ঢাকা ০১:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

তানোরে ভূমীহীনের জমি প্রভাবশালীদের জবরদখল

আশরাফুল আলম , তানোর থেকেঃ
  • আপডেট সময় : ১১:২৯:৫৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ এপ্রিল ২০২৩ ১৪১ বার পড়া হয়েছে

তানোর উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়নের বিনোদপুর গ্রামের জনৈক ভূমীহীন মৃত তসির উদ্দীন এর পুত্র নুরুল ইসলাম সরকার কর্তৃক কবিলতি জমিতে কতিপয় ০৮ জন প্রভাবশালী ব্যক্তিরা জমি জবরদখল করে দোকান পাট তৈরী করে।
২০০০ সালে ভূমীহীন নূরুল ইসলাম সরকারের কাছ থেকে ২০ শতাংশ ১নং খাস জমি বন্ধবস্ত নিয়ে তা খারিজ ও খাজনা প্রদান করে আসছেন।
উক্ত জমির পার্শ্বে হাট থাকার কারণে দোকাদারদ্বয় জনৈক ভূমীহীনকে যায়গার ভাড়া হিসেবে মাসিক ৫০০টাকা করে প্রদানের করার কথা থাকলেও ভাড়া দেয় না
দোকানদারদের কাছে কথা বলে জানা জায় এখানে ইতিপূর্বে সাপ্তাহিক হাট বসতো এবং হাটের পার্শ্ব দিয়ে পাকা রাস্তা হওয়ায় প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা লোকের আনাগোনা থাকার ফলে ব্যবসা করার জন্য আমরা খাস জমি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকায় দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা করছি।

এবিষয়ে ভূমীহীন নূরুল ইসলাম এর কাছে তার প্রতিক্রিয়া জানাতে চাইলে তিনি বলেন;
আমি একজন অসহায় হতদরিদ্র মানুষ। যার পরিপ্রেক্ষিতে সালে সরকারে ০১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত পরিত্যক্ত যায়গায়- জে,এল. নং ৯৬ খতিয়ান নং ৩৪০ দাগ নং ২২৪ মৌজার বিনোদপুর, ২০ শতাংশ জমি বন্ধবস্ত নিয়েছি এবং সরকারের সকল নিয়ম-কানুন মেনে নিয়মিত খারিজখাজনা পরিশোধ করে সেই জমির মালিকানা ধরে রেখেছি, কিন্তু আমার জমির উপরে উল্লেখিত ব্যক্তিগণ দোকান ঘর জোর পূর্বক নির্মাণ করে ভাড়া হিসেবে কোনো অর্থ প্রদান না করায় আমি আমার সমস্ত ডকুমেন্টসহ তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর গতবছর ২২/১২/২০২২ তারিখে আবেদন করলে অজ্ঞাত কারণে এতোদিন যাবৎ কোনো সুরাহা না হওয়ায় আমি আমার পরিবার পরিজন নিয়ে আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছি!

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ চন্দ্র দেবনাথ বলেন। তদন্ত সাপেক্ষে যাচাই-বাছাই করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

তানোরে ভূমীহীনের জমি প্রভাবশালীদের জবরদখল

আপডেট সময় : ১১:২৯:৫৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ এপ্রিল ২০২৩

তানোর উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়নের বিনোদপুর গ্রামের জনৈক ভূমীহীন মৃত তসির উদ্দীন এর পুত্র নুরুল ইসলাম সরকার কর্তৃক কবিলতি জমিতে কতিপয় ০৮ জন প্রভাবশালী ব্যক্তিরা জমি জবরদখল করে দোকান পাট তৈরী করে।
২০০০ সালে ভূমীহীন নূরুল ইসলাম সরকারের কাছ থেকে ২০ শতাংশ ১নং খাস জমি বন্ধবস্ত নিয়ে তা খারিজ ও খাজনা প্রদান করে আসছেন।
উক্ত জমির পার্শ্বে হাট থাকার কারণে দোকাদারদ্বয় জনৈক ভূমীহীনকে যায়গার ভাড়া হিসেবে মাসিক ৫০০টাকা করে প্রদানের করার কথা থাকলেও ভাড়া দেয় না
দোকানদারদের কাছে কথা বলে জানা জায় এখানে ইতিপূর্বে সাপ্তাহিক হাট বসতো এবং হাটের পার্শ্ব দিয়ে পাকা রাস্তা হওয়ায় প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা লোকের আনাগোনা থাকার ফলে ব্যবসা করার জন্য আমরা খাস জমি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকায় দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা করছি।

এবিষয়ে ভূমীহীন নূরুল ইসলাম এর কাছে তার প্রতিক্রিয়া জানাতে চাইলে তিনি বলেন;
আমি একজন অসহায় হতদরিদ্র মানুষ। যার পরিপ্রেক্ষিতে সালে সরকারে ০১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত পরিত্যক্ত যায়গায়- জে,এল. নং ৯৬ খতিয়ান নং ৩৪০ দাগ নং ২২৪ মৌজার বিনোদপুর, ২০ শতাংশ জমি বন্ধবস্ত নিয়েছি এবং সরকারের সকল নিয়ম-কানুন মেনে নিয়মিত খারিজখাজনা পরিশোধ করে সেই জমির মালিকানা ধরে রেখেছি, কিন্তু আমার জমির উপরে উল্লেখিত ব্যক্তিগণ দোকান ঘর জোর পূর্বক নির্মাণ করে ভাড়া হিসেবে কোনো অর্থ প্রদান না করায় আমি আমার সমস্ত ডকুমেন্টসহ তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর গতবছর ২২/১২/২০২২ তারিখে আবেদন করলে অজ্ঞাত কারণে এতোদিন যাবৎ কোনো সুরাহা না হওয়ায় আমি আমার পরিবার পরিজন নিয়ে আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছি!

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ চন্দ্র দেবনাথ বলেন। তদন্ত সাপেক্ষে যাচাই-বাছাই করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।