ঢাকা ০৩:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য ফের বিদেশে পাঠানো পরামর্শ মেডিকেল বোর্ডের

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৬:৩০:০৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ মে ২০২৩ ৪১ বার পড়া হয়েছে

লিভার জটিলতায় বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠিয়ে চিকিৎসার সুপারিশ করেছেন মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা।

বৃহস্পতিবার (৪ মে) সন্ধ্যায় বিএনপি চেয়ারপারসন বাসায় ফেরার পর তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এই কথা জানান।

ডা. জাহিদ বলেন, ‘ উনার (খালেদা জিয়ার) হার্টের যে ব্লক, ওই সময়ে (গত বছরের আগস্ট) একটাকে ব্লক এডরেস করা হয়েছিল। বাকি দুইটা ব্লক আছে- সেটা আপনারা জানেন। আর উনার ক্রনিক লিভার ডিজিজের চিকিৎসার জন্য ডাক্তারদের রিকোমেন্ডেশন ছিল টিপস করার জন্য। অর্থাৎ পোর্টাল যে ব্লাড প্রেসার সেটা কমানোর জন্য এটা এক ধরনের জন্য বাইপাস…লিভার হাইপারটেশনের বাইপাস।’

‘সেই সার্জারি বাংলাদেশে যেমন হয় না এবং আশপাশের অনেক দেশেই হয় না। সেটির জন্য তারা আগেও রিকোমেন্ডেশন করেছিল মাল্টি ডিসিপ্লানারি এডভ্যান্স সেন্টারে উনার চিকিৎসা করানো জন্য, টিপস করানো জন্য। এবারও এন্ডেজকপি করানোর পর ডাক্তার সাহেবরা আবারও সর্বসম্মতভাবে উনার টিপস করানোর জন্য রিকোমেন্ড করেছে যে, যত দ্রুত সম্ভব সেটা করতে। উনার (খালেদা জিয়ার) টিপস করলে পোর্টাল প্রেসার কমবে, পোর্টাল প্রেসার কমলে উনার পোর্টাল হাইপারটেনশনের জন্য যে জটিলতা হয়, লিভারের যে জটিলতা হয় সেই জটিলতাগুলো অনেকাংশে নিরসন হবে, তিনি স্বাভাবিকভাবে আরও বেশি সুস্থবোধ করবেন। সেজন্য উনারা (মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা) রিকোমেন্ড করেছেন।’

এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, ‘উনার যে সমস্ত উপসর্গ দেখা দিয়েছিল সেগুলোর চিকিৎসা ডাক্তাররা গত ৪/৫ দিনে অত্যন্ত নিবিড়ভাবে করেছেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে চিকিৎসকরা উনাকে বাসায় রেখে উনাদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা অব্যাহত রাখার পরামর্শ দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ম্যাডাম কিছুক্ষণ আগে বাসায় ফিরেছেন।’

‘ম্যাডাম আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে তার সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছেন।’

এভারকেয়ার হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে এই মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করছে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, কিডনি ও লিভার জটিলতাসহ বিভিন্ন সমস্যা ভুগছেন। পাঁচ দিন এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে সন্ধ্যা ৬টা ২২ মিনিটে গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় ফেরেন খালেদা জিয়া। গত ২৯ এপ্রিল শারীরিক চেকআপের জন্য মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শে হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।

ফিরোজার গেটের সামনে সংবাদ ব্রিফিংয়ের সময়ে বিএনপি নেতাদের মধ্যে আমান উল্লাহ আমান, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, শিরিন সুলতানা, ডা. রফিকুল ইসলাম, ডা. আল মামুন, হেলেন জেরিন খান, রেহানা আখতার রানু প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য ফের বিদেশে পাঠানো পরামর্শ মেডিকেল বোর্ডের

আপডেট সময় : ০৬:৩০:০৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ মে ২০২৩

লিভার জটিলতায় বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠিয়ে চিকিৎসার সুপারিশ করেছেন মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা।

বৃহস্পতিবার (৪ মে) সন্ধ্যায় বিএনপি চেয়ারপারসন বাসায় ফেরার পর তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এই কথা জানান।

ডা. জাহিদ বলেন, ‘ উনার (খালেদা জিয়ার) হার্টের যে ব্লক, ওই সময়ে (গত বছরের আগস্ট) একটাকে ব্লক এডরেস করা হয়েছিল। বাকি দুইটা ব্লক আছে- সেটা আপনারা জানেন। আর উনার ক্রনিক লিভার ডিজিজের চিকিৎসার জন্য ডাক্তারদের রিকোমেন্ডেশন ছিল টিপস করার জন্য। অর্থাৎ পোর্টাল যে ব্লাড প্রেসার সেটা কমানোর জন্য এটা এক ধরনের জন্য বাইপাস…লিভার হাইপারটেশনের বাইপাস।’

‘সেই সার্জারি বাংলাদেশে যেমন হয় না এবং আশপাশের অনেক দেশেই হয় না। সেটির জন্য তারা আগেও রিকোমেন্ডেশন করেছিল মাল্টি ডিসিপ্লানারি এডভ্যান্স সেন্টারে উনার চিকিৎসা করানো জন্য, টিপস করানো জন্য। এবারও এন্ডেজকপি করানোর পর ডাক্তার সাহেবরা আবারও সর্বসম্মতভাবে উনার টিপস করানোর জন্য রিকোমেন্ড করেছে যে, যত দ্রুত সম্ভব সেটা করতে। উনার (খালেদা জিয়ার) টিপস করলে পোর্টাল প্রেসার কমবে, পোর্টাল প্রেসার কমলে উনার পোর্টাল হাইপারটেনশনের জন্য যে জটিলতা হয়, লিভারের যে জটিলতা হয় সেই জটিলতাগুলো অনেকাংশে নিরসন হবে, তিনি স্বাভাবিকভাবে আরও বেশি সুস্থবোধ করবেন। সেজন্য উনারা (মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা) রিকোমেন্ড করেছেন।’

এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, ‘উনার যে সমস্ত উপসর্গ দেখা দিয়েছিল সেগুলোর চিকিৎসা ডাক্তাররা গত ৪/৫ দিনে অত্যন্ত নিবিড়ভাবে করেছেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে চিকিৎসকরা উনাকে বাসায় রেখে উনাদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা অব্যাহত রাখার পরামর্শ দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ম্যাডাম কিছুক্ষণ আগে বাসায় ফিরেছেন।’

‘ম্যাডাম আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে তার সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছেন।’

এভারকেয়ার হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে এই মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করছে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, কিডনি ও লিভার জটিলতাসহ বিভিন্ন সমস্যা ভুগছেন। পাঁচ দিন এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে সন্ধ্যা ৬টা ২২ মিনিটে গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় ফেরেন খালেদা জিয়া। গত ২৯ এপ্রিল শারীরিক চেকআপের জন্য মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শে হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।

ফিরোজার গেটের সামনে সংবাদ ব্রিফিংয়ের সময়ে বিএনপি নেতাদের মধ্যে আমান উল্লাহ আমান, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, শিরিন সুলতানা, ডা. রফিকুল ইসলাম, ডা. আল মামুন, হেলেন জেরিন খান, রেহানা আখতার রানু প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।