ঢাকা ০৬:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করা হচ্ছে: ফখরুল

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৩:০৬:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩ ৮৯ বার পড়া হয়েছে

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মানুষের অধিকার হরণ করা হচ্ছে, খর্ব করা হচ্ছে, ডিজিটাল আইন প্রয়োগ করে। আর তামাশা নির্বাচন নয়। এমন নির্বাচন আমরা বিশ্বাস করিনা। সরকারের প্রতিষ্ঠানগুলোতে দক্ষ জনবল না থাকায় বঙ্গ বাজারের মত সব জায়গায় আগুনের ঘটনা ঘটছে। তাই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) বিকেল সাড় ৫টায় ঠাকুরগাঁও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আয়োজনে জেলা শহরের এক কমিউনিটি সেন্টারে আইনজীবীদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় জেলা বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি আরো বলেন, দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনে নেক্কার জন্য ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচনের সরকারি দলের আইনজীবীরা পুলিশের সহায়তায় নির্বাচনকে পুরোপুরিভাবে পন্ড করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় পুলিশ বার লাইব্রেরীতে গিয়েও পুলিশ সাংবাদিক ও আইনজীবীদের পিটিয়েছে। বার সমিতিকে আওয়ামীলীগ সরকার বে-আইনিভাবে দখল করার জন্য সকলপ্রকার শক্তি তারা প্রয়োগ করেছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে তারা ব্যবহার করেছে।

আমরা এমন সময়ে সমবেত হয়েছি যেখানে বাংলাদেশের আইনের শাসন পুরোপুরি ভাবে অনুপস্থিত। ক্রমাগতভাবে সংবিধানকে লংঘন করা হচ্ছে। রাষ্ট্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করা হচ্ছে। এবার দেশের মানুষ জেগে উঠেছে। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। মানুষের অধিকারকে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানান বিএনপির মহাসচিব।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রাষ্ট্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করা হচ্ছে: ফখরুল

আপডেট সময় : ০৩:০৬:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মানুষের অধিকার হরণ করা হচ্ছে, খর্ব করা হচ্ছে, ডিজিটাল আইন প্রয়োগ করে। আর তামাশা নির্বাচন নয়। এমন নির্বাচন আমরা বিশ্বাস করিনা। সরকারের প্রতিষ্ঠানগুলোতে দক্ষ জনবল না থাকায় বঙ্গ বাজারের মত সব জায়গায় আগুনের ঘটনা ঘটছে। তাই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) বিকেল সাড় ৫টায় ঠাকুরগাঁও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আয়োজনে জেলা শহরের এক কমিউনিটি সেন্টারে আইনজীবীদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় জেলা বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি আরো বলেন, দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনে নেক্কার জন্য ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচনের সরকারি দলের আইনজীবীরা পুলিশের সহায়তায় নির্বাচনকে পুরোপুরিভাবে পন্ড করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় পুলিশ বার লাইব্রেরীতে গিয়েও পুলিশ সাংবাদিক ও আইনজীবীদের পিটিয়েছে। বার সমিতিকে আওয়ামীলীগ সরকার বে-আইনিভাবে দখল করার জন্য সকলপ্রকার শক্তি তারা প্রয়োগ করেছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে তারা ব্যবহার করেছে।

আমরা এমন সময়ে সমবেত হয়েছি যেখানে বাংলাদেশের আইনের শাসন পুরোপুরি ভাবে অনুপস্থিত। ক্রমাগতভাবে সংবিধানকে লংঘন করা হচ্ছে। রাষ্ট্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করা হচ্ছে। এবার দেশের মানুষ জেগে উঠেছে। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। মানুষের অধিকারকে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানান বিএনপির মহাসচিব।