ঢাকা ০৫:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইরানের ২২ হাজার বিক্ষোভকারীকে ক্ষমা ঘোষণা

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৮:৫৯:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩ ৭৫ বার পড়া হয়েছে

ইরানের সরকারবিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ২২০০০ জনকে ক্ষমা করছে দেশটির বিচারিক কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (১৩ মার্চ) বিচার বিভাগীয় প্রধান গোলাম হোসেইন মোহসেনি ইজেই একথা জানিয়েছেন বলে রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা আইআরএনএ এর খবরে বলা হয়েছে।

গত মাসের প্রথমদিকে দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল যে সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি প্রতিবাদগুলো থেকে গ্রেপ্তার করা ভিন্নমতাবলম্বীসহ ‘প্রায় লাখো’ কারাবন্দিকে ক্ষমা করেছেন।

এ পর্যন্ত ৮২ হাজার জনকে ক্ষমা করা হয়েছে, এদের মধ্যে ২২ হাজার জন সাম্প্রতিক প্রতিবাদে অংশ নিয়েছিল, বলেছেন ইজেই।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলেছে, এইসব লোকজনের বিরুদ্ধে কখন অভিযোগ আনা হয়েছিল এবং এরপর কতোদিনের মধ্যে তাদের ক্ষমা করা হয়েছে এইসব বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি তিনি।

গত সেপ্টেম্বরে ইরানের নীতি পুলিশের হেফাজতে এক কুর্দি তরুণীর মৃত্যুর পর দেশটিজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এসব বিক্ষোভে ইরানের সব ধরনের সব স্তরের মানুষ অংশ নেয়। ব্যাপক এই প্রতিবাদের কারণে ১৯৭৯ সালে ইসলামিক বিপ্লবের পর থেকে দেশটির সরকার সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছিল।

বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের দাবি, ওই বিক্ষোভ চলাকালে পাঁচ শতাধিক বিক্ষোভকারীকে হত্যা করা হয়েছে। যাদের মধ্যে অন্তত ৭০ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক ছিলেন। প্রায় ২০ হাজার বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারদের মধ্যে কয়েকজনকে নানা অপরাধে দোষীসাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে অন্তত পাঁচ জনের ফাঁসি কার্যকরও হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের ফাঁসি কার্যকর করা শুরু হওয়ায় পর বিক্ষোভের গতি অনেকটাই কমে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ইরানের ২২ হাজার বিক্ষোভকারীকে ক্ষমা ঘোষণা

আপডেট সময় : ০৮:৫৯:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩

ইরানের সরকারবিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ২২০০০ জনকে ক্ষমা করছে দেশটির বিচারিক কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (১৩ মার্চ) বিচার বিভাগীয় প্রধান গোলাম হোসেইন মোহসেনি ইজেই একথা জানিয়েছেন বলে রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা আইআরএনএ এর খবরে বলা হয়েছে।

গত মাসের প্রথমদিকে দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল যে সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি প্রতিবাদগুলো থেকে গ্রেপ্তার করা ভিন্নমতাবলম্বীসহ ‘প্রায় লাখো’ কারাবন্দিকে ক্ষমা করেছেন।

এ পর্যন্ত ৮২ হাজার জনকে ক্ষমা করা হয়েছে, এদের মধ্যে ২২ হাজার জন সাম্প্রতিক প্রতিবাদে অংশ নিয়েছিল, বলেছেন ইজেই।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলেছে, এইসব লোকজনের বিরুদ্ধে কখন অভিযোগ আনা হয়েছিল এবং এরপর কতোদিনের মধ্যে তাদের ক্ষমা করা হয়েছে এইসব বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি তিনি।

গত সেপ্টেম্বরে ইরানের নীতি পুলিশের হেফাজতে এক কুর্দি তরুণীর মৃত্যুর পর দেশটিজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এসব বিক্ষোভে ইরানের সব ধরনের সব স্তরের মানুষ অংশ নেয়। ব্যাপক এই প্রতিবাদের কারণে ১৯৭৯ সালে ইসলামিক বিপ্লবের পর থেকে দেশটির সরকার সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছিল।

বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের দাবি, ওই বিক্ষোভ চলাকালে পাঁচ শতাধিক বিক্ষোভকারীকে হত্যা করা হয়েছে। যাদের মধ্যে অন্তত ৭০ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক ছিলেন। প্রায় ২০ হাজার বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারদের মধ্যে কয়েকজনকে নানা অপরাধে দোষীসাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে অন্তত পাঁচ জনের ফাঁসি কার্যকরও হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের ফাঁসি কার্যকর করা শুরু হওয়ায় পর বিক্ষোভের গতি অনেকটাই কমে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।