ঢাকা ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এই সরকরের আমলে কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না: হারুন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০২:২০:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ১০৫ বার পড়া হয়েছে

এই সরকারের আমলে আর কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের অধিনে নির্বাচন করতে এই সরকারকে বাধ্য করা হবে। শনিবার বিকেলে রাজশাহী জেলা বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে পদযাত্রায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব সাবেক সংসদ সদস্য হারুন-অর-রশিদ এই কথাগুলো বলেন। নগরীর সাগরপাড়াস্থ বটতলা মোড়ে পদযাত্রা পূর্ব সমাবেশে বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, এই সরকারের জনপ্রিয়তা এতটাই নিচে নেমে গেছে যে, হিরো আলমের নিকটও আওয়ামী লীগের প্রার্থী পরাজিত হয়।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান বিনা ভোটের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাবার আমলেও দেশে চরম দুর্ভিক্ষ হয়েছিলো। এখন আবারও দেশ এই পথে হাটছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ দিনরাত উন্নয়নের কথা বলে। কিসের উন্নয়ন হয়েছে। উন্নয়ন হয়েছে কনক্রিটের। জনগণের জীবন মানের কোন উন্নয়ন হয়নি। উন্নয়ন হয়েছে জগণের মাথাপিছু ঋণ। ঋণ করে এই সরকার ঘি দিয়ে ভাত খাচ্ছে। নিজেদের বিলাসবহুল জীবন যাপনের জন্য মেগা প্রকল্প দেখিয়ে বিদেশ থেকে থেকে ঋন করে এনে সে টাকা লোপাট করছে। এই টাকার সুদ ও এমপি, মন্ত্রী ও দলীয় নেতাকর্মী এবং আইনশৃংখলা বাহিনী ও প্রশাসনের চাহিদা মেটাতে গিয়ে জনগণের উপর প্রতিদিন ট্যাক্সের হার বৃদ্ধি করছে। গ্যাস ও বিদ্যুতের মুল্য বৃদ্ধি করে কলকারখানা বন্ধ করে দিচ্ছে। এতে করে দেশে বেকার সমস্যা বেরে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

প্রধান অতিথি বলেন, এই সরকার প্রধান সর্বদা মিথ্যাচার করে। সংসদে দাঁড়িয়েও মিথ্যাচার করেন। যতই মিথ্যাচার করুক আর বেগম জিয়াকে আটকে রাখুক বিএনপিকে আর দমিয়ে রাখতে পারবেনা। বিএনপি’র গণজোয়ার বইতে শুরু করেছে। যে কোন সমাবেশের ডাক দিলেই হাজার হাজার নেতাকর্মী রাজ পথে নেমে আসেন। তিনি বলেন, এই সরকারের জোকার সাধারণ সাধারণ সম্পাদক স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে যেয়ে ষ্ট্রেজ ভেঙ্গে পরে যায়। এটা হচ্ছে পতনের লক্ষণ। বর্তমানে দেশের যে অবস্থা জনগণ অসহায় হয়ে পড়েছে। সেইসাথে জনগণ ফুঁসে উঠতে শুরু করেছে। যে কােন সময়ে জনবিস্ফোরণ ঘটিয়ে এই সরকারের পতন ঘটাবে। তখন পালাবার পথ খুঁজে পাবেনা বলে উল্লেখ করেন তিনি। পরে দিনি আগামী মার্চ মাসের ৪তারিখ জেলা, মহানগর ও বিভাগীয় পর্যায়ে পদযাত্রা করার ঘোষণা দেন তিনি। সেইসাথে আগামীর সকল কর্মসূচী আরো ভাল ভাবে এবং আরো বেগমান করার আহ্বান জানান প্রধান অতিথি।

দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গ্যাস, তেল, বিদ্যুৎ, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিল প্রতিবাদসহ ১০দফা দাবিতে পদযাত্রায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি সৈয়দ শাহীন শওকত খালেক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এরশাদ আলী ঈশা,বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম মার্শাল, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মামুন অর রশিদ।

রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ^নাথ সরকারের সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মন্টু, জেলা বিএনপি’র সদস্য অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, রোকনুজ্জামান আলম, অধ্যাপক মোজাফফর হোসেন, আলী হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, রায়হানুল আলম রায়হান, তাজমুল তান টুটুল, তোফায়েল হোসেন রাজু, জাকিরুল ইসলাম বিকুল, কামরুজ্জামান হেনা, সাবেক মেজর জেনারেল বিএনপি নেতা শরীফ উদ্দিন , বিএনপি নেতা বিপ্লব, মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক ওয়ালিউল হক রানা, বজলুল হক মন্টু, রাজশাহী জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান স্বজন, সিনিয় যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল সরকার ডিকো, সদস্য সচিব রেজাউল করিম টুটুল, স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান লিটন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আরফিন কনক, সদস্য সচিব শাহরিয়ার আমিন বিপুল, কৃষকদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জেলা কৃষকদলের আহ্বায়ক আল-আমিন সরকার টিটু, জেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক শফিকুল আলম সমাপ্ত, সদস্য সচিব আকুল হোসেন মিঠু, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক আরিফুল শেখ বনি ও জেলা তাঁতী দলের কুতুব উদ্দিন বাদশা।

এছাড়াও জেলা মহিলা দলের সভাপতি এডভোকেট সামসাদ বেগম মিতালী, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা রোমেনা হোসেন ও জেলার বিভিন্ন থানা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

