ঢাকা ১০:২২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দৌড়াতে দৌড়াতে বিএনপি এখন দাঁড়িয়ে গেছে: কাদের

দেশের আওয়াজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ১০:৫৩:২৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩ ৯৭ বার পড়া হয়েছে

বিএনপি বিভিন্ন কর্মসূচির পর এখন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করায় দলটির সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বিএনপি দৌড়াতে দৌড়াতে এখন দাঁড়িয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেছেন, বিএনপির আন্দোলন এখন দিশা হারিয়েছে। আন্দোলনে বিএনপি আর সফল হবে না বলেও মনে করেন তিনি।

শনিবার (১১ মার্চ) বিকেলে ময়মনসিংহ সার্কিট হাউজ মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘লোকে বলে ময়মনসিংহ আওয়ামী লীগের দুর্ভেদ্য দুর্গ। আজ বঙ্গবন্ধু কন্যাকে এক নজর দেখার জন্য বৃহত্তর ময়মনসিংহের অগণিত মানুষ ময়মনসিংহে ছুটে এসেছে। আজ আবারও প্রমাণ হলো, ময়মনসিংহ শেখ হাসিনার দুর্জয় দুর্ভেদ্য ঘাঁটি।’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আপনাদের খুশিতে বিএনপি বেজার। বিএনপি খুশি নয়। মানুষ খুশি হলে বিএনপির ভোট কমে যায়। এত দিন দৌড়াতে দৌড়াতে বিএনপি এখন দাঁড়িয়ে গেছে। তারা মানববন্ধন করছে। পথ হারিয়ে তারা এখন দিশেহারা। কোথায় যাবে, ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে।’

কাদের বলেন, ‘বিএনপি ফান্দে পড়ে গেছে। এক দিকে লন্ডনের ফরমান। অন্যদিকে টাকাওয়ালাদের টাকা। ফখরুল দিশেহরা। চোখে অন্ধকার দেখছে। বিএনপিতে আর দেশের মানুষ ফিরে যেতে চায় না।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ধানের শীষ পেটের বিষ। ধানের শীষের আরেক নাম পেটের বিষ। মানুষ এখন বলে সাপের বিষ। এই হলো ধানের শীষ।’

ময়মনসিংহে ১০৩টি প্রকল্প উদ্বোধনের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘৭৩টি প্রকল্প উদ্বোধন, ৩৩টি ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন। এত প্রকল্প ময়মনসিংহের মানুষ দেখেছে কখনো! এরপর আর কোথায় যাবেন। নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন বলে আজ এত উন্নয়ন। ময়মনসিংহের ঘরে ঘরে আগে ছিল অন্ধকার। এখন ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো। হাতে হাতে মোবাইল। ঘরে ঘরে ইন্টারনেট। ইউনিয়নে ডিজিটাল কেন্দ্র। এই সেবা অতীতে কেউ পেয়েছে?’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, ‘অন্তর্জ্বালায় বিএনপির দিনের আরাম, রাতের ঘুম নষ্ট। কী করে পদ্মা সেতু, কী করে মেট্রোরেল হয়ে গেল। কী করে এত উন্নয়ন হয়। জ্বালায় জ্বালায় বিএনপি আজ দিশেহারা। আর মানুষের চোখ শেখ হাসিনার উন্নয়নে।’

উপস্থিত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা ঠিক আছেন? খেলা তাহলে হবে। খেলা হবে। মহিষের সিং, বড় শক্তি ময়মনসিংহ। আন্দোলনে হবে, নির্বাচনে হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে, অর্থপাচারের বিরুদ্ধে, ভোট চুরির বিরুদ্ধে, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে খেলা হবে। জঙ্গিবাদ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে খেলা হবে। আপনারা কি প্রস্তুত?’ এ সময় উপস্থিত জনতা হাত উঠিয়ে প্রস্তুত থাকার কথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি এখন দিশেহারা, তাদের আন্দোলনের শক্তি আর নেই। তবে তাদের শক্তি কমলেও মুখের বিষ বেড়েছে। আরও উগ্র হয়ে গেছে। প্রতিদিন অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে। সরকারের পতন ঘটাবে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারে ইলেকসড়শন করবে। ২৩ দফা, ১০ দফা, এক দফা দিয়ে সরকার পতন।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘এদেশের গণতন্ত্র মেরামত করেছেন শেখ হাসিনা। তার জন্য গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পেয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে আপনার ধ্বংস করেছেন। আপনারা ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ নিষিদ্ধ করেছিলেন। তারা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুরস্কৃত করেছে। জেলহত্যার খুনিদের পুরস্কৃত করেছে। তারা শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। আমাদের প্রাণ থাকতে এই বিএনপির হাতে বাংলাদেশ ফিরিয়ে দেব না।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

দৌড়াতে দৌড়াতে বিএনপি এখন দাঁড়িয়ে গেছে: কাদের

আপডেট সময় : ১০:৫৩:২৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩

বিএনপি বিভিন্ন কর্মসূচির পর এখন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করায় দলটির সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বিএনপি দৌড়াতে দৌড়াতে এখন দাঁড়িয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেছেন, বিএনপির আন্দোলন এখন দিশা হারিয়েছে। আন্দোলনে বিএনপি আর সফল হবে না বলেও মনে করেন তিনি।

শনিবার (১১ মার্চ) বিকেলে ময়মনসিংহ সার্কিট হাউজ মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘লোকে বলে ময়মনসিংহ আওয়ামী লীগের দুর্ভেদ্য দুর্গ। আজ বঙ্গবন্ধু কন্যাকে এক নজর দেখার জন্য বৃহত্তর ময়মনসিংহের অগণিত মানুষ ময়মনসিংহে ছুটে এসেছে। আজ আবারও প্রমাণ হলো, ময়মনসিংহ শেখ হাসিনার দুর্জয় দুর্ভেদ্য ঘাঁটি।’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আপনাদের খুশিতে বিএনপি বেজার। বিএনপি খুশি নয়। মানুষ খুশি হলে বিএনপির ভোট কমে যায়। এত দিন দৌড়াতে দৌড়াতে বিএনপি এখন দাঁড়িয়ে গেছে। তারা মানববন্ধন করছে। পথ হারিয়ে তারা এখন দিশেহারা। কোথায় যাবে, ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে।’

কাদের বলেন, ‘বিএনপি ফান্দে পড়ে গেছে। এক দিকে লন্ডনের ফরমান। অন্যদিকে টাকাওয়ালাদের টাকা। ফখরুল দিশেহরা। চোখে অন্ধকার দেখছে। বিএনপিতে আর দেশের মানুষ ফিরে যেতে চায় না।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ধানের শীষ পেটের বিষ। ধানের শীষের আরেক নাম পেটের বিষ। মানুষ এখন বলে সাপের বিষ। এই হলো ধানের শীষ।’

ময়মনসিংহে ১০৩টি প্রকল্প উদ্বোধনের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘৭৩টি প্রকল্প উদ্বোধন, ৩৩টি ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন। এত প্রকল্প ময়মনসিংহের মানুষ দেখেছে কখনো! এরপর আর কোথায় যাবেন। নৌকায় ভোট দিয়েছিলেন বলে আজ এত উন্নয়ন। ময়মনসিংহের ঘরে ঘরে আগে ছিল অন্ধকার। এখন ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো। হাতে হাতে মোবাইল। ঘরে ঘরে ইন্টারনেট। ইউনিয়নে ডিজিটাল কেন্দ্র। এই সেবা অতীতে কেউ পেয়েছে?’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, ‘অন্তর্জ্বালায় বিএনপির দিনের আরাম, রাতের ঘুম নষ্ট। কী করে পদ্মা সেতু, কী করে মেট্রোরেল হয়ে গেল। কী করে এত উন্নয়ন হয়। জ্বালায় জ্বালায় বিএনপি আজ দিশেহারা। আর মানুষের চোখ শেখ হাসিনার উন্নয়নে।’

উপস্থিত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা ঠিক আছেন? খেলা তাহলে হবে। খেলা হবে। মহিষের সিং, বড় শক্তি ময়মনসিংহ। আন্দোলনে হবে, নির্বাচনে হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে, অর্থপাচারের বিরুদ্ধে, ভোট চুরির বিরুদ্ধে, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে খেলা হবে। জঙ্গিবাদ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে খেলা হবে। আপনারা কি প্রস্তুত?’ এ সময় উপস্থিত জনতা হাত উঠিয়ে প্রস্তুত থাকার কথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি এখন দিশেহারা, তাদের আন্দোলনের শক্তি আর নেই। তবে তাদের শক্তি কমলেও মুখের বিষ বেড়েছে। আরও উগ্র হয়ে গেছে। প্রতিদিন অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে। সরকারের পতন ঘটাবে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারে ইলেকসড়শন করবে। ২৩ দফা, ১০ দফা, এক দফা দিয়ে সরকার পতন।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘এদেশের গণতন্ত্র মেরামত করেছেন শেখ হাসিনা। তার জন্য গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পেয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে আপনার ধ্বংস করেছেন। আপনারা ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ নিষিদ্ধ করেছিলেন। তারা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুরস্কৃত করেছে। জেলহত্যার খুনিদের পুরস্কৃত করেছে। তারা শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। আমাদের প্রাণ থাকতে এই বিএনপির হাতে বাংলাদেশ ফিরিয়ে দেব না।’