ঢাকা ০৮:৫০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে – মেয়র লিটন

নিজস্ব প্রতিবেদক//
  • আপডেট সময় : ১২:১৯:৩১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ ১৬ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ৭ম পরিষদের ৩য় সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বেলা ১২টা হতে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নগর ভবনের সিটি হল সভাকক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
সভার শুরুতে ১ম সাধারণ সভা হতে ৩য় সাধারণ সভার পূর্ব পর্যন্ত নগরীতে বসবাসকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা, দেশবরেণ্য ব্যক্তিত্ব, রাজনীতিবিদ, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী সহ যে সকল ব্যক্তিবর্গ মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের শোক প্রস্তাব উপস্থাপন ও অনুমোদনসহ সম্প্রতি ঢাকার বেইলি রোডে অগ্নিকাÐে নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন সোনাদিঘী জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা ক্বারী মোঃ মামুনুর রশীদ।

সভাপতির বক্তব্যে রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টিতে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে ইমপ্লয়মেন্ট স্কিলস ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং ইনস্টিটিউট স্থাপন করা হয়েছে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। নগরভবনের ১০ম তলায় যুগোপযোগী এ লানির্ং এন্ড আর্নিং সেন্টারে ইতোমধ্যে ফ্রিল্যান্সিংসহ বিভিন্ন ট্রেডে ১২শ শিক্ষার্থী প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছে। আইসিটি মন্ত্রণালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় পৃথক ল্যাব প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের পরিধি বৃদ্ধি করতে নগরভবনের ৯ম তলায় আরও একটি ল্যাব প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা রয়েছে। ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করা হবে।

আমার নির্বাচনী ওয়াদা বাস্তবায়নে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে চাই। আগামী ৫ বছরে ২০ হাজার তরুণ-তরুণীকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। যার মাধ্যমে ঘরে বসে আয় করতে পারবে। আগামীতে দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সুযোগ পাবে। যেটি আগামীতে গার্মেন্টেসের পাশাপাশি অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে অনেকেই কাজ শুরু করেছে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান নার্সিং কলেজ প্রতিষ্ঠার কাজ এগিয়ে চলেছে। খুব শীঘ্রই এটির কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

তিনি বলেন, পরিকল্পিত নগরী গড়ে তুলতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম জোরদার করতে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। দ্রæত নগরায়নের ফলে নতুন নতুন সড়ক উন্নয়ন করা হচ্ছে। নতুন সড়কসমূহে বৃক্ষরোপন কার্যক্রম জোরদার করা হবে। পানিবাহিত বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে বিশুদ্ধ পানি ব্যবহারে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। নগরীর গলিপথসমূহ, ড্রেন রাস্তা, আলোকায়ন, গোরস্থান ঈদগাহের উন্নয়ন কাজ দ্রæত শেষ করা হবে।

সভায় বক্তব্য দেন রাসিকের প্যানেল মেয়র ও ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নিযাম উল আযীম মঞ্চে উপবিস্ট ছিলেন প্যানেল মেয়র-২ ও ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন। রাসিকের সচিব মোঃ মোবারক হোসেনের পরিচালনায় সভায় কাউন্সিলরবৃন্দ গুরুত্বপূর্ণ মতামত ব্যক্ত করেন। সভায় রাসিকের অর্থ ও সংস্থাপন স্থায়ী কমিটির বিভিন্ন সিদ্ধান্তসমূহ, যোগাযোগ স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত, পানি ও বিদ্যুৎ স্থায়ী কমিটি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্যরক্ষা ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটি, মহিলা ও শিশু বিষয়ক স্থায়ী কমিটি, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন স্থায়ী কমিটি, পার্ক ও বিনোদন স্পট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক স্থায়ী কমিটি, পরিবেশ উন্নয়ন স্থায়ী কমিটির প্রস্তাবাবলী পাঠ ও অনুমোদন করা হয়। পারচেজ কমিটি গঠন, ওয়ার্ড পর্যায়ে ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সভায় রাসিকের ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুজ্জামান, ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জানে আলম খান, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাসেল জামান, ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্বাস আলী সরদার, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবু বাক্কার কিনু, ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহম্মেদ, ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাদত আলী শাহু, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার টেকন, ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহাতাব হোসেন চৌধুরী, ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আরমান আলী, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলিফ-আল-মাহামুদ লুকেন, ২৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আকতারুজ্জামান কোয়েল, ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান, ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল হাসান (বাচ্চু), ২৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহের হোসেন, ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলাউদ্দিন, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মোসাঃ শিউলি, সেবুন নেসা, আলফাতুন নেছা, সামসুন নাহার, মমতাজ মহল, নাদিরা বেগম, ফেরদৌসী, সুলতানা রাজিয়া, সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদিয়া আফরিন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মোঃ নূর-ঈ-সাঈদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফ.এ.এম আঞ্জুমান আরা বেগম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মোঃ মামুন, বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম খান, নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আহমেদ আল মঈন পরাগ, নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) এবিএম আসাদুজ্জামান সুইট, চীফ টাউন প্ল্যানার শাহীনুর রহমান, পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকর্তা সৈয়দ মাহমুদ উল ইসলাম সহ বিভিন্ন শাখার প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে – মেয়র লিটন

