ঢাকা ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবার ‘কামিকাজে’ ড্রোনবাহী যুদ্ধজাহাজ চালু করল ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৬:৫০:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩ ৭৪ বার পড়া হয়েছে

দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ‘কামিকাজে’ ড্রোনবাহী একটি যুদ্ধজাহাজ চালু করেছে ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির নৌ সেনারা । এ জাহাজে কামিকাজে ড্রোনের পাশাপাশি অন্যান্য ড্রোনও থাকবে।

সোমবার (১৫ মার্চ) এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে একথা বলেছেন আইআরজিসির নৌবাহিনীর কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল আলী রেজা তাংসিরি। খবর প্রেসটিভির।

তিনি জানান, শহিদ মাহদাভি নামে এই জাহাজে ৩০০ থেকে ৭৫০ কিলোমিটার পাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র, সেপেহার-৭ ভারটিকেল লঞ্চ ড্রোন, ১৩০০ কিলোমিটার পাল্লার কামিকাজে ড্রোন এবং পাঁচটি হেলিকপ্টার বহন করতে সক্ষম।

সমুদ্রগামী জাহাজটি আইআরজিসির নৌবহরে যুক্ত হওয়ার কয়েকদিন পর আলী রেজা তাংসিরি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানালেন। ২১০০ টন ওজনের এই জাহাজ ২৪০ মিটার লম্বা, চওড়া ২৭ মিটার এবং এতে থ্রিডি ফেইজড রাডার এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইলেকট্রনিক ওয়ারফেয়ার কমিউনিকেশন সিস্টেম রয়েছে।

জেনারেল তাংসিরি বলেন, নিকট ভবিষ্যতে ইরানের যুদ্ধজাহাজগুলোর গতি যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজগুলোর গতিকে ছাড়িয়ে যাবে।

আইআরজিসির এ কমান্ডার জানান, আরও কয়েক রকমের যুদ্ধজাহাজে বিভিন্ন ধরনের উন্নতমানের ক্ষেপণাস্ত্র বসান হয়েছে। এরমধ্যে তারেক ক্লাস বোট ৬০ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলা অবস্থায় শত্রুর লক্ষ্যবস্তুতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে সক্ষম।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

এবার ‘কামিকাজে’ ড্রোনবাহী যুদ্ধজাহাজ চালু করল ইরান

আপডেট সময় : ০৬:৫০:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩

দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ‘কামিকাজে’ ড্রোনবাহী একটি যুদ্ধজাহাজ চালু করেছে ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির নৌ সেনারা । এ জাহাজে কামিকাজে ড্রোনের পাশাপাশি অন্যান্য ড্রোনও থাকবে।

সোমবার (১৫ মার্চ) এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে একথা বলেছেন আইআরজিসির নৌবাহিনীর কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল আলী রেজা তাংসিরি। খবর প্রেসটিভির।

তিনি জানান, শহিদ মাহদাভি নামে এই জাহাজে ৩০০ থেকে ৭৫০ কিলোমিটার পাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র, সেপেহার-৭ ভারটিকেল লঞ্চ ড্রোন, ১৩০০ কিলোমিটার পাল্লার কামিকাজে ড্রোন এবং পাঁচটি হেলিকপ্টার বহন করতে সক্ষম।

সমুদ্রগামী জাহাজটি আইআরজিসির নৌবহরে যুক্ত হওয়ার কয়েকদিন পর আলী রেজা তাংসিরি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানালেন। ২১০০ টন ওজনের এই জাহাজ ২৪০ মিটার লম্বা, চওড়া ২৭ মিটার এবং এতে থ্রিডি ফেইজড রাডার এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইলেকট্রনিক ওয়ারফেয়ার কমিউনিকেশন সিস্টেম রয়েছে।

জেনারেল তাংসিরি বলেন, নিকট ভবিষ্যতে ইরানের যুদ্ধজাহাজগুলোর গতি যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজগুলোর গতিকে ছাড়িয়ে যাবে।

আইআরজিসির এ কমান্ডার জানান, আরও কয়েক রকমের যুদ্ধজাহাজে বিভিন্ন ধরনের উন্নতমানের ক্ষেপণাস্ত্র বসান হয়েছে। এরমধ্যে তারেক ক্লাস বোট ৬০ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলা অবস্থায় শত্রুর লক্ষ্যবস্তুতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে সক্ষম।