ঢাকা ০৮:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ছাত্রদলের নতুন সভাপতি রাকিব, সাধারণ সম্পাদক নাসির জ্বালানি তেলের স্বয়ংক্রিয় দাম নির্ধারণে প্রজ্ঞাপন জারি খাবার সংগ্রহে লাইনে দাঁড়ানো ফিলিস্তিনিদের গুলি, নিহত ১১২ রাজশাহীতে ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের অভিযান না থাকায় ক্রমেই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম ঘুড়ি প্রতীকের বিজয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা চান কাউন্সিলর প্রার্থী আসলাম ‘অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানোর নির্দেশ দিলেও মানা হচ্ছে না’ নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রীকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি ২৩নং ওয়ার্ডকে পরিকল্পিত আধুনিক এলাকা গড়তে চান – রানা বেইলি রোডে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে নিহত ৪৪ চাঁপাইনবাবগঞ্জে জমি জবরদখল ও গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

‘আস্থা ভোটে’ জয় পেলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:২২:১৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩ ৫২ বার পড়া হয়েছে

জাতীয় পরিষদে আস্থা ভোটে জয় পেয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির আস্থা ভোটে ১৮০ জন সদস্য প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার নেতৃত্বের ওপর ‘পূর্ণ আস্থা’ প্রকাশ করেছেন।
পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

জাতীয় পরিষদে রেজ্যুলেশন উত্থাপন করেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি। প্রস্তাবে শাহবাজ শরিফের পক্ষে ‘হ্যাঁ’ ভোট দেন পরিষদের ১৮০ সদস্য। নির্বাচন ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে সরকার যখন দ্বন্দ্বে, এর মধ্যেই এ জয় পেলেন শাহবাজ।

রেজ্যুলেশনে বলা হয়, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাহবাজ শরিফের নেতৃত্বের প্রতি পূর্ণ আস্থা প্রকাশ করছে ইসলামিক প্রজাতন্ত্র পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর খাইবার পাখতুনখাওয়া ও পাঞ্জাব প্রদেশে নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনকে অর্থ দেয়ার বিল পার্লামেন্টে তোলা হয়। কিন্তু জাতীয় পরিষদ নামে পরিচিত পার্লামেন্ট তা প্রত্যাখ্যান করে। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর ওপর আস্থা ভোট হয়। সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য যে সংখ্যক সদস্যের ভোট প্রয়োজন, তিনি তার থেকে ৬ ভোট বেশি পেয়েছেন। বৃহস্পতিবার প্রস্তাবটি পাস হওয়ার পর শাহবাজ শরীফ পার্লামেন্টে ভাষণ দেন এবং তার ওপর আস্থা রাখার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আশ্বস্ত করেন, তিনি কখনো তাদের হতাশ করবেন না।

তিনি বলেন, পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তকে আজ চ্যালেঞ্জ করা হচ্ছে। এই পার্লামেন্ট আমাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত করেছে। এই পার্লামেন্ট যদি বিতর্কের পর কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছায় তাহলে সেই সিদ্ধান্তকে সম্মান করা আমার জন্য বাধ্যতামূলক। তাদের পাশে দাঁড়ানো আমার জন্য বাধ্যতামূলক।

তবে, পিটিআই নেতারা জোর দিয়ে বলেছেন, শাহবাজ শরীফ পার্লামেন্টের আস্থা হারিয়েছেন। পিটিআইয়ের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, পিটিআইয়ের ২০ পার্লামেন্ট সদস্যের ভোট গণনা না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী সংসদের আস্থা হারিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

‘আস্থা ভোটে’ জয় পেলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১০:২২:১৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

জাতীয় পরিষদে আস্থা ভোটে জয় পেয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির আস্থা ভোটে ১৮০ জন সদস্য প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার নেতৃত্বের ওপর ‘পূর্ণ আস্থা’ প্রকাশ করেছেন।
পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

জাতীয় পরিষদে রেজ্যুলেশন উত্থাপন করেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি। প্রস্তাবে শাহবাজ শরিফের পক্ষে ‘হ্যাঁ’ ভোট দেন পরিষদের ১৮০ সদস্য। নির্বাচন ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে সরকার যখন দ্বন্দ্বে, এর মধ্যেই এ জয় পেলেন শাহবাজ।

রেজ্যুলেশনে বলা হয়, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শাহবাজ শরিফের নেতৃত্বের প্রতি পূর্ণ আস্থা প্রকাশ করছে ইসলামিক প্রজাতন্ত্র পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর খাইবার পাখতুনখাওয়া ও পাঞ্জাব প্রদেশে নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনকে অর্থ দেয়ার বিল পার্লামেন্টে তোলা হয়। কিন্তু জাতীয় পরিষদ নামে পরিচিত পার্লামেন্ট তা প্রত্যাখ্যান করে। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর ওপর আস্থা ভোট হয়। সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য যে সংখ্যক সদস্যের ভোট প্রয়োজন, তিনি তার থেকে ৬ ভোট বেশি পেয়েছেন। বৃহস্পতিবার প্রস্তাবটি পাস হওয়ার পর শাহবাজ শরীফ পার্লামেন্টে ভাষণ দেন এবং তার ওপর আস্থা রাখার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আশ্বস্ত করেন, তিনি কখনো তাদের হতাশ করবেন না।

তিনি বলেন, পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তকে আজ চ্যালেঞ্জ করা হচ্ছে। এই পার্লামেন্ট আমাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত করেছে। এই পার্লামেন্ট যদি বিতর্কের পর কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছায় তাহলে সেই সিদ্ধান্তকে সম্মান করা আমার জন্য বাধ্যতামূলক। তাদের পাশে দাঁড়ানো আমার জন্য বাধ্যতামূলক।

তবে, পিটিআই নেতারা জোর দিয়ে বলেছেন, শাহবাজ শরীফ পার্লামেন্টের আস্থা হারিয়েছেন। পিটিআইয়ের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, পিটিআইয়ের ২০ পার্লামেন্ট সদস্যের ভোট গণনা না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী সংসদের আস্থা হারিয়েছেন।