এই সরকরের আমলে কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না: হারুন

আপডেট সময় : ০২:২০:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

এই সরকারের আমলে আর কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের অধিনে নির্বাচন করতে এই সরকারকে বাধ্য করা হবে। শনিবার বিকেলে রাজশাহী জেলা বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে পদযাত্রায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব সাবেক সংসদ সদস্য হারুন-অর-রশিদ এই কথাগুলো বলেন। নগরীর সাগরপাড়াস্থ বটতলা মোড়ে পদযাত্রা পূর্ব সমাবেশে বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, এই সরকারের জনপ্রিয়তা এতটাই নিচে নেমে গেছে যে, হিরো আলমের নিকটও আওয়ামী লীগের প্রার্থী পরাজিত হয়।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান বিনা ভোটের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাবার আমলেও দেশে চরম দুর্ভিক্ষ হয়েছিলো। এখন আবারও দেশ এই পথে হাটছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ দিনরাত উন্নয়নের কথা বলে। কিসের উন্নয়ন হয়েছে। উন্নয়ন হয়েছে কনক্রিটের। জনগণের জীবন মানের কোন উন্নয়ন হয়নি। উন্নয়ন হয়েছে জগণের মাথাপিছু ঋণ। ঋণ করে এই সরকার ঘি দিয়ে ভাত খাচ্ছে। নিজেদের বিলাসবহুল জীবন যাপনের জন্য মেগা প্রকল্প দেখিয়ে বিদেশ থেকে থেকে ঋন করে এনে সে টাকা লোপাট করছে। এই টাকার সুদ ও এমপি, মন্ত্রী ও দলীয় নেতাকর্মী এবং আইনশৃংখলা বাহিনী ও প্রশাসনের চাহিদা মেটাতে গিয়ে জনগণের উপর প্রতিদিন ট্যাক্সের হার বৃদ্ধি করছে। গ্যাস ও বিদ্যুতের মুল্য বৃদ্ধি করে কলকারখানা বন্ধ করে দিচ্ছে। এতে করে দেশে বেকার সমস্যা বেরে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

প্রধান অতিথি বলেন, এই সরকার প্রধান সর্বদা মিথ্যাচার করে। সংসদে দাঁড়িয়েও মিথ্যাচার করেন। যতই মিথ্যাচার করুক আর বেগম জিয়াকে আটকে রাখুক বিএনপিকে আর দমিয়ে রাখতে পারবেনা। বিএনপি’র গণজোয়ার বইতে শুরু করেছে। যে কোন সমাবেশের ডাক দিলেই হাজার হাজার নেতাকর্মী রাজ পথে নেমে আসেন। তিনি বলেন, এই সরকারের জোকার সাধারণ সাধারণ সম্পাদক স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে যেয়ে ষ্ট্রেজ ভেঙ্গে পরে যায়। এটা হচ্ছে পতনের লক্ষণ। বর্তমানে দেশের যে অবস্থা জনগণ অসহায় হয়ে পড়েছে। সেইসাথে জনগণ ফুঁসে উঠতে শুরু করেছে। যে কােন সময়ে জনবিস্ফোরণ ঘটিয়ে এই সরকারের পতন ঘটাবে। তখন পালাবার পথ খুঁজে পাবেনা বলে উল্লেখ করেন তিনি। পরে দিনি আগামী মার্চ মাসের ৪তারিখ জেলা, মহানগর ও বিভাগীয় পর্যায়ে পদযাত্রা করার ঘোষণা দেন তিনি। সেইসাথে আগামীর সকল কর্মসূচী আরো ভাল ভাবে এবং আরো বেগমান করার আহ্বান জানান প্রধান অতিথি।

দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গ্যাস, তেল, বিদ্যুৎ, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিল প্রতিবাদসহ ১০দফা দাবিতে পদযাত্রায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি সৈয়দ শাহীন শওকত খালেক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এরশাদ আলী ঈশা,বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম মার্শাল, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মামুন অর রশিদ।

রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ^নাথ সরকারের সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মন্টু, জেলা বিএনপি’র সদস্য অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, রোকনুজ্জামান আলম, অধ্যাপক মোজাফফর হোসেন, আলী হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, রায়হানুল আলম রায়হান, তাজমুল তান টুটুল, তোফায়েল হোসেন রাজু, জাকিরুল ইসলাম বিকুল, কামরুজ্জামান হেনা, সাবেক মেজর জেনারেল বিএনপি নেতা শরীফ উদ্দিন , বিএনপি নেতা বিপ্লব, মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক ওয়ালিউল হক রানা, বজলুল হক মন্টু, রাজশাহী জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান স্বজন, সিনিয় যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল সরকার ডিকো, সদস্য সচিব রেজাউল করিম টুটুল, স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান লিটন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আরফিন কনক, সদস্য সচিব শাহরিয়ার আমিন বিপুল, কৃষকদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জেলা কৃষকদলের আহ্বায়ক আল-আমিন সরকার টিটু, জেলা কৃষক দলের আহ্বায়ক শফিকুল আলম সমাপ্ত, সদস্য সচিব আকুল হোসেন মিঠু, মহানগর তাঁতী দলের আহ্বায়ক আরিফুল শেখ বনি ও জেলা তাঁতী দলের কুতুব উদ্দিন বাদশা।

এছাড়াও জেলা মহিলা দলের সভাপতি এডভোকেট সামসাদ বেগম মিতালী, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা রোমেনা হোসেন ও জেলার বিভিন্ন থানা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।