ঢাকা ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুঠিয়ায় নেশার টাকা না পেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, পুঠিয়াঃ
  • আপডেট সময় : ১০:১৪:৫২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৩ ৯২ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহীর পুঠিয়ায় নেশার টাকা না পেয়ে মেহেদী হাসান (১৭) নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থী নিজ বাড়ির পেছনের আমগাছে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) সকালে উপজেলার বারোপাখিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মেহেদী হাসান ওই গ্রামের সিরাজ উদ্দীনের ছেলে এবং সৈয়দপুর উচ্চবিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল।
পুঠিয়া থানা পুলিশ খবর পেয়ে নিজ বাড়ির পেছনের আমগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকা মরদেহ উদ্ধার করে। থানা পুলিশ ও পরিবারের ধারণা এটি আত্মহত্যা। পুলিশের আরো ধারণা করছে বুধবার (৫ এপ্রিল) রাতের কোনো এক সময় মেহেদি বাড়ির পাশে আম গাছের সাথে গলায় ফাঁস দিয়েছে।
মেহেদীর বাবা সিরাজ উদ্দিন জানান, মেহেদী বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে খাবার খেয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর দীর্ঘক্ষণ ফিরে না আসায় তারা তাকে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে গভীর রাতে বাড়ির পেছনে আমগাছের ডালে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তার মরদেহ দেখতে পান। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ সকালে গিয়ে তার মরদেহ নামায়। মেহেদী সম্প্রতি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছিল। আর মাদক কিনতে টাকার জন্য বাড়িতে প্রায়ই ঝগড়া করত। বুধবারও নেশার টাকার জন্য ঝামেলা করে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। সে ক্ষোভ থেকেই মেহেদী আত্মহত্যা করেছে।
পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুক হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। মৃতের পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

পুঠিয়ায় নেশার টাকা না পেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ১০:১৪:৫২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৩

রাজশাহীর পুঠিয়ায় নেশার টাকা না পেয়ে মেহেদী হাসান (১৭) নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থী নিজ বাড়ির পেছনের আমগাছে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) সকালে উপজেলার বারোপাখিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মেহেদী হাসান ওই গ্রামের সিরাজ উদ্দীনের ছেলে এবং সৈয়দপুর উচ্চবিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল।
পুঠিয়া থানা পুলিশ খবর পেয়ে নিজ বাড়ির পেছনের আমগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকা মরদেহ উদ্ধার করে। থানা পুলিশ ও পরিবারের ধারণা এটি আত্মহত্যা। পুলিশের আরো ধারণা করছে বুধবার (৫ এপ্রিল) রাতের কোনো এক সময় মেহেদি বাড়ির পাশে আম গাছের সাথে গলায় ফাঁস দিয়েছে।
মেহেদীর বাবা সিরাজ উদ্দিন জানান, মেহেদী বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে খাবার খেয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর দীর্ঘক্ষণ ফিরে না আসায় তারা তাকে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে গভীর রাতে বাড়ির পেছনে আমগাছের ডালে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তার মরদেহ দেখতে পান। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ সকালে গিয়ে তার মরদেহ নামায়। মেহেদী সম্প্রতি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছিল। আর মাদক কিনতে টাকার জন্য বাড়িতে প্রায়ই ঝগড়া করত। বুধবারও নেশার টাকার জন্য ঝামেলা করে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। সে ক্ষোভ থেকেই মেহেদী আত্মহত্যা করেছে।
পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুক হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। মৃতের পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।