ঢাকা ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিককে পেটালেন পুলিশ

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৬:৩৫:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ জুন ২০২৩ ৫৬ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের শেষ মুহূর্তে দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিককে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২১ জুন) রাত ৯টা ২২ মিনিটে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সরাতে লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। এ সময় সরাসরি সম্প্রচারে ছিলেন বেশ কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মী। জাগো নিউজের সরাসরি সম্প্রচারে (লাইভ) ছিলেন ঢাকা কলেজের ক্যাম্পাস প্রতিবেদক মো. নাহিদ হাসান (নাহিদ সাব্বির)। এ সময় এক উপ-পুলিশ পরিদর্শক এসে তাকে চড়-থাপ্পড় দিতে থাকেন। নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিলেও পুলিশ চড়-থাপ্পড় দিয়ে এই সাংবাদিকে হেনস্থা করেন। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনাস্থলে নিউজ কভারেজ করা উপস্থিত সাংবাদিকরাও এই ঘটনার প্রতিবাদ করেন।

ভুক্তভোগী নাহিদ বলেন, আমি লাইভ সম্প্রচারে ছিলাম। আমার গলায় জাগো নিউজের আইডি কার্ড ছিল। এ সময় এক পুলিশ সদস্য এসে আমাকে চড়-থাপ্পড় দিতে থাকেন। আমি সাংবাদিক পরিচয় দিলেও আমাকে চড় মারেন ও হেনস্থা করেন। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তিনি বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে। গণমাধ্যমকর্মীরা নিরাপদ দূরত্বে থেকেই তাদের দায়িত্ব পালন করছিলেন। পুলিশের এমন আচরণ কখনো প্রত্যাশা করি না।

এ বিষয়ে ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আশরাফ হোসেন বলেন, এটি খুবই অনাকাঙ্ক্ষিত। এ ঘটনায় আমরা মর্মাহত। সাংবাদিক ভাইয়েরা যারা আমাদের সাথে সারাদিন ছিলেন, আমরা মনে করি তারাও আমাদের সহযোগী। তাদের ওপরে যদি এভাবে আঘাত আসে সেটা আমি বলব আমার ওপরে আঘাত। না চিনে না বুঝে হয়তো এমন হতে পারে। যদি এমন কিছু হয়ে থাকে আমি অনুরোধ করব, ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিককে পেটালেন পুলিশ

আপডেট সময় : ০৬:৩৫:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ জুন ২০২৩

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের শেষ মুহূর্তে দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিককে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২১ জুন) রাত ৯টা ২২ মিনিটে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সরাতে লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। এ সময় সরাসরি সম্প্রচারে ছিলেন বেশ কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মী। জাগো নিউজের সরাসরি সম্প্রচারে (লাইভ) ছিলেন ঢাকা কলেজের ক্যাম্পাস প্রতিবেদক মো. নাহিদ হাসান (নাহিদ সাব্বির)। এ সময় এক উপ-পুলিশ পরিদর্শক এসে তাকে চড়-থাপ্পড় দিতে থাকেন। নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিলেও পুলিশ চড়-থাপ্পড় দিয়ে এই সাংবাদিকে হেনস্থা করেন। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনাস্থলে নিউজ কভারেজ করা উপস্থিত সাংবাদিকরাও এই ঘটনার প্রতিবাদ করেন।

ভুক্তভোগী নাহিদ বলেন, আমি লাইভ সম্প্রচারে ছিলাম। আমার গলায় জাগো নিউজের আইডি কার্ড ছিল। এ সময় এক পুলিশ সদস্য এসে আমাকে চড়-থাপ্পড় দিতে থাকেন। আমি সাংবাদিক পরিচয় দিলেও আমাকে চড় মারেন ও হেনস্থা করেন। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তিনি বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে। গণমাধ্যমকর্মীরা নিরাপদ দূরত্বে থেকেই তাদের দায়িত্ব পালন করছিলেন। পুলিশের এমন আচরণ কখনো প্রত্যাশা করি না।

এ বিষয়ে ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আশরাফ হোসেন বলেন, এটি খুবই অনাকাঙ্ক্ষিত। এ ঘটনায় আমরা মর্মাহত। সাংবাদিক ভাইয়েরা যারা আমাদের সাথে সারাদিন ছিলেন, আমরা মনে করি তারাও আমাদের সহযোগী। তাদের ওপরে যদি এভাবে আঘাত আসে সেটা আমি বলব আমার ওপরে আঘাত। না চিনে না বুঝে হয়তো এমন হতে পারে। যদি এমন কিছু হয়ে থাকে আমি অনুরোধ করব, ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।