ঢাকা ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গুলিস্থানে বিস্ফোরণ : উদ্ধার ১৯ মরদেহ, এখনো নিখোঁজ ১

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৬:০২:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩ ৮৮ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর গুলিস্তানের সিদ্দিক বাজারে দুটি ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৯ জনের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এখনো মেহেদী হাসান স্বপন (৩৬) নামের এক জন নিখোঁজ রয়েছেন। তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী সোনাইমুড়ীর বজরা এলাকায়।

বুধবার (০৮ মার্চ) বিকেলের দিকে বিস্ফোরিত ভবনটির বেজমেন্ট থেকে অনিকা এজেন্সির মালিক মোমিন হোসেন সুমন (৪৫) এবং তার প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী রবিন হোসেন শান্তর (২০) মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়। তাদের মরদেহ এখনো বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি।

এর আগে, মঙ্গলবার এ ঘটনায় ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসসহ উদ্ধারকর্মীরা। মরদেহগুলো গতকালই নিহতের স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

আজ বিকেলে দুই লাশ উদ্ধারের পর ভবনের নিচ থেকে বেশ কিছু ময়লা আবর্জনা বের করা হয়। পরে সেগুলো নিয়ে যায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কয়েকটি গাড়ি। এখনো উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে।

নিখোঁজ স্বপনের পরিবারের দাবি অনুযায়ী ওই ভবনের বেজমেন্টে বাংলাদেশ স্যানেটারির ম্যানেজার মেহেদী হাসান স্বপন (৩৮) নিখোঁজ রয়েছেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (০৭ মার্চ) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে গুলিস্তানে বিআরটিসির বাস কাউন্টারের কাছে সিদ্দিকবাজারে সাততলা একটি ভবনে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে পাশের আরেকটি পাঁচতলা ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরমধ্যে সাততলা ভবনের বেজমেন্ট, প্রথম ও দোতলা বিধ্বস্ত হয়। আর পাঁচতলা ভবনের নিচতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই ভবনের দ্বিতীয় থেকে পঞ্চম তলা পর্যন্ত ব্র্যাক ব্যাংকের কার্যালয়। পরে সেখানে উদ্ধারকাজ চালায় ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট।

বিস্ফোরণের পর ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ায় ঘটনার দিন রাত পৌনে ১১টার দিকে উদ্ধারকাজ স্থগিত করা হয়। এরপর বুধবার আবারও দ্বিতীয় দিনের মতো উদ্ধারকাজ শুরু হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই বিস্ফোরণের ঘটনায় ১৯ জনের মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন প্রায় দেড় শতাধিক। পাশাপাশি এখনো কয়েকজন নিখোঁজ আছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

গুলিস্থানে বিস্ফোরণ : উদ্ধার ১৯ মরদেহ, এখনো নিখোঁজ ১

আপডেট সময় : ০৬:০২:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩

রাজধানীর গুলিস্তানের সিদ্দিক বাজারে দুটি ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৯ জনের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এখনো মেহেদী হাসান স্বপন (৩৬) নামের এক জন নিখোঁজ রয়েছেন। তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী সোনাইমুড়ীর বজরা এলাকায়।

বুধবার (০৮ মার্চ) বিকেলের দিকে বিস্ফোরিত ভবনটির বেজমেন্ট থেকে অনিকা এজেন্সির মালিক মোমিন হোসেন সুমন (৪৫) এবং তার প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী রবিন হোসেন শান্তর (২০) মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়। তাদের মরদেহ এখনো বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি।

এর আগে, মঙ্গলবার এ ঘটনায় ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসসহ উদ্ধারকর্মীরা। মরদেহগুলো গতকালই নিহতের স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

আজ বিকেলে দুই লাশ উদ্ধারের পর ভবনের নিচ থেকে বেশ কিছু ময়লা আবর্জনা বের করা হয়। পরে সেগুলো নিয়ে যায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কয়েকটি গাড়ি। এখনো উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে।

নিখোঁজ স্বপনের পরিবারের দাবি অনুযায়ী ওই ভবনের বেজমেন্টে বাংলাদেশ স্যানেটারির ম্যানেজার মেহেদী হাসান স্বপন (৩৮) নিখোঁজ রয়েছেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (০৭ মার্চ) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে গুলিস্তানে বিআরটিসির বাস কাউন্টারের কাছে সিদ্দিকবাজারে সাততলা একটি ভবনে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে পাশের আরেকটি পাঁচতলা ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরমধ্যে সাততলা ভবনের বেজমেন্ট, প্রথম ও দোতলা বিধ্বস্ত হয়। আর পাঁচতলা ভবনের নিচতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই ভবনের দ্বিতীয় থেকে পঞ্চম তলা পর্যন্ত ব্র্যাক ব্যাংকের কার্যালয়। পরে সেখানে উদ্ধারকাজ চালায় ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট।

বিস্ফোরণের পর ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ায় ঘটনার দিন রাত পৌনে ১১টার দিকে উদ্ধারকাজ স্থগিত করা হয়। এরপর বুধবার আবারও দ্বিতীয় দিনের মতো উদ্ধারকাজ শুরু হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই বিস্ফোরণের ঘটনায় ১৯ জনের মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন প্রায় দেড় শতাধিক। পাশাপাশি এখনো কয়েকজন নিখোঁজ আছেন।