ঢাকা ১১:২৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মামলা ও সাজা দিয়ে বিএনপিকে দমানো যাবেনা : মিনু

সোহরাব হোসেন সৌরভ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৯:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ অগাস্ট ২০২৩ ৫৮ বার পড়া হয়েছে

এই সরকার বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জমের মত ভয় করে। কারণ তারক রহমান যা বলেন তা করে দেখান। আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারুন্যের তারেক রহমান এই সরকার পতনের একদফা ঘোষনা করেছেন। তাঁর ঘোষনা অনুযায়ী বাংলাদেশের আঠারো কোটি মানুষ জেগে উঠেছে। বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠন এবং সমমনা দলগুলোর যুগপদ আন্দোলন দেখে ভয় পেয়ে তারেক রহমানের মিথ্যা মামলায় ফরমায়েশি রায় দিয়েছে। কিন্তু এই রায় বাংলাদেশেল মানুষ মানেনা। আর কোনদিন মানবেও না বলে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজশাহীা মহানগরীর ঐতিহাসিক ভূবনমোহন পার্কে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদল রাজশাহী জেলা ও মহানগরের আয়োজনে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান এবং তার সহধর্মিনী জোবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সরকারের দায়েকৃত ভিত্তিহীন ও মিথ্যা মামলা আজ্ঞাবহ আদালত কর্তৃক ফরমায়েশী রায়ের প্রতিবাতে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু এই কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, এই অবৈধ সরকার মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও আসলে তিনি নব্য বাকাশালের রানী। তিনি তাঁর ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে সকল প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তিনি দেশে একুিট আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন বসিয়েছেন। শুধু তাই নয় বিচার বিভাগককেও কুলশিত করে ফেলেছেন। আর এই আজ্ঞাবহ বিচার বিভাগের বিচারকদের দিয়ি বিএনপি’র শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ সকল শ্রেণির নেতৃবৃন্দদের সাজা প্রদান করছেন। কিন্তু এতেও এই নব্য স্বৈরাচার সরকারের শেষ রক্ষা হবেনা বলে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সব থেকে বেশী ভয় করেন তারেক রহমানকে। তিনি সকাল হলেই তারেক রহমানের নাম জপ্তে জপ্তে ঘুম থেকে ওঠেন। তিনি বলেন, যতই মামলা, হামলা ও ফরমায়েশি রায় প্রদান করুন এই সরকার, তাতে বিএনপি’র কিছুই আসে যায়না। বিএনপি মাঠে ছিলো, থাকবে, এই সরকারের পতন ঘটিয়ে তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে দেশে গণতান্ত্রিক সরকার গঠন করে তার পরে ঘরে ফিরবে উল্লেখ করেন তিনি। সেইসাথে সকল রাজবন্দিদের নি:র্শত মুক্তি দাবী করেন। আর এই আন্দোলনে সবাইকে রাজপথে থাকার আহ্বান জানান তিনি।

যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও রাজশাহী মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি সাবেক সভাপতি ও রাসিক সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব সাইফুল ইসলাম মার্শাল, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এরশাদ আলী ঈশা, সদস্য সচিব মামুন অর রশিদ মামুন ও জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ^নাথ সরকার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান সজন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল সরকার ডিকো, রাজশাহী মহানগর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শরিফুল ইসলাম জনি ও সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রবি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মীর তারেক ও সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান জনি, ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আরফিন কনক, সদস্য সচিব শাহরিয়ার আমিন বিপুল, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আকবর আলী জ্যাকিও সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাকসুদুর রহমান সৌরভ।

উপস্থিত থেকে এই সমাবেশে একাত্বতা প্রকাম করেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র সদস্য দেবাশীষ রায় মধু, জেলা বিএনপি,ও সদস্য এডভোকেট তোফাজ্ঝল হোসেন তপু, মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক আসলাম সরকার, ওয়ালিউল হক রানা, জয়নাল আবেদিন শিবলী, জেলা বিএনপি’র সদস্য অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, সৈয়দ মোহাম্মদ মহসিন, রায়হানুল আলম রায়হান, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, রাজশাহী মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি জাকীর হোসেন রিমন, জেলা শ্রমিক দলের আহ্বায়ক রোকনুজ্জামান আলম, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক আরিফুল শেখ বনি, মহিলা দল কেন্দ্রীয় কমিটির মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক রোকসানা বেগম টুকটুকি, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি এডভোকেট রওশন আরা পপি ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সকিনা খাতুন, জেলা মহিলা দলের সভাপতি এডভোকেট সামসাদ বেগম মিতালী, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা রোমেনা হক, রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আকবর আলী জ্যাকি ও সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাকসুদুর রহমান সৌরভসহ বিভিন্ন জেলা ও মহানগরের বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও পৌরসভা থেকে আগত যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের অন্যান্য নেতাকর্মীবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মামলা ও সাজা দিয়ে বিএনপিকে দমানো যাবেনা : মিনু

