ঢাকা ১১:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ত্রিশাল পৌরসভার উপনির্বাচনে জগ প্রতীককে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ ভোটাররা ২নং ওয়ার্ডে জনগণের আস্থা “সাব্বির হোসেন বিল্লাল” ময়মনসিংহকে স্মার্ট নগরী গড়তে ২৩ দফা ইশতেহার ঘোষণা করলেন টিটু গোদাগাড়ীতে মসলার উন্নত জাত ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত অবৈধ ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক, হাসপাতালে অভিযান জোরদার হবে -স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজধানীর ৫৮ মার্কেট অগ্নিঝুঁকিতে: ফায়ার সার্ভিস সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন ফখরুল বগুড়ার শেরপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৪ নারী-পুরুষ আজকের ছবিটা তুলে রাখুন, এর জবাব থেকে মুক্তি নাই: ড. ইউনূস বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-২০ সিরিজের ট্রফি উন্মোচন

তানোরে আলু রোপনের ধুম খরচ বেড়েছে ১০ হাজার টাকা

আশরাফুল আলম , তানোর থেকে ঃ
  • আপডেট সময় : ০২:২৩:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২৩ ৫২ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহীর তানোরে আলু রোপনে দিন-রাত ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষান-কৃষানীরা। তবে, গত বছরের চেয়ে এবছরের ৮হাজার টাকা থেকে ১০হাজার টাকা খরচ বেশি হচ্ছে। তারপরও রাতে চলছে ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ আর দিনে জমির মাঠ জুড়ে চলছে আলু রোপনের ধুম। কে কার আগে জমিতে আলু রোপন করবেন এমন প্রতিযোগীতা নিয়ে বিপুল উৎসাহ’র মধ্য দিয়ে মাঠে মাঠে প্রচুর ব্যস্থ সময় পার করছেন চাষীরা। গত বছর আলুর ফলন অন্য বছরের চেয়ে একটু কম হলেও প্রায় তিন গুন বেশী দাম পাওয়ায় খুশি চাষীরা। ফলে, এবছর জমির দাম বেড়েছে একই সাথে বেড়েছে খরচ। খরচ বাড়লেও কৃষকদের মুখে খুশির ঝিলিক লক্ষ্য করা যাচ্ছে।উপজেলার বিভিন্ন এলাকার জমির মাঠ গুলোতে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রোপা আমন ধান কাটার সাথে সাথে রাতে চলছে ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ আর দিনে শ্রমিকদের মধ্যে আলু রোপনের ধুম। কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, এবছর ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে আলু রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে বলেও জানিয়েছেন কৃষি বিভাগ। গত বছর প্রতি বিঘায় খরচ হয়েছিল ৪০ হাজার টাকা থেকে ৪৫ হাজার টাকা। এবছর ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হবে।
কৃষকরা বলছেন, গত বছর যে জমি ছিলো ১২ থেকে ১৬ হাজার টাকা এবছর সেই জমি ১৭ হাজার টাকা থেকে ২২ হাজার টাকা লাগছে বর্গা নিতে। অপর দিকে শ্রমিকের মুল্য বেড়েছে প্রতি বিঘায় ১ হাজার টাকা। একই সাথে সার ও কিটনাশকের নামও বেড়েছে। এক বিঘা জমি আলু চাষে নিজস্ব জমিতে খরচ হয়েছে ৩০ হাজার টাকা থেকে ৩৫হাজার টাকা। অপর দিকে বর্গা নেয়া জমিতে খচর হবে ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা। উপজেলার ধানতৈড় গ্রামের আদর্শ আলু চাষী হাফিজুর রহমান বলেন, এবছর ১শ’ ৫০ বিঘাতে আলু রোপন শুরু করেছেন। অন্য বছরের চেয়ে এবছর জমির মুল্য বেড়েছে ৬ হাজার টাকা থেকে ৭ হাজার টাকা বেশী। একই সাথে শ্রমিকের মুল্য বাড়ার সাথে সাথে সব কিছুরই দাম বেড়েছে। ফলে অন্য বছরের চেয়ে এবছর আলু চাষে ৮হাজার টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা খরচ বেশি হবে।
এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদ বলেন, এবছর সোয়া ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে আলু রোপনের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হলেও ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি বলেন, এবছর অন্য বছরের চেয়ে খরচ একটু বেশীই হবে বলেও জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

তানোরে আলু রোপনের ধুম খরচ বেড়েছে ১০ হাজার টাকা

আপডেট সময় : ০২:২৩:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২৩

রাজশাহীর তানোরে আলু রোপনে দিন-রাত ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষান-কৃষানীরা। তবে, গত বছরের চেয়ে এবছরের ৮হাজার টাকা থেকে ১০হাজার টাকা খরচ বেশি হচ্ছে। তারপরও রাতে চলছে ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ আর দিনে জমির মাঠ জুড়ে চলছে আলু রোপনের ধুম। কে কার আগে জমিতে আলু রোপন করবেন এমন প্রতিযোগীতা নিয়ে বিপুল উৎসাহ’র মধ্য দিয়ে মাঠে মাঠে প্রচুর ব্যস্থ সময় পার করছেন চাষীরা। গত বছর আলুর ফলন অন্য বছরের চেয়ে একটু কম হলেও প্রায় তিন গুন বেশী দাম পাওয়ায় খুশি চাষীরা। ফলে, এবছর জমির দাম বেড়েছে একই সাথে বেড়েছে খরচ। খরচ বাড়লেও কৃষকদের মুখে খুশির ঝিলিক লক্ষ্য করা যাচ্ছে।উপজেলার বিভিন্ন এলাকার জমির মাঠ গুলোতে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রোপা আমন ধান কাটার সাথে সাথে রাতে চলছে ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ আর দিনে শ্রমিকদের মধ্যে আলু রোপনের ধুম। কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, এবছর ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে আলু রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে বলেও জানিয়েছেন কৃষি বিভাগ। গত বছর প্রতি বিঘায় খরচ হয়েছিল ৪০ হাজার টাকা থেকে ৪৫ হাজার টাকা। এবছর ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হবে।
কৃষকরা বলছেন, গত বছর যে জমি ছিলো ১২ থেকে ১৬ হাজার টাকা এবছর সেই জমি ১৭ হাজার টাকা থেকে ২২ হাজার টাকা লাগছে বর্গা নিতে। অপর দিকে শ্রমিকের মুল্য বেড়েছে প্রতি বিঘায় ১ হাজার টাকা। একই সাথে সার ও কিটনাশকের নামও বেড়েছে। এক বিঘা জমি আলু চাষে নিজস্ব জমিতে খরচ হয়েছে ৩০ হাজার টাকা থেকে ৩৫হাজার টাকা। অপর দিকে বর্গা নেয়া জমিতে খচর হবে ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা। উপজেলার ধানতৈড় গ্রামের আদর্শ আলু চাষী হাফিজুর রহমান বলেন, এবছর ১শ’ ৫০ বিঘাতে আলু রোপন শুরু করেছেন। অন্য বছরের চেয়ে এবছর জমির মুল্য বেড়েছে ৬ হাজার টাকা থেকে ৭ হাজার টাকা বেশী। একই সাথে শ্রমিকের মুল্য বাড়ার সাথে সাথে সব কিছুরই দাম বেড়েছে। ফলে অন্য বছরের চেয়ে এবছর আলু চাষে ৮হাজার টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা খরচ বেশি হবে।
এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদ বলেন, এবছর সোয়া ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে আলু রোপনের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হলেও ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি বলেন, এবছর অন্য বছরের চেয়ে খরচ একটু বেশীই হবে বলেও জানান তিনি।