ঢাকা ০১:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমার ছেলেকে সত্য বলে প্রতিষ্ঠিত করতেই নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলাম: জায়েদা

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৩:২৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ মে ২০২৩ ৫৩ বার পড়া হয়েছে

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এর সদ্য বিজয়ী মেয়র জায়েদা খাতুন তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, মিথ্যার কাছে যাতে সত্যের পরাজয় যাতে না হয়। এজন্য আমার ছেলেকে সত্য বলে প্রতিষ্ঠিত করতেই নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলাম।

তিনি আরও বলেন, জনগণ আমাকে ভালবেসে ভোট দিয়েছেন এবং সরকার সুষ্ঠু ভাবে ভোট সম্পূর্ণ করেছে। তাই আমার গাজীপুরবাসী এবং প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

জায়েদা খাতুন বলেন, গাজীপুরাসী আমাকে ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচিত করেছেন এবার কাজের মাধ্যমে তাদের প্রতিদান দিবো। আমার যেসব কাজের প্রতিশ্রুতি দেওয়া আছে এবং আমার ছেলে যে সব কাজ বাকী রেখেছে সেগুলি আমি আমার ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে সম্পূর্ণ করবো।

তিনি আরও বলেন, মহানগরীর উন্নয়নের কাজ করার জন্য সবার পরামর্শ নিবো প্রয়োজনে আজমত উল্লাহ খান সাহেবেরও পরামর্শ নিবো।

মোট কেন্দ্র: ৪৮০, প্রাপ্ত কেন্দ্র: ৪৮০ আজমত উল্লাহ খান নৌকা প্রতিকে ২,৭১,০৭৭ ভোট পেয়েছেন। স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী জায়েদা খাতুন ২,৮৮,০০৭ ভোট পেয়েছেন। মোট ১৬৯৩০ বেশি ভোট পেয়ে ঘড়ি মার্কা বিজয়ী।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় শুরু হয় গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হয়। কোনো ধরনের সহিংসতা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয় ভোট।

ভোটগ্রহণের শুরু থেকে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের পঞ্চম তলার কন্ট্রোল রুম থেকে নির্বাচন মনিটরিং করা হয়।

কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া না গেলেও ভোটকেন্দ্রের গোপন কক্ষে ঢুকে পড়ায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। নির্বাচন কমিশন থেকে সিসি ক্যামেরায় দেখে খবর দেয়া হলে তাদের আটক করা হয়।

এই নির্বাচনে মেয়র পদে ৮ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৪৬ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৭৯ জন প্রার্থী আছেন। এছাড়া সাধারণ ওয়ার্ডে একজন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

গাজীপুর সিটির ৫৭টি ওয়ার্ডে এবারের নির্বাচনে মোট ভোটার ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৬৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ লাখ ৯২ হাজার ৭৪৭ জন, নারী ভোটার ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৬৯৮ জন ও তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) ভোটার আছে ১৮ জন। ৪৮ দশমিক ৭৫ শতাংশ ভোটার এই নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আমার ছেলেকে সত্য বলে প্রতিষ্ঠিত করতেই নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলাম: জায়েদা

আপডেট সময় : ০৮:৩৩:২৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ মে ২০২৩

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এর সদ্য বিজয়ী মেয়র জায়েদা খাতুন তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, মিথ্যার কাছে যাতে সত্যের পরাজয় যাতে না হয়। এজন্য আমার ছেলেকে সত্য বলে প্রতিষ্ঠিত করতেই নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলাম।

তিনি আরও বলেন, জনগণ আমাকে ভালবেসে ভোট দিয়েছেন এবং সরকার সুষ্ঠু ভাবে ভোট সম্পূর্ণ করেছে। তাই আমার গাজীপুরবাসী এবং প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

জায়েদা খাতুন বলেন, গাজীপুরাসী আমাকে ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচিত করেছেন এবার কাজের মাধ্যমে তাদের প্রতিদান দিবো। আমার যেসব কাজের প্রতিশ্রুতি দেওয়া আছে এবং আমার ছেলে যে সব কাজ বাকী রেখেছে সেগুলি আমি আমার ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে সম্পূর্ণ করবো।

তিনি আরও বলেন, মহানগরীর উন্নয়নের কাজ করার জন্য সবার পরামর্শ নিবো প্রয়োজনে আজমত উল্লাহ খান সাহেবেরও পরামর্শ নিবো।

মোট কেন্দ্র: ৪৮০, প্রাপ্ত কেন্দ্র: ৪৮০ আজমত উল্লাহ খান নৌকা প্রতিকে ২,৭১,০৭৭ ভোট পেয়েছেন। স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী জায়েদা খাতুন ২,৮৮,০০৭ ভোট পেয়েছেন। মোট ১৬৯৩০ বেশি ভোট পেয়ে ঘড়ি মার্কা বিজয়ী।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় শুরু হয় গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হয়। কোনো ধরনের সহিংসতা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয় ভোট।

ভোটগ্রহণের শুরু থেকে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের পঞ্চম তলার কন্ট্রোল রুম থেকে নির্বাচন মনিটরিং করা হয়।

কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া না গেলেও ভোটকেন্দ্রের গোপন কক্ষে ঢুকে পড়ায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। নির্বাচন কমিশন থেকে সিসি ক্যামেরায় দেখে খবর দেয়া হলে তাদের আটক করা হয়।

এই নির্বাচনে মেয়র পদে ৮ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৪৬ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৭৯ জন প্রার্থী আছেন। এছাড়া সাধারণ ওয়ার্ডে একজন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

গাজীপুর সিটির ৫৭টি ওয়ার্ডে এবারের নির্বাচনে মোট ভোটার ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৬৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ লাখ ৯২ হাজার ৭৪৭ জন, নারী ভোটার ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৬৯৮ জন ও তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) ভোটার আছে ১৮ জন। ৪৮ দশমিক ৭৫ শতাংশ ভোটার এই নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।