আপডেট সময় : ০৪:৩৯:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ অগাস্ট ২০২৩

এই সরকার বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জমের মত ভয় করে। কারণ তারক রহমান যা বলেন তা করে দেখান। আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারুন্যের তারেক রহমান এই সরকার পতনের একদফা ঘোষনা করেছেন। তাঁর ঘোষনা অনুযায়ী বাংলাদেশের আঠারো কোটি মানুষ জেগে উঠেছে। বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠন এবং সমমনা দলগুলোর যুগপদ আন্দোলন দেখে ভয় পেয়ে তারেক রহমানের মিথ্যা মামলায় ফরমায়েশি রায় দিয়েছে। কিন্তু এই রায় বাংলাদেশেল মানুষ মানেনা। আর কোনদিন মানবেও না বলে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজশাহীা মহানগরীর ঐতিহাসিক ভূবনমোহন পার্কে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদল রাজশাহী জেলা ও মহানগরের আয়োজনে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান এবং তার সহধর্মিনী জোবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সরকারের দায়েকৃত ভিত্তিহীন ও মিথ্যা মামলা আজ্ঞাবহ আদালত কর্তৃক ফরমায়েশী রায়ের প্রতিবাতে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু এই কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, এই অবৈধ সরকার মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও আসলে তিনি নব্য বাকাশালের রানী। তিনি তাঁর ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে সকল প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তিনি দেশে একুিট আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন বসিয়েছেন। শুধু তাই নয় বিচার বিভাগককেও কুলশিত করে ফেলেছেন। আর এই আজ্ঞাবহ বিচার বিভাগের বিচারকদের দিয়ি বিএনপি’র শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ সকল শ্রেণির নেতৃবৃন্দদের সাজা প্রদান করছেন। কিন্তু এতেও এই নব্য স্বৈরাচার সরকারের শেষ রক্ষা হবেনা বলে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সব থেকে বেশী ভয় করেন তারেক রহমানকে। তিনি সকাল হলেই তারেক রহমানের নাম জপ্তে জপ্তে ঘুম থেকে ওঠেন। তিনি বলেন, যতই মামলা, হামলা ও ফরমায়েশি রায় প্রদান করুন এই সরকার, তাতে বিএনপি’র কিছুই আসে যায়না। বিএনপি মাঠে ছিলো, থাকবে, এই সরকারের পতন ঘটিয়ে তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে দেশে গণতান্ত্রিক সরকার গঠন করে তার পরে ঘরে ফিরবে উল্লেখ করেন তিনি। সেইসাথে সকল রাজবন্দিদের নি:র্শত মুক্তি দাবী করেন। আর এই আন্দোলনে সবাইকে রাজপথে থাকার আহ্বান জানান তিনি।

যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও রাজশাহী মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি সাবেক সভাপতি ও রাসিক সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব সাইফুল ইসলাম মার্শাল, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট এরশাদ আলী ঈশা, সদস্য সচিব মামুন অর রশিদ মামুন ও জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ^নাথ সরকার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান সজন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল সরকার ডিকো, রাজশাহী মহানগর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শরিফুল ইসলাম জনি ও সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রবি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মীর তারেক ও সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান জনি, ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আরফিন কনক, সদস্য সচিব শাহরিয়ার আমিন বিপুল, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আকবর আলী জ্যাকিও সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাকসুদুর রহমান সৌরভ।

উপস্থিত থেকে এই সমাবেশে একাত্বতা প্রকাম করেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপি’র সদস্য দেবাশীষ রায় মধু, জেলা বিএনপি,ও সদস্য এডভোকেট তোফাজ্ঝল হোসেন তপু, মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক আসলাম সরকার, ওয়ালিউল হক রানা, জয়নাল আবেদিন শিবলী, জেলা বিএনপি’র সদস্য অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, সৈয়দ মোহাম্মদ মহসিন, রায়হানুল আলম রায়হান, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, রাজশাহী মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি জাকীর হোসেন রিমন, জেলা শ্রমিক দলের আহ্বায়ক রোকনুজ্জামান আলম, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক আরিফুল শেখ বনি, মহিলা দল কেন্দ্রীয় কমিটির মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক রোকসানা বেগম টুকটুকি, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি এডভোকেট রওশন আরা পপি ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সকিনা খাতুন, জেলা মহিলা দলের সভাপতি এডভোকেট সামসাদ বেগম মিতালী, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা রোমেনা হক, রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আকবর আলী জ্যাকি ও সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাকসুদুর রহমান সৌরভসহ বিভিন্ন জেলা ও মহানগরের বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও পৌরসভা থেকে আগত যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের অন্যান্য নেতাকর্মীবৃন্দ।