ঢাকা ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আদানি ইস্যুতে সংবাদ প্রকাশ না করতে আইনজীবীর পিটিশন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০৩:২৩:০৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ৯৪ বার পড়া হয়েছে

আদানি-হিন্ডেনবার্গ ইস্যু নিয়ে গণমাধ্যমে কোনো সংবাদ প্রকাশ করা যাবে না বা ছাপানো যাবে না। এমন দাবিতে পিটিশন বা আবেদন দায়ের করা হয়েছিল ভারতের সুপ্রিম কোর্টে। শুক্রবার সেই মামলা খারিজ করে দেয় দেশটির শীর্ষ আদালত। এ বিষয়ে ভারতের প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় বলেন, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা লঙ্ঘন করার পক্ষে কখনই রায় দেওয়া যায় না।

এম এল শর্মা নামে এক আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে ওই মামলা দায়ের করেন। তার পিটিশনে বলা হয়, এখনও শীর্ষ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে আদানি-হিন্ডেনবার্গ মামলা। কয়েক দিন পরেই রায় জানাবে সুপ্রিম কোর্ট। যত দিন পর্যন্ত না এই রায় প্রকাশিত হচ্ছে, তত দিন কোনো সংবাদ সংস্থা যেন আদানি সংক্রান্ত কোনো সংবাদ প্রকাশ না করেন। কারণ এই বিষয়টি নিয়ে অযথা উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ছে।

google news
Follow us on google news
ভারতের প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের এজলাসে এই মামলার শুনানি শুরু হয়। প্রধান বিচারপতি এ সময় বলেন, “মিডিয়ার কাজে বাধা দেওয়ার জন্য অন্য কোনো অভিযোগ দায়ের করুন। এভাবে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা যায় না। ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট কখনই এমন কাজ করতে পারে না।” শুক্রবারই ওই পিটিশন খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত।

সেই সঙ্গে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট আরও জানিয়ে দেয়, কয়েক দিনের মধ্যেই আদানি-হিন্ডেনবার্গ মামলার রায় প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, আদানি গোষ্ঠীর সম্পত্তি সংক্রান্ত হিন্ডেনবার্গের রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই হু হু করে গৌতম আদানির সম্পত্তির পরিমাণ কমছে। সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান বলছেন, এখন তার সম্পত্তির পরিমাণ চার হাজার ২০০ কোটি ডলার। একই সময়ে ভারতের আরেক ধনকুবের মুকেশ আম্বানির সম্পত্তির পরিমাণ আদানির প্রায় দ্বিগুণ।

সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে, এসপি

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আদানি ইস্যুতে সংবাদ প্রকাশ না করতে আইনজীবীর পিটিশন

আপডেট সময় : ০৩:২৩:০৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

আদানি-হিন্ডেনবার্গ ইস্যু নিয়ে গণমাধ্যমে কোনো সংবাদ প্রকাশ করা যাবে না বা ছাপানো যাবে না। এমন দাবিতে পিটিশন বা আবেদন দায়ের করা হয়েছিল ভারতের সুপ্রিম কোর্টে। শুক্রবার সেই মামলা খারিজ করে দেয় দেশটির শীর্ষ আদালত। এ বিষয়ে ভারতের প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় বলেন, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা লঙ্ঘন করার পক্ষে কখনই রায় দেওয়া যায় না।

এম এল শর্মা নামে এক আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে ওই মামলা দায়ের করেন। তার পিটিশনে বলা হয়, এখনও শীর্ষ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে আদানি-হিন্ডেনবার্গ মামলা। কয়েক দিন পরেই রায় জানাবে সুপ্রিম কোর্ট। যত দিন পর্যন্ত না এই রায় প্রকাশিত হচ্ছে, তত দিন কোনো সংবাদ সংস্থা যেন আদানি সংক্রান্ত কোনো সংবাদ প্রকাশ না করেন। কারণ এই বিষয়টি নিয়ে অযথা উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ছে।

google news
Follow us on google news
ভারতের প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের এজলাসে এই মামলার শুনানি শুরু হয়। প্রধান বিচারপতি এ সময় বলেন, “মিডিয়ার কাজে বাধা দেওয়ার জন্য অন্য কোনো অভিযোগ দায়ের করুন। এভাবে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা যায় না। ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট কখনই এমন কাজ করতে পারে না।” শুক্রবারই ওই পিটিশন খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত।

সেই সঙ্গে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট আরও জানিয়ে দেয়, কয়েক দিনের মধ্যেই আদানি-হিন্ডেনবার্গ মামলার রায় প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, আদানি গোষ্ঠীর সম্পত্তি সংক্রান্ত হিন্ডেনবার্গের রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই হু হু করে গৌতম আদানির সম্পত্তির পরিমাণ কমছে। সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান বলছেন, এখন তার সম্পত্তির পরিমাণ চার হাজার ২০০ কোটি ডলার। একই সময়ে ভারতের আরেক ধনকুবের মুকেশ আম্বানির সম্পত্তির পরিমাণ আদানির প্রায় দ্বিগুণ।

সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে, এসপি