ঢাকা ০৪:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতে পাচার হওয়া ১৩ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:৪৪:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪ ১১ বার পড়া হয়েছে

ভারতে পাচার হওয়া ১৩ বাংলাদেশি কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছেন। এদের মধ্যে চারজন শিশু ও তিনজন নারী রয়েছেন।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের ওসি আজহারুল ইসলাম জানান, বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে রোববার রাত ১০টায় বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে তাদের হস্তান্তর করা হয়।

ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছ থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদের গ্রহণ করে বলে জানান তিনি।

ফেরত আসা ব্যক্তিরা হলেন—বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার রফিক তালুকদার (৫৩) ও তার ছেলে মামুন তালুকদার (২৫), মোল্লারহাট উপজেলার নাজমুল শিকদার (৩৮), খুলনার রুপসা থানার রাজু ভূঁইয়া (২৫), একই থানার আফসানা আক্তার (২৩) তার ছেলে আমিন (৬) মেয়ে ফাতিমা (৪), একই থানার ওমর ফারুক শেখ (২৬), সদর উপজেলার মরিয়ম আক্তার (২৩), নড়াইলের কালিয়া থানার আব্দুস সাত্তার (৫০), খাগড়াছড়ির মাটিরাঙা উপজেলার ফাতেমা বেগম (২৮), পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ফাহিম হাওলাদার (২) ও মাহীম হাওলাদার (৪)।

ফেরত আসা আফসানা আক্তার জানান, ভালো কাজের আশায় দালালদের মাধ্যমে তারা দুই বছর আগে অবৈধভাবে সীমান্ত পথে ভারতে গিয়েছিলেন। এরপর সেখানে কয়েকমাস কাজ করার পর ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে।

তিনি বলেন, অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করে। আদালত তাদের কারাগারে পাঠায়। সেখানে দেড় বছর কারাভোগের পর ভারতের মানবাধিকার সংস্থা ‘রেসকিউ ফাউন্ডেশন’ তাদেরকে ছাড়িয়ে তাদের নিজস্ব শেল্টার হোমে রাখে। ওই শেল্টার হোম থেকে রোববার রাতে তারা দেশে ফিরেছেন।

ওসি আজহারুল ইসলাম বলেন, ভারত সরকারের বিশেষ ট্রাভেল পারমিটে ফেরত আসা ১৩ বাংলাদেশি নারী, পুরুষ ও শিশুকে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

সেখান থেকে ‘জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার’ নামের একটি মানবাধিকার সংস্থা তাদের গ্রহণ করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করবে বলে জানান তিনি।

যশোর ‘জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের’ সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মুহিত হোসেন জানান, ফেরত আসাদের যশোর জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার বেনাপোল পোর্ট থানা থেকে গ্রহণ করেছেন। তাদের নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ভারতে পাচার হওয়া ১৩ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন

আপডেট সময় : ১০:৪৪:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

ভারতে পাচার হওয়া ১৩ বাংলাদেশি কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছেন। এদের মধ্যে চারজন শিশু ও তিনজন নারী রয়েছেন।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের ওসি আজহারুল ইসলাম জানান, বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে রোববার রাত ১০টায় বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে তাদের হস্তান্তর করা হয়।

ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছ থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদের গ্রহণ করে বলে জানান তিনি।

ফেরত আসা ব্যক্তিরা হলেন—বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার রফিক তালুকদার (৫৩) ও তার ছেলে মামুন তালুকদার (২৫), মোল্লারহাট উপজেলার নাজমুল শিকদার (৩৮), খুলনার রুপসা থানার রাজু ভূঁইয়া (২৫), একই থানার আফসানা আক্তার (২৩) তার ছেলে আমিন (৬) মেয়ে ফাতিমা (৪), একই থানার ওমর ফারুক শেখ (২৬), সদর উপজেলার মরিয়ম আক্তার (২৩), নড়াইলের কালিয়া থানার আব্দুস সাত্তার (৫০), খাগড়াছড়ির মাটিরাঙা উপজেলার ফাতেমা বেগম (২৮), পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ফাহিম হাওলাদার (২) ও মাহীম হাওলাদার (৪)।

ফেরত আসা আফসানা আক্তার জানান, ভালো কাজের আশায় দালালদের মাধ্যমে তারা দুই বছর আগে অবৈধভাবে সীমান্ত পথে ভারতে গিয়েছিলেন। এরপর সেখানে কয়েকমাস কাজ করার পর ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে।

তিনি বলেন, অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করে। আদালত তাদের কারাগারে পাঠায়। সেখানে দেড় বছর কারাভোগের পর ভারতের মানবাধিকার সংস্থা ‘রেসকিউ ফাউন্ডেশন’ তাদেরকে ছাড়িয়ে তাদের নিজস্ব শেল্টার হোমে রাখে। ওই শেল্টার হোম থেকে রোববার রাতে তারা দেশে ফিরেছেন।

ওসি আজহারুল ইসলাম বলেন, ভারত সরকারের বিশেষ ট্রাভেল পারমিটে ফেরত আসা ১৩ বাংলাদেশি নারী, পুরুষ ও শিশুকে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

সেখান থেকে ‘জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার’ নামের একটি মানবাধিকার সংস্থা তাদের গ্রহণ করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করবে বলে জানান তিনি।

যশোর ‘জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের’ সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মুহিত হোসেন জানান, ফেরত আসাদের যশোর জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার বেনাপোল পোর্ট থানা থেকে গ্রহণ করেছেন। তাদের নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।