ঢাকা ০৯:২৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৯০ দিনের মধ্যে ডলারের দর সবচেয়ে বেশি

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০২:০৩:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ ২০২৩ ৮৫ বার পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে যুক্তরাষ্ট্রের ডলারের দাম ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। গত ৯০ দিনের মধ্যে এটি সর্বোচ্চ।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে চ্যানেল নিউজ এশিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এদিকে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের (ফেড) চেয়ারম্যান জেরোম পাওয়েল জানিয়েছেন, সামনে সুদের হার চড়া হবে। ক্রমবর্ধমান মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।

চলতি সপ্তাহের শুরু থেকে ডলারের দর বাড়ছিল। জাপানের মুদ্রা ইয়েনের বিপরীতে ৩ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চে উঠেছিল মুদ্রাটির মূল্য। তবে বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) প্রধান বৈশ্বিক মুদ্রার মান স্থিতিশীল হয়েছে। প্রতি ডলারের দাম স্থির হয়েছে ১৩৬ দশমিক ৮৬ ইয়েনে।

ডলারের দাপটে কয়েক মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে নেমে গিয়েছিল ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) মূল মুদ্রা ইউরোর মূল্যমান। তবে এদিন তা ঘুরে দাঁড়িয়েছে। ইউরোর দাম বেড়েছে শূন্য দশমিক ০২ শতাংশ। প্রতিটির দর নিষ্পত্তি হয়েছে ১ দশমিক ০৫৪৬ ডলারে।

ব্রিটেনের মুদ্রা স্টার্লিংয়ের বিনিময় হার কমেছিল। সেটিও ভিত্তি খুঁজে পেয়েছে। মুদ্রাটির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে শূন্য দশমিক ০৯ শতাংশ। প্রতি স্টার্লিং বিক্রি হয়েছে ১ দশমিক ১৮৫৪ ডলারে।

প্রধান ৬ মুদ্রার বিপরীতে ইউএস ডলার সূচক নিম্নমুখী হয়েছে শূন্য দশমিক ০২ শতাংশ। বর্তমানে তা দাঁড়িয়েছে ১০৫ দশমিক ৬১ পয়েন্টে। তবে এখনও সেটা ৩ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে আছে।

গত মঙ্গলবার ( ৭ মার্চ) ডলারের দর বৃদ্ধি পায় ১ দশমিক ৩ শতাংশ। বিগত সেপ্টেম্বরের পর একদিনে যা সর্বোচ্চ।

ম্যাককোয়ারিজের বৈশ্বিক ফোরেক্স ও হার কৌশলবিদ থিয়েরি উইজম্যান বলেন, ফেড চেয়ারম্যান পাওয়েল স্বীকার করেছেন; তথ্যের ওপর নির্ভর করে মার্চে সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

৯০ দিনের মধ্যে ডলারের দর সবচেয়ে বেশি

আপডেট সময় : ০২:০৩:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ ২০২৩

আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে যুক্তরাষ্ট্রের ডলারের দাম ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। গত ৯০ দিনের মধ্যে এটি সর্বোচ্চ।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে চ্যানেল নিউজ এশিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এদিকে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের (ফেড) চেয়ারম্যান জেরোম পাওয়েল জানিয়েছেন, সামনে সুদের হার চড়া হবে। ক্রমবর্ধমান মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।

চলতি সপ্তাহের শুরু থেকে ডলারের দর বাড়ছিল। জাপানের মুদ্রা ইয়েনের বিপরীতে ৩ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চে উঠেছিল মুদ্রাটির মূল্য। তবে বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) প্রধান বৈশ্বিক মুদ্রার মান স্থিতিশীল হয়েছে। প্রতি ডলারের দাম স্থির হয়েছে ১৩৬ দশমিক ৮৬ ইয়েনে।

ডলারের দাপটে কয়েক মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে নেমে গিয়েছিল ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) মূল মুদ্রা ইউরোর মূল্যমান। তবে এদিন তা ঘুরে দাঁড়িয়েছে। ইউরোর দাম বেড়েছে শূন্য দশমিক ০২ শতাংশ। প্রতিটির দর নিষ্পত্তি হয়েছে ১ দশমিক ০৫৪৬ ডলারে।

ব্রিটেনের মুদ্রা স্টার্লিংয়ের বিনিময় হার কমেছিল। সেটিও ভিত্তি খুঁজে পেয়েছে। মুদ্রাটির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে শূন্য দশমিক ০৯ শতাংশ। প্রতি স্টার্লিং বিক্রি হয়েছে ১ দশমিক ১৮৫৪ ডলারে।

প্রধান ৬ মুদ্রার বিপরীতে ইউএস ডলার সূচক নিম্নমুখী হয়েছে শূন্য দশমিক ০২ শতাংশ। বর্তমানে তা দাঁড়িয়েছে ১০৫ দশমিক ৬১ পয়েন্টে। তবে এখনও সেটা ৩ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে আছে।

গত মঙ্গলবার ( ৭ মার্চ) ডলারের দর বৃদ্ধি পায় ১ দশমিক ৩ শতাংশ। বিগত সেপ্টেম্বরের পর একদিনে যা সর্বোচ্চ।

ম্যাককোয়ারিজের বৈশ্বিক ফোরেক্স ও হার কৌশলবিদ থিয়েরি উইজম্যান বলেন, ফেড চেয়ারম্যান পাওয়েল স্বীকার করেছেন; তথ্যের ওপর নির্ভর করে মার্চে সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।