ঢাকা ১০:১৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীতে নিপাহ ভাইরাসে সাত বছরের শিশুর মৃত্যু

সোহরাব হোসেন সৌরভ, রাজশাহী ||
  • আপডেট সময় : ০৪:০৭:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৩ ১২০ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিপাহ ভাইরাসের আক্রান্ত এক শিশু মৃত্যু হয়েছে। শিশুটির নাম মো. সোয়াদ। সাত বছর বয়সী এই শিশুর বাড়ি পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায়।

রামেক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে(আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (২৩ জানুয়ারি) তার মৃত্যু হয়। এর আগে রোববার সন্ধ্যায় তার শরীরে নিপাহ ভাইরাস সনাক্ত হয়। এ নিয়ে চলতি বছরে রামেক হাসাপাতালে দুইজন নিপাহ ভাইরাসের আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হলো।

হাসপাতলের আইসিইউয়ের ইনচার্জ ডা. আবু হেনা মোস্তফা কামাল জানান, গত শুক্রবার সকালে খেজুরের কাচা রস খেয়েছিল সোয়াদ। এরপর জ্বর ও খিচুনি দেখা দেয়। একপর্যায়ে সে অচেতন হয়। শুক্রবার বিকেলে তাকে রামেক হাসপাতালে আনা হয়। শনিবার সকালে হাসপাতালের শিশু আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। চিকিৎসকদের সন্দেহ হওয়ায় তার নিপাহ ভাইরাসেরর পরীক্ষা করা হয়। এতে নিপাহ ভাইরাস সনাক্ত হয়। সংকটাপন্ন শিশুটিকে বাঁচানো যায়নি।

এর আগে চলতি বছরের প্রথম সপ্তাহে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত এক নারীর মৃত্যু হয়। মৃত ওই নারী রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটার বাসিন্দা ছিলেন ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রাজশাহীতে নিপাহ ভাইরাসে সাত বছরের শিশুর মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৪:০৭:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৩

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিপাহ ভাইরাসের আক্রান্ত এক শিশু মৃত্যু হয়েছে। শিশুটির নাম মো. সোয়াদ। সাত বছর বয়সী এই শিশুর বাড়ি পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায়।

রামেক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে(আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (২৩ জানুয়ারি) তার মৃত্যু হয়। এর আগে রোববার সন্ধ্যায় তার শরীরে নিপাহ ভাইরাস সনাক্ত হয়। এ নিয়ে চলতি বছরে রামেক হাসাপাতালে দুইজন নিপাহ ভাইরাসের আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হলো।

হাসপাতলের আইসিইউয়ের ইনচার্জ ডা. আবু হেনা মোস্তফা কামাল জানান, গত শুক্রবার সকালে খেজুরের কাচা রস খেয়েছিল সোয়াদ। এরপর জ্বর ও খিচুনি দেখা দেয়। একপর্যায়ে সে অচেতন হয়। শুক্রবার বিকেলে তাকে রামেক হাসপাতালে আনা হয়। শনিবার সকালে হাসপাতালের শিশু আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। চিকিৎসকদের সন্দেহ হওয়ায় তার নিপাহ ভাইরাসেরর পরীক্ষা করা হয়। এতে নিপাহ ভাইরাস সনাক্ত হয়। সংকটাপন্ন শিশুটিকে বাঁচানো যায়নি।

এর আগে চলতি বছরের প্রথম সপ্তাহে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত এক নারীর মৃত্যু হয়। মৃত ওই নারী রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটার বাসিন্দা ছিলেন ।