ মাস ধরে ব্যাংকটিতে কর্মরত। এ বিষয়টি নিয়ে জেলার পুলিশ, ডিবি, সিআইডি কাজ করছে। খুব দ্রুত সঠিক ঘটনাটি বেরিয়ে আসবে।

বিষয়টি নিয়ে আদিয়াবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মো. সেলিম মিয়া জানান, ব্যাংকটির আনসার সদস্য দুজন একসঙ্গেই ব্যাংকের গোডাউনের থাকতেন। ধারণা করা হচ্ছে তাদের খাবারে কোনো সমস্যা ছিলো। বৈদ্যুতিক শক, ডেট ওভার কিংবা খাবারে বিষক্রিয়ায় এ ঘটনা ঘটতে পারে। প্রশাসনের লোকজন এসেছেন ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।