আপডেট সময় : ১২:১৯:৩১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ৭ম পরিষদের ৩য় সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বেলা ১২টা হতে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নগর ভবনের সিটি হল সভাকক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
সভার শুরুতে ১ম সাধারণ সভা হতে ৩য় সাধারণ সভার পূর্ব পর্যন্ত নগরীতে বসবাসকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা, দেশবরেণ্য ব্যক্তিত্ব, রাজনীতিবিদ, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী সহ যে সকল ব্যক্তিবর্গ মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের শোক প্রস্তাব উপস্থাপন ও অনুমোদনসহ সম্প্রতি ঢাকার বেইলি রোডে অগ্নিকাÐে নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন সোনাদিঘী জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা ক্বারী মোঃ মামুনুর রশীদ।

সভাপতির বক্তব্যে রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টিতে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে ইমপ্লয়মেন্ট স্কিলস ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং ইনস্টিটিউট স্থাপন করা হয়েছে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। নগরভবনের ১০ম তলায় যুগোপযোগী এ লানির্ং এন্ড আর্নিং সেন্টারে ইতোমধ্যে ফ্রিল্যান্সিংসহ বিভিন্ন ট্রেডে ১২শ শিক্ষার্থী প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছে। আইসিটি মন্ত্রণালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় পৃথক ল্যাব প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের পরিধি বৃদ্ধি করতে নগরভবনের ৯ম তলায় আরও একটি ল্যাব প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা রয়েছে। ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করা হবে।

আমার নির্বাচনী ওয়াদা বাস্তবায়নে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে চাই। আগামী ৫ বছরে ২০ হাজার তরুণ-তরুণীকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। যার মাধ্যমে ঘরে বসে আয় করতে পারবে। আগামীতে দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সুযোগ পাবে। যেটি আগামীতে গার্মেন্টেসের পাশাপাশি অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে অনেকেই কাজ শুরু করেছে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান নার্সিং কলেজ প্রতিষ্ঠার কাজ এগিয়ে চলেছে। খুব শীঘ্রই এটির কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

তিনি বলেন, পরিকল্পিত নগরী গড়ে তুলতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম জোরদার করতে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। দ্রæত নগরায়নের ফলে নতুন নতুন সড়ক উন্নয়ন করা হচ্ছে। নতুন সড়কসমূহে বৃক্ষরোপন কার্যক্রম জোরদার করা হবে। পানিবাহিত বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে বিশুদ্ধ পানি ব্যবহারে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। নগরীর গলিপথসমূহ, ড্রেন রাস্তা, আলোকায়ন, গোরস্থান ঈদগাহের উন্নয়ন কাজ দ্রæত শেষ করা হবে।

সভায় বক্তব্য দেন রাসিকের প্যানেল মেয়র ও ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নিযাম উল আযীম মঞ্চে উপবিস্ট ছিলেন প্যানেল মেয়র-২ ও ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন। রাসিকের সচিব মোঃ মোবারক হোসেনের পরিচালনায় সভায় কাউন্সিলরবৃন্দ গুরুত্বপূর্ণ মতামত ব্যক্ত করেন। সভায় রাসিকের অর্থ ও সংস্থাপন স্থায়ী কমিটির বিভিন্ন সিদ্ধান্তসমূহ, যোগাযোগ স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত, পানি ও বিদ্যুৎ স্থায়ী কমিটি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্যরক্ষা ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটি, মহিলা ও শিশু বিষয়ক স্থায়ী কমিটি, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন স্থায়ী কমিটি, পার্ক ও বিনোদন স্পট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক স্থায়ী কমিটি, পরিবেশ উন্নয়ন স্থায়ী কমিটির প্রস্তাবাবলী পাঠ ও অনুমোদন করা হয়। পারচেজ কমিটি গঠন, ওয়ার্ড পর্যায়ে ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সভায় রাসিকের ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুজ্জামান, ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জানে আলম খান, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাসেল জামান, ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্বাস আলী সরদার, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবু বাক্কার কিনু, ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহম্মেদ, ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাদত আলী শাহু, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার টেকন, ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহাতাব হোসেন চৌধুরী, ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আরমান আলী, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলিফ-আল-মাহামুদ লুকেন, ২৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আকতারুজ্জামান কোয়েল, ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান, ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল হাসান (বাচ্চু), ২৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহের হোসেন, ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলাউদ্দিন, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মোসাঃ শিউলি, সেবুন নেসা, আলফাতুন নেছা, সামসুন নাহার, মমতাজ মহল, নাদিরা বেগম, ফেরদৌসী, সুলতানা রাজিয়া, সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদিয়া আফরিন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মোঃ নূর-ঈ-সাঈদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফ.এ.এম আঞ্জুমান আরা বেগম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মোঃ মামুন, বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম খান, নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আহমেদ আল মঈন পরাগ, নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) এবিএম আসাদুজ্জামান সুইট, চীফ টাউন প্ল্যানার শাহীনুর রহমান, পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকর্তা সৈয়দ মাহমুদ উল ইসলাম সহ বিভিন্ন শাখার প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।