ঢাকা ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লজ্জাজনকভাবে সিরিজ হেরে শীর্ষস্থান হারাল ভারত

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৬:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩ ৭১ বার পড়া হয়েছে

সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে তৃতীয় এবং শেষ ওয়ানডেতে চেন্নাইয়ে মুখোমুখি হয় ভারত-অস্ট্রেলিয়া। যারা শেষ হাসি হাসবে, ট্রফি হাতে তুলবে তারাই। এদিকে ভারত হারলে শীর্ষ স্থান হারাবে অজিদের কাছে। এমন সমীকরনে টসে হেরে বোলিংয়ে যায় রহিতের দল। আগে ব্যাট করতে নেমে ৪৯ ওভারে অলআউট হয়ে ২৬৯ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। অজিদের দেওয়া মাঝারি লক্ষ্য তারা করতে নেমে ২৪৮ রানে অলআউট হয় ভারত। ফলে শেষ ওয়ানডেতে ২১ রানের জয় পেয়ে, ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নেয় অজিরা। আর এই সিরিজ জিতে ভারতেকে টপকে ওয়ানডেতে শীর্ষস্থানে উঠে এলো স্মিথের দল।

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া মাঝারি লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা ও শিবমন গিলে ভালো সূচনা পায় ভারত। ৬৫ রানের জুটিতে গড়েন এই দুই ওপেনার। তবে দলীয় ৬৫ রানে ৩০ করে সাজঘরে পথ ধরেন অধিনায়ক। এরপর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেনি আরেক ওপেনার। দলীয় ৭৭ রানে ৪৯ বলে ৩৭ রান করে আউট হন গিল।

তৃতীয় উইকেটে বিরাট কোহলি ও রাহুল মিলে রানের চাকা সচল রাখেন। কিন্তু দলীয় ১৪৬ রানে ৫০ বলে ৩২ রান করে আউট হন রাহুল। এরপর দ্রুত সাজঘরে ফিরে যান ক্রিজে আসা অক্ষর প্যাটেল। ৪ বলে ২ করেন তিনি।

অপরদিকে দলীয় ১৮৫ রানে জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে রোহিতের দল। কোহলি ৭২ বলে ৫৪ ও সূর্যকুমার যাদব রানের খাতা না খুলেই সাজঘরে ফিরে যান। এরপর হার্দিক পান্ডিয়া ও জাদেজা মিলে লড়াই চালিয়ে যান। তবে দলীয় ২১৮ থেকে ২২৫ রানের ব্যবধানে, এই দুই ব্যাটার আউট হলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় ভারত। শেষ পর্যন্ত ৪৯.১ ওভারে অলআউট হয়ে ২৪৮ রান করে রোহিতের দল। ফলে ২১ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে অস্ট্রেলিয়া।

এদিকে আগে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করে অজি দুই ওপেনার ট্রেভিস হেড ও মিচেল মার্শ। ওপেনিং জুটিতে করেন ৬৮ রান। ১১তম ওভারে এই জুটি ভেঙে ব্রেক থ্রু এনে দেন হার্দিক পান্ডিয়া। তার ঝুলিতে তুলে নেন হেডকে। ৩১ বলে ৩৩ রান করে আউট হন এই অজি ওপেনার।

এক ওভার পর বল কতে আসা পান্ডিয়া আবার ফেরান স্মিথকে। নিজের নামের পাশে রান যোগ করার আগেই সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক। তবে হলুদ জার্সি ধারীরা সবথেকে বড় ধাক্কা খায় ১৫তম ওভারে। দুর্দান্তু ফর্মে থাকা মিচেল মার্শকে ফেরান হার্দিক। অফস্টাম্পের বাইরের বল ব্যাটের কানায় লাগিয়ে বোল্ড হন এই ব্যাটার। ৪৭ বলে করেন ৪৭ রান। ফলে মাত্র ৩ রানের জন্য টানা ৩ ম্যাচে অর্ধশতক হাতছাড়া মিচেলের।

মিডেল অর্ডারে অজিদের বড় রানের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন অ্যালেক্স ক্যারে ও মার্কাস স্টয়নিস। ষষ্ঠ উইকেটের এই জুটিতে তোলেন ৫৮ রান। কিন্তু অক্ষর প্যাটেলকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে লং অন বাউন্ডারিতে শুভমানের হাতে ধরা পড়েন স্টয়নিস। ২৬ বলে ২৫ রান করে সাজঘরেরে পথ ধরেন এই ব্যাটার । স্টয়নিস আউট হওয়ার পরপরই ফিরে যান অ্যালেক্সও। এই ব্যাটার করেন ৪৬ বলে ৩৮ রান।

শেষ দিকে শন অ্যাবটের ২৬ রানের ক্যামিও ইনিংসে ভর করে, ৪৯ ওভারে অলআউট হয়ে ২৬৯ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন কুলদীপ যাদব ও হার্দিক পান্ডিয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

লজ্জাজনকভাবে সিরিজ হেরে শীর্ষস্থান হারাল ভারত

আপডেট সময় : ০৪:৫৬:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩

সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে তৃতীয় এবং শেষ ওয়ানডেতে চেন্নাইয়ে মুখোমুখি হয় ভারত-অস্ট্রেলিয়া। যারা শেষ হাসি হাসবে, ট্রফি হাতে তুলবে তারাই। এদিকে ভারত হারলে শীর্ষ স্থান হারাবে অজিদের কাছে। এমন সমীকরনে টসে হেরে বোলিংয়ে যায় রহিতের দল। আগে ব্যাট করতে নেমে ৪৯ ওভারে অলআউট হয়ে ২৬৯ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। অজিদের দেওয়া মাঝারি লক্ষ্য তারা করতে নেমে ২৪৮ রানে অলআউট হয় ভারত। ফলে শেষ ওয়ানডেতে ২১ রানের জয় পেয়ে, ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নেয় অজিরা। আর এই সিরিজ জিতে ভারতেকে টপকে ওয়ানডেতে শীর্ষস্থানে উঠে এলো স্মিথের দল।

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া মাঝারি লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা ও শিবমন গিলে ভালো সূচনা পায় ভারত। ৬৫ রানের জুটিতে গড়েন এই দুই ওপেনার। তবে দলীয় ৬৫ রানে ৩০ করে সাজঘরে পথ ধরেন অধিনায়ক। এরপর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেনি আরেক ওপেনার। দলীয় ৭৭ রানে ৪৯ বলে ৩৭ রান করে আউট হন গিল।

তৃতীয় উইকেটে বিরাট কোহলি ও রাহুল মিলে রানের চাকা সচল রাখেন। কিন্তু দলীয় ১৪৬ রানে ৫০ বলে ৩২ রান করে আউট হন রাহুল। এরপর দ্রুত সাজঘরে ফিরে যান ক্রিজে আসা অক্ষর প্যাটেল। ৪ বলে ২ করেন তিনি।

অপরদিকে দলীয় ১৮৫ রানে জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে রোহিতের দল। কোহলি ৭২ বলে ৫৪ ও সূর্যকুমার যাদব রানের খাতা না খুলেই সাজঘরে ফিরে যান। এরপর হার্দিক পান্ডিয়া ও জাদেজা মিলে লড়াই চালিয়ে যান। তবে দলীয় ২১৮ থেকে ২২৫ রানের ব্যবধানে, এই দুই ব্যাটার আউট হলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় ভারত। শেষ পর্যন্ত ৪৯.১ ওভারে অলআউট হয়ে ২৪৮ রান করে রোহিতের দল। ফলে ২১ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে অস্ট্রেলিয়া।

এদিকে আগে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করে অজি দুই ওপেনার ট্রেভিস হেড ও মিচেল মার্শ। ওপেনিং জুটিতে করেন ৬৮ রান। ১১তম ওভারে এই জুটি ভেঙে ব্রেক থ্রু এনে দেন হার্দিক পান্ডিয়া। তার ঝুলিতে তুলে নেন হেডকে। ৩১ বলে ৩৩ রান করে আউট হন এই অজি ওপেনার।

এক ওভার পর বল কতে আসা পান্ডিয়া আবার ফেরান স্মিথকে। নিজের নামের পাশে রান যোগ করার আগেই সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক। তবে হলুদ জার্সি ধারীরা সবথেকে বড় ধাক্কা খায় ১৫তম ওভারে। দুর্দান্তু ফর্মে থাকা মিচেল মার্শকে ফেরান হার্দিক। অফস্টাম্পের বাইরের বল ব্যাটের কানায় লাগিয়ে বোল্ড হন এই ব্যাটার। ৪৭ বলে করেন ৪৭ রান। ফলে মাত্র ৩ রানের জন্য টানা ৩ ম্যাচে অর্ধশতক হাতছাড়া মিচেলের।

মিডেল অর্ডারে অজিদের বড় রানের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন অ্যালেক্স ক্যারে ও মার্কাস স্টয়নিস। ষষ্ঠ উইকেটের এই জুটিতে তোলেন ৫৮ রান। কিন্তু অক্ষর প্যাটেলকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে লং অন বাউন্ডারিতে শুভমানের হাতে ধরা পড়েন স্টয়নিস। ২৬ বলে ২৫ রান করে সাজঘরেরে পথ ধরেন এই ব্যাটার । স্টয়নিস আউট হওয়ার পরপরই ফিরে যান অ্যালেক্সও। এই ব্যাটার করেন ৪৬ বলে ৩৮ রান।

শেষ দিকে শন অ্যাবটের ২৬ রানের ক্যামিও ইনিংসে ভর করে, ৪৯ ওভারে অলআউট হয়ে ২৬৯ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন কুলদীপ যাদব ও হার্দিক পান্ডিয়া।