ঢাকা ০৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকাসহ ১৩ দফা দাবিতে খামার শ্রমিকদের অবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক//
  • আপডেট সময় : ১১:১২:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুলাই ২০২৩ ১৪৮ বার পড়া হয়েছে

চাকুরি স্থায়ী করন, দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকাসহ ১৩ দফা দাবিতে অফিসের সামনে অবস্থান ও খামার গুলোতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাজশাহী দুগ্ধ ও গবাদি উন্নয়ন খামার শ্রমিক ইউনিয়ন। কেন্দ্রিয় কর্মসুচির অংশ হিসাবে আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় দাবি আদায়ের লক্ষে গোদাগাড়ী উপজেলার রাজাবাড়ীহাট এলাকায় অবস্থিত আঞ্চলিক খামার গুলোতে এ অবস্থান কর্মসুচি ও বিক্ষোভ মিছিল করে খামার শ্রমিকরা।
অবস্থান কর্মসুচি ও বিক্ষোভ মিছিলে রাজশাহী দুগ্ধ ও গবাদি উন্নয়ন খামার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মন্টু উরাও বলেন, খামারে দৈনিক হাজিরা ভিত্তিক শ্রমিক হিসেবে ২৫-৩০ বছর যাবৎ সৎ ও নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালন করে আসচ্ছি। একই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা সরকার ঘোষিত সকল সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে। দুখঃজনক ভাবে শ্রমিকদের দৈনিক মজুরিসহ কোন সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি হয়নি। প্রতিবছর খাদ্যদ্রব্যসহ সকল কিছুর দাম ১৫ থেকে ২০ গুন বৃব্ধি পাচ্ছে। নিয়ন্ত্রণহীন দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির কারনে খামার শ্রমিকরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।
তিনি আরো বলেন, খামার শ্রমিকদের নায্য দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চলবে।
রাজশাহী দুগ্ধ ও গবাদি উন্নয়ন খামার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুর রায়হান বলেন, আমরা দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকাসহ ১৩ দফা খামার শ্রমিকদের নায্য দাবি নিয়ে আন্দোলনে নেমেছি। আমরা শান্তি পূর্নভাবে আন্দোলনের কর্মসুচি পালন করছি। আন্দোলনের কর্মসুচি অংশ হিসাবে ২৬,২৭ ও ২৮ জুলাই খামার ও কেন্দ্রসমুহের গেটের সামনে মানববন্ধন, ৩০ জুলাই খামার ও কেন্দ্রসমুহের অফিসের সামনে অনশন কর্মসুচি পালন করা হবে। সকল খামার শ্রমিকদের এ আন্দোলনকে আরো বেগবান করার আহবান জানান তিনি।
১৩ দফা দাবিগুলোর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য দাবি হলোঃ চাকুরি স্থায়ী করন, বর্তমান বাজার মূল্যের সাথে সংগতি রেখে শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকা দিতে হবে, খামার শ্রমিকদের চাকুরি অবসান শেষে ৪০ মাসের পরিবর্তে গ্রাইচুটি ভাতা ৬০ মাস করতে হবে, বাংলাদেশ কৃষি গবেষনা ইনস্টিটিউট কতৃক নীতিমালা বহির্ভুতভাবে প্রশাসনিক ভাবে নিয়োগ দিয়ে অফিস মাষ্টাররোল নামে শ্রমিক বৃদ্ধি করা হয়েছে। এসব নীতিমালা বহিভুর্ত নিয়োগকৃত শ্রমিকদের অনিয়মিত শ্রমিক হিসাবে অর্ন্তভুক্ত করা অথবা এসকল নিয়োগ বাতির করা প্রয়োজন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকাসহ ১৩ দফা দাবিতে খামার শ্রমিকদের অবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল

আপডেট সময় : ১১:১২:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুলাই ২০২৩

চাকুরি স্থায়ী করন, দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকাসহ ১৩ দফা দাবিতে অফিসের সামনে অবস্থান ও খামার গুলোতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাজশাহী দুগ্ধ ও গবাদি উন্নয়ন খামার শ্রমিক ইউনিয়ন। কেন্দ্রিয় কর্মসুচির অংশ হিসাবে আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় দাবি আদায়ের লক্ষে গোদাগাড়ী উপজেলার রাজাবাড়ীহাট এলাকায় অবস্থিত আঞ্চলিক খামার গুলোতে এ অবস্থান কর্মসুচি ও বিক্ষোভ মিছিল করে খামার শ্রমিকরা।
অবস্থান কর্মসুচি ও বিক্ষোভ মিছিলে রাজশাহী দুগ্ধ ও গবাদি উন্নয়ন খামার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মন্টু উরাও বলেন, খামারে দৈনিক হাজিরা ভিত্তিক শ্রমিক হিসেবে ২৫-৩০ বছর যাবৎ সৎ ও নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালন করে আসচ্ছি। একই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা সরকার ঘোষিত সকল সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে। দুখঃজনক ভাবে শ্রমিকদের দৈনিক মজুরিসহ কোন সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি হয়নি। প্রতিবছর খাদ্যদ্রব্যসহ সকল কিছুর দাম ১৫ থেকে ২০ গুন বৃব্ধি পাচ্ছে। নিয়ন্ত্রণহীন দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির কারনে খামার শ্রমিকরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।
তিনি আরো বলেন, খামার শ্রমিকদের নায্য দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চলবে।
রাজশাহী দুগ্ধ ও গবাদি উন্নয়ন খামার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুর রায়হান বলেন, আমরা দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকাসহ ১৩ দফা খামার শ্রমিকদের নায্য দাবি নিয়ে আন্দোলনে নেমেছি। আমরা শান্তি পূর্নভাবে আন্দোলনের কর্মসুচি পালন করছি। আন্দোলনের কর্মসুচি অংশ হিসাবে ২৬,২৭ ও ২৮ জুলাই খামার ও কেন্দ্রসমুহের গেটের সামনে মানববন্ধন, ৩০ জুলাই খামার ও কেন্দ্রসমুহের অফিসের সামনে অনশন কর্মসুচি পালন করা হবে। সকল খামার শ্রমিকদের এ আন্দোলনকে আরো বেগবান করার আহবান জানান তিনি।
১৩ দফা দাবিগুলোর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য দাবি হলোঃ চাকুরি স্থায়ী করন, বর্তমান বাজার মূল্যের সাথে সংগতি রেখে শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ১ হাজার টাকা দিতে হবে, খামার শ্রমিকদের চাকুরি অবসান শেষে ৪০ মাসের পরিবর্তে গ্রাইচুটি ভাতা ৬০ মাস করতে হবে, বাংলাদেশ কৃষি গবেষনা ইনস্টিটিউট কতৃক নীতিমালা বহির্ভুতভাবে প্রশাসনিক ভাবে নিয়োগ দিয়ে অফিস মাষ্টাররোল নামে শ্রমিক বৃদ্ধি করা হয়েছে। এসব নীতিমালা বহিভুর্ত নিয়োগকৃত শ্রমিকদের অনিয়মিত শ্রমিক হিসাবে অর্ন্তভুক্ত করা অথবা এসকল নিয়োগ বাতির করা প্রয়োজন।