ঢাকা ০৯:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ছাত্রদলের নতুন সভাপতি রাকিব, সাধারণ সম্পাদক নাসির জ্বালানি তেলের স্বয়ংক্রিয় দাম নির্ধারণে প্রজ্ঞাপন জারি খাবার সংগ্রহে লাইনে দাঁড়ানো ফিলিস্তিনিদের গুলি, নিহত ১১২ রাজশাহীতে ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের অভিযান না থাকায় ক্রমেই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম ঘুড়ি প্রতীকের বিজয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা চান কাউন্সিলর প্রার্থী আসলাম ‘অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানোর নির্দেশ দিলেও মানা হচ্ছে না’ নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রীকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি ২৩নং ওয়ার্ডকে পরিকল্পিত আধুনিক এলাকা গড়তে চান – রানা বেইলি রোডে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে নিহত ৪৪ চাঁপাইনবাবগঞ্জে জমি জবরদখল ও গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ধামইরহাট সীমান্তে ৬ টি স্বর্ণের বারসহ চোরাকারবারী আটক

নওগাঁ প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৯:২৬:১৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩ ৭৪ বার পড়া হয়েছে

নওগাঁর ধামইরহাট সীমান্তে ভারতে পাচারকালে ৬ টি স্বর্ণের বারসহ কিবরিয়া (৩৫) নামে এক চোরাকারবারীকে আটক করেছে ১৪ বিজিবি।

শুক্রবার ( ২৮ এপ্রিল) দুপুরে পত্নীতলা ১৪ বিজিবি ব্যাটালিয়ন ক্যাম্পে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন পত্নীতলা ব্যাটালিয়ন ১৪ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল হামিদ উদ্দিন।

আটক কিবরিয়া ধামইরহাট উপজেলার চকশব্দল গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে।

সম্মেলনে অধিনায়ক লে. কর্নেল হামিদ উদ্দিন জানান, সীমান্তে আটক কিবরিয়া দীর্ঘদিন যাবত মাদক চোরাকারবারি সাথে জড়িত।

এর আগে থানায় তার বিরুদ্ধে মাদক পাচারের মামলাও রয়েছে। সম্প্রতি সে সোনা চোরাচালানের সাথে জড়িত এমন একটি তথ্য বিজিবির হাতে আসে। এরপর থেকে গত বেশ কিছুইদিন যাবত তার চলাফেরা মনিটরিং করছিলো বিজিবি।

এরই ধারাবাহিকতায় বিজিবির পত্নীতলা ব্যাটালিয়নের স্পেশাল অপারেশন টিম গতকাল রাতে উপজেলার সীমান্ত লাগুয়া চকিলাম গ্রাম থেকে তাকে আটক করে।

এরপর তার শরীরে তল্লাশি চালিয়ে ৬৯৯.৪৮গ্রাম ওজনের ৬ টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার বাজার মুল্য তেপান্ন লক্ষ্য তেরো হাজার দুইশত একত্রিশ টাকা।

বিজিবি অধিনায়ক আরও জানান, সোনা চোরাকারবারি সাথে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা বিষয়টি বিজিবি মনিটরিং করছে। আমরা আশা করি এমন অপরাধ দমনে আমরা সফল হতে পারবো।

আটকের পর আসামিকে ধামইরহাট থানায় হস্তান্তর করা হবে। এবং উদ্ধার হওয়া স্বর্ণের বারগুলো নওগাঁ ট্রেজারী অফিসে হস্তান্তরে প্রক্রিয়া চলছে।

অন্যদিকে ধামইরহাট সীমান্তের পৃথক স্থানে ভারত থেকে বাংলাদেশে অবৈধভাবে পাচারকালে ভারতীয় কসমেটিকস ও শিশু খাদ্য উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মুল্য ৮ লক্ষ্য টাকা।

বিজিবি জানায়, চোরাকারবারিরা ভারত থেকে পণ্যগুলো বাংলাদেশ অবৈধভাবে নিয়ে আসছিল। এসময় বিজিবির উপস্থিতি বুঝতে পেরে পণ্যগুলো ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে বিজিবি সদস্যরা সেগুলো উদ্ধার করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

ধামইরহাট সীমান্তে ৬ টি স্বর্ণের বারসহ চোরাকারবারী আটক

আপডেট সময় : ০৯:২৬:১৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

নওগাঁর ধামইরহাট সীমান্তে ভারতে পাচারকালে ৬ টি স্বর্ণের বারসহ কিবরিয়া (৩৫) নামে এক চোরাকারবারীকে আটক করেছে ১৪ বিজিবি।

শুক্রবার ( ২৮ এপ্রিল) দুপুরে পত্নীতলা ১৪ বিজিবি ব্যাটালিয়ন ক্যাম্পে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন পত্নীতলা ব্যাটালিয়ন ১৪ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল হামিদ উদ্দিন।

আটক কিবরিয়া ধামইরহাট উপজেলার চকশব্দল গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে।

সম্মেলনে অধিনায়ক লে. কর্নেল হামিদ উদ্দিন জানান, সীমান্তে আটক কিবরিয়া দীর্ঘদিন যাবত মাদক চোরাকারবারি সাথে জড়িত।

এর আগে থানায় তার বিরুদ্ধে মাদক পাচারের মামলাও রয়েছে। সম্প্রতি সে সোনা চোরাচালানের সাথে জড়িত এমন একটি তথ্য বিজিবির হাতে আসে। এরপর থেকে গত বেশ কিছুইদিন যাবত তার চলাফেরা মনিটরিং করছিলো বিজিবি।

এরই ধারাবাহিকতায় বিজিবির পত্নীতলা ব্যাটালিয়নের স্পেশাল অপারেশন টিম গতকাল রাতে উপজেলার সীমান্ত লাগুয়া চকিলাম গ্রাম থেকে তাকে আটক করে।

এরপর তার শরীরে তল্লাশি চালিয়ে ৬৯৯.৪৮গ্রাম ওজনের ৬ টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার বাজার মুল্য তেপান্ন লক্ষ্য তেরো হাজার দুইশত একত্রিশ টাকা।

বিজিবি অধিনায়ক আরও জানান, সোনা চোরাকারবারি সাথে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা বিষয়টি বিজিবি মনিটরিং করছে। আমরা আশা করি এমন অপরাধ দমনে আমরা সফল হতে পারবো।

আটকের পর আসামিকে ধামইরহাট থানায় হস্তান্তর করা হবে। এবং উদ্ধার হওয়া স্বর্ণের বারগুলো নওগাঁ ট্রেজারী অফিসে হস্তান্তরে প্রক্রিয়া চলছে।

অন্যদিকে ধামইরহাট সীমান্তের পৃথক স্থানে ভারত থেকে বাংলাদেশে অবৈধভাবে পাচারকালে ভারতীয় কসমেটিকস ও শিশু খাদ্য উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মুল্য ৮ লক্ষ্য টাকা।

বিজিবি জানায়, চোরাকারবারিরা ভারত থেকে পণ্যগুলো বাংলাদেশ অবৈধভাবে নিয়ে আসছিল। এসময় বিজিবির উপস্থিতি বুঝতে পেরে পণ্যগুলো ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে বিজিবি সদস্যরা সেগুলো উদ্ধার